তছনছ সংসার, এমনকী বিল গেটসের ইস্তফার পিছনেও রয়েছে মহিলা কর্মীর সঙ্গে সম্পর্ক

WhatsApp-Image-2021-05-17-at-11.58.34-AM.jpeg

Onlooker desk: দুই দশকেরও আগের একটি ঘটনায় সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের বিরুদ্ধে তদন্তে নেমেছিল মাইক্রোসফট। এ জন্য বাইরের একটি আইন সংস্থাকে নিয়োগ করা হয়েছিল। কিন্তু তদন্ত শেষ হওয়ার আগেই বিল গেটস বোর্ড সদস্য হিসাবে ইস্তফা দেন বলে সে ব্যাপারে কোনও সিদ্ধান্তে পৌঁছনো যায়নি। বিবৃতি জারি করে এ কথা জানিয়েছে মাইক্রোসফট।
কিন্তু ঘটনাটা কী, যা নিয়ে স্বয়ং বিল গেটসের বিরুদ্ধে শুরু হয়েছিল তদন্ত? ওই বিবৃতিতেই জানানো হয়, ২০১৯-এর শেষ ভাগে মাইক্রোসফট একটি অভিযোগে জানতে পারে, ২০০০ সালে সংস্থার এক কর্মীর সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক তৈরির চেষ্টা করেছিলেন গেটস। ওই মহিলা কর্মীর সঙ্গে গেটসের আচরণ যথাযথ ছিল না বলে তাঁর ঘনিষ্ঠ বৃত্তেরও অনেকে জানিয়েছিলেন। বোর্ড থেকে ইস্তফা দিতে এক রকম বাধ্য করা হয় গেটসকে। সম্প্রতি ২৭ বছরের বৈবাহিক জীবনে ইতি টানার কথা ঘোষণা করেছেন বিল ও তাঁর স্ত্রী মেলিন্ডা।
গত বছর মার্চে তিনি জানিয়েছিলেন, সেবামূলক কাজে আরও বেশি সময় দিতে বোর্ড থেকে অব্যাহতি নিচ্ছেন। সেই সময়ে মাইক্রোসফট জানিয়েছিল, ২০০৮ থেকেই দৈনন্দিন কাজে সে ভাবে জড়িত নেই গেটস। ১৯৭৫-এ মাইক্রোসফট প্রতিষ্টার পর ২০০০ পর্যন্ত তার সিইও হিসাবে কাজ করেছিলেন গেটস।
যদিও তাঁর এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, বোর্ড থেকে গেটসের ইস্তফা এবং ওই মহিলা কর্মীর সঙ্গে তাঁর সম্পর্কের মধ্যে যোগ নেই। মুখপাত্র জানান, প্রায় ২০ বছর আগে তৈরি হওয়া ওই সম্পর্কে দু’পক্ষের সম্মতিতেই দাঁড়ি পড়েছিল। তার সঙ্গে গেটসের বোর্ড-ছাড়ার সিদ্ধান্তকে যুক্ত করা একেবারেই ঠিক নয়।
তবে ডিভোর্সের প্রসঙ্গ সূত্রে বিল গেটসের বিরুদ্ধে অন্য একটি অভিযোগও উঠে এসেছে। সংবাদমাধ্যমের একাংশের দাবি, সাজাপ্রাপ্ত যৌন নিগ্রহকারী জেফ্রি এপস্টেইনের সঙ্গে বিলের যোগাযোগ নিয়ে ঘোরতর আপত্তি ছিল মেলিন্ডার। ২০১৯-এ নিউ ইয়র্ক টাইমসের প্রতিবেদনে জানানো হয়, এপস্টেইনের সঙ্গে বেশ ক’বার দেখা করেছেন বিল। এমনকী, সে জন্য তাঁর নিউ ইয়র্কের টাউন হাউজে রাতও কাটিয়েছেন। পরে জেলেই মৃত্যু হয় এপস্টেইনের।
বিলের ওই মুখপাত্র অবশ্য সব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তাঁর কথায়, ‘গেটস দম্পতির বিবাহবিচ্ছেদ ঘিরে অদ্ভুত সব কারণের কথা উঠে আসছে।’ তবে এপস্টেইনের বিষয়টি মাইক্রোসফটের তদন্তের আওতায় ছিল না। বোর্ড সদস্যদের কেউ কেউ অবশ্য বিষয়টি উত্থাপন করতে ছাড়েননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top