অধরা স্বপ্ন পূরণ করল আমার ছেলে: টুইটে নীরজকে শুভেচ্ছা পি টি উষার

P-T-Usha-Neeraj-Chopra.jpg

Onlooker desk: দেশের হয়ে অলিম্পিক্সে ইতিহাস গড়ার দিনে নীরজ চোপড়াকে (Neeraj Chopra) কোটি কোটি মানুষ অভিনন্দন জানিয়েছেন। কিন্তু তার মধ্যেও একটা বার্তা বোধহয় বাকি সকলের চেয়ে আলাদা। সেই বার্তা এসেছে পিটি উষার (P T Usha) কাছ থেকে। ১৯৮৪ সালে যিনি এক চুলের জন্য অলিম্পিক্সের পোডিয়াম মিস করেন।
নীরজকে (Neeraj Chopra) নিজের ছেলে বলে ডাকেন উষা। শনিবার সেই ‘ছেলের’ ইতিহাস গড়ার দিনেও বদলায়নি সম্বোধন। টুইটে উষা লেখেন — ৩৭ বছর পরে আজ আমার অধরা স্বপ্ন পূরণ করলাম। আমার ছেলে নীরজ চোপড়াকে ধন্যবাদ। এর সঙ্গে নিজের ও নীরজের (Neeraj Chopra) একটি ছবিও টুইট করেন এই কিংবদন্তি অ্যাথলিট।
সেটা ১৯৮৪। লস অ্যাঞ্জেলেস অলিম্পিক্সের ট্র্যাকে ‘পায়োলি এক্সপ্রেস’। দুরন্ত গতির জন্য এই নামেই ডাকা হত উষাকে (P T Usha)। ৪০০ মিটার হার্ডলসে পদক প্রায় ছুঁয়ে ফেলেছিলেন ভারতীয় কন্যা। তার আগে দিল্লিতে ১৯৮২-র এশিয়ান গেমসে ১০০ মিটার ও ২০০ মিটার স্প্রিন্টে রুপো জিতে দেশবাসীর আশা অনেকখানি বাড়িয়ে দিয়েছিলেন উষা। পরের বছর, ১৯৮৩-তে এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে ৪০০ মিটারে সোনা জিতে রেকর্ড গড়েন।
এর পরে ৪০০ মিটার হার্ডলসে মনোনিবেশ করেন পিটি উষা (P T Usha)। ১৯৮৪-র সেমি ফাইনালে ‘ফেভারিট’ মার্কিন অ্যাথলিট জুডি ব্রাউনকে পরাস্ত করে ফাইনালে পৌঁছন তিনি। প্রত্যাশা আরও বাড়ে।
অস্ট্রেলিয়ার ডেবি ফ্লিন্টফের অনিচ্ছাকৃত ভুলে ফাইনালে ৪০০ মিটার হার্ডলস নতুন করে শুরু করতে হয়। শুরুটা ধীরে করলেও কিছুক্ষণের মধ্যেই গতি বাড়ান উষা। দৌড়ের শেষটা হয় ছবির মতো। রোমানিয়ার ক্রিস্টিয়ানা সোজোকারু পি টি উষাকে (P T Usha) লহমার ফারাকে পিছনে ফেলে দেন। অলিম্পিক্সের ওয়েবসাইটে যা ‘নির্ণায়ক হেড ডিপ’ হিসাবে আজও থেকে গিয়েছে।
তার পরে এশিয়ান গেমস এবং এশিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপে বহু সোনা জিতেছেন পি টি উষা। কিন্তু অলিম্পিক্স থেকে গিয়েছে অধরা। পদ্মশ্রীতে সম্মানিত উষা এখন কেরালায় একটি অ্যাথলেটিক্সের অ্যাকাডেমি চালান। এক চুলের জন্য অলিম্পিক্স অধরা থাকলেও তিনি অবশ্য পরবর্তী বহু প্রজন্মের কাছে আইডল। অনুপ্রেরণা জুগিয়েছেন বহু বহু তরুণ অ্যাথলিটকে।
এবং উষা যে কত বড় মাপের ক্রীড়াবিদ, সেটা তাঁর এ দিনের টুইটে আরও একবার প্রমাণিত বলে মনে করছেন অনেকে।
দিনতিনেক আগে একটি টুইটে তিনি লিখেছিলেন — ৩৭ বছর আগে, ১৯৮৪-তে আমি ১/১০০ সেকেন্ডের জন্য পোডিয়াম মিস করি। আমার সেই অধরা স্বপ্ন আমার ছেলে এবং ভারতের গর্ব নীরজ চোপড়া (Neeraj Chopra) পূরণ করতে পারে। সে টোকিও অলিম্পিক্সের ফাইনালে উঠেছে। আমার আশীর্বাদ ও শুভেচ্ছা ওর সঙ্গে থাকল।
শনিবার বর্শা নিক্ষেপে ‘মা’য়ের সেই স্বপ্ন সত্যিই পূরণ করলেন নীরজ।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top