অর্থনীতিতে ভারত-পাকিস্তানকে পিছনে ফেলে ‘নতুন তারকা’ বাংলাদেশ

Bangladesh.jpeg

বাংলাদেশের অগ্রগতিতে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা বস্ত্র শিল্পের

Onlooker desk: অর্ধশতক আগে, ১৯৭১-এ বাংলাদেশের প্রতিষ্ঠাতারা তাঁদের তুলনায় ধনী ও শক্তিশালী পাকিস্তানের থেকে স্বাধীনতা ঘোষণা করেছিলেন। দুর্ভিক্ষ ও যুদ্ধের আঁতুড়ঘরে জন্ম নেয় দেশটা। লক্ষ লক্ষ মানুষ প্রাণ বাঁচাতে ভারতে আশ্রয় নেন। লক্ষ লক্ষ মানুষকে ঝাঁঝরা করে দেয় পাকিস্তানের গুলি। জর্জ হ্যারিসন আর রবি শঙ্কর সে দিন কোনওমতে এগোতে থাকা দেশটার পাশে দাঁড়িয়ে ইউনিসেফের ত্রাণের জন্য অর্থ সংগ্রহের লক্ষ্যে ফান্ড রেইজার অনুষ্ঠান করেছিলেন।
অর্ধশতক পরে সেই বাংলাদেশই অর্থনীতির নিরিখে পাকিস্তান ও ভারতের তুলনায় কয়েক গোলে এগিয়ে গেল। মে মাসে বাংলাদেশের ক্যাবিনেট সচিব জানিয়েছেন, মাথাপিছু জিডিপি গত এক বছরে ৯ শতাংশ বেড়েছে। বর্তমানে বাংলাদেশের মাথাপিছু বার্ষিক আয় ২ হাজার ২২৭ ডলার (ভারতীয় টাকায় ১ লক্ষ ৬২ হাজার)। পাকিস্তানের মাথাপিছু আয় বর্তমানে ১৫৪৩ ডলার (ভারতীয় টাকায় ১ লক্ষ ১২ হাজার)। ভারতের ১৯৪৭ ডলার (ভারতীয় টাকায় ১ লক্ষ ৪২ হাজার)। বাংলাদেশ এখন পাকিস্তানের তুলনায় ৪৫ শতাংশ বেশি বিত্তশালী। আর যে ভারত দক্ষিণ এশিয় দেশগুলির মধ্যে নিজের ‘স্টারডম’ একদম পাকা ভেবে শান্তিতে ছিল, প্রতিবেশী ছোট্ট দেশের কাছে পিছিয়ে পড়েও সে সাফল্য মানতে তারা নারাজ।
বাংলাদেশের উন্নয়নের পিছনে তিনটি কারণ দেখছেন বিশেষজ্ঞরা — রপ্তানি, সামাজিক অগ্রগতি ও যথাযথ আর্থিক নীতি। ২০১১ থেকে ২০১৯-এর মধ্যে যখন গোটা বিশ্বের রপ্তানি ০.৪ শতাংশ হারে বেড়েছিল, তখন বাংলাদেশের রপ্তানি বৃদ্ধি হয় ৮.৬ শতাংশ হারে। তা ছাড়া, ভারত বা পাকিস্তানে যেখানে শ্রমিক সংখ্যায় মহিলাদের অংশীদারি ক্রমশ কমছে, বাংলাদেশে তা ক্রমবর্ধমান। যার প্রভাব উৎপাদনেও পড়ছে বলে মনে করা হচ্ছে। এ বাদে অর্থনৈতিক সংযমের পথ ধরায় বাংলাদেশের ঋণ ও আয়ের অনুপাত ভারত বা পাকিস্তানের তুলনায় অনেক ভালো। দেশের বেসরকারি সংস্থাও লগ্নিতে অনেক বেশি উৎসাহী।
তবে সমস্যা হলো, অনুন্নত অর্থনীতি হিসাবে বাণিজ্যে যে সব সুবিধা তারা এতদিন পেয়ে এসেছে, এই উন্নয়নের ফলে তা বন্ধ হতে পারে। কাজেই সেই সমস্যার সম্মুখীন হতে গেলে মুক্ত বাণিজ্যের যে নীতি প্রয়োজন, সে পথ ধরতেই হবে বাংলাদেশকে। সূত্রের খবর, এ সংক্রান্ত প্রস্তুতিও শুরু হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top