কোভিড ভাইরাসের উৎস জানাতে গোয়েন্দাদের ৯০ দিন সময় বাইডেনের

images-01.jpeg
Onlooker desk: কোভিড-১৯ ভাইরাসের উৎস কোথায়, সেটা ৯০ দিনের মধ্যে তাঁকে জানানোর জন্য দেশের গোয়েন্দাদের নির্দেশ দিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।
হোয়াইট হাউজের জারি করা বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, ভাইরাসের উৎস জানতে মার্চেই গোয়েন্দাদের কাছে রিপোর্ট চেয়েছিল মার্কিন প্রশাসন। সংক্রামিত প্রাণীর থেকে মানব শরীরে ভাইরাসটি এসেছিল, নাকি কোনও গবেষণাগার থেকে দুর্ঘটনাবশত ছড়িয়ে পড়ে, সেটাই দেখা হচ্ছে।
মার্কিন প্রেসিডেন্টের বক্তব্য, গোয়েন্দাদের বিশ্লেষণের দু’টি এলিমেন্ট প্রথম কারণের দিকে ইঙ্গিত করছে। আর একটি বিষয় ইঙ্গিত করছে দ্বিতীয় অর্থাৎ গবেষণাগার-তত্ত্বের দিকে। কিন্তু কোনও এলিমেন্টই এতটা জোরালো নয় যে দুইয়ের মধ্যে কোনও একটি তত্ত্বকে প্রতিষ্ঠা দেবে। তাই আরও তদন্তের প্রয়োজন রয়েছে। সে কারণে ৯০ দিনের মধ্যে বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত ভাবে রিপোর্ট চেয়েছেন বাইডেন। এ ক্ষেত্রে চিনকে যাবতীয় ভাবে সহযোগিতার জন্য ‘চাপ’ দেওয়ার কথা বলেছেন প্রেসিডেন্ট। চিন যাতে সম্পূর্ণ, স্বচ্ছ, তদন্তে সাহায্য করে এবং এ জন্য প্রয়োজনীয় সমস্ত তথ্যপ্রমাণ দেয়, তা-ও দেখতে হবে। প্রসঙ্গত, অতীতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) তদন্তে চিন অপরিশোধিত তথ্য দিতে চায়নি বলে একটি সূত্রের অভিযোগ।
বুধবার মার্কিন প্রেসিডেন্টের ওই নির্দেশের পর স্বাভাবিক ভাবেই কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে আমেরিকায় চিনা দূতাবাস। বৃহস্পতিবার বিবৃতি জারি করে কারও নাম না করে ‘ল্যাব লিক’ তত্ত্ব নিয়ে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ জানিয়েছে তারা। এর ফলে বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে উৎস সন্ধানের পরিবর্তে ‘রাজনৈতিক ভাইরাস’ ছড়াবে এবং আন্তর্জাতিক স্তরে মহামারী নিয়ন্ত্রণ বিঘ্নিত হবে বলে বক্তব্য চিনের।
করোনার উৎস নিয়ে চিনের উহানের গবেষণাগার ঘিরে রহস্য গোড়া থেকেই। ডোনাল্ড ট্রাম্পও সে কথা বলেছেন। সাম্প্রতিক কয়েকটি সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, উহানের গবেষণাগার থেকে অসাবধানতা বশত ভাইরাস লিক হয়ে থাকতে পারে। তা ছাড়া ২০১৯-এর নভেম্বরে ওই গবেষণাগারের তিন গবেষক অসুস্থ হয়ে পড়া নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। যদিও বেশির ভাগ বিশেষজ্ঞই মনে করেন, উহানের একটি বন্যপ্রাণ বাজারই করোনার উৎস।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top