চিনের ভ্যাকসিনকে জরুরি ভিত্তিতে ছাড় হু-র, দেশে ছাড় মডার্না-ফাইজারকে

IMG-20210602-WA0005.jpg

Onlooker desk: চিনের সিনোভ্যাক ভ্যাকসিনকে কোভিডের টিকা হিসাবে জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগের অনুমতি দিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। এর আগে চিনের প্রথম ভ্যাকসিন সিনোফার্ম প্রয়োগে ছাড়পত্র দিয়েছিল আন্তর্জাতিক এই সংস্থা। এ বার উন্নয়নশীল দেশে সিনোভ্যাকে সবুজ সঙ্কেত মিলল। বিবৃতি জারি করে হু-এর দাবি, এই টিকা আন্তর্জাতিক মাপকাঠির বিচারে উত্তীর্ণ।
হু এর ডিরেক্টর জেনারেল ঘেব্রেইউসুস জানিয়েছেন, এই ভ্যাকসিন সহজে মজুত করা যায় বলে তুলনায় দরিদ্র দেশেও তা ব্যবহারে সমস্যা নেই। ফাইজার-বায়োএনটেক, মডার্না, জনসন অ্যান্ড জনসন এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকার টিকাও জরুরি ভিত্তিতে প্রয়োগ করা যাবে বলে জানিয়েছে হু।
সিনোভ্যাকের দু’টি ডোজ নিলে টিকাকরণ সম্পন্ন হবে। প্রথমের পর দ্বিতীয় ডোজ নিতে হবে দু’ থেকে চার সপ্তাহের ব্যবধানে।
এ দিকে টিকাকরণে গতি আনতে ভারতের ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল (ডিসিজিআই) জানিয়েছে, কোনও দেশে ইতিমধ্যেই অনুমোদিত এবং হু-র সবুজ সঙ্কেত পেয়েছে, এমন ভ্যাসকিনকে আর আলাদা করে ট্রায়ালের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে না। সরাসরি প্রয়োগ ঘটানো হবে।
সরকারের কাছে স্থানীয় ট্রায়াল ও ক্ষতিপূরণে ছাড় দেওয়ার আবেদন জানিয়েছিল ফাইজার এবং মডার্না। ট্রায়ালে ছাড় দিলেও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ক্ষেত্রে ক্ষতিপূরণে ছাড়ের (ইনডেমনিটি) বিষয়ে এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি বলে খবর। তবে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের একটি সূত্রের খবর, এই ছাড় তাদের দেওয়া হবে। আমেরিকায় ফাইজারের এই ছাড় রয়েছে। অন্যান্য দেশেও তাদের ভ্যাকসিন ব্যবহারের প্রসঙ্গ তুলে ধরে ভারতের কাছে ছাড় চেয়েছে এই সংস্থা। জুলাই থেকে অক্টোবরের মধ্যে ফাইজার ভ্যাকসিনের ৫ কোটি ডোজ আসতে পারে ভারতে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top