উইম্বলডন জিতে রেকর্ড গড়ে রাফা-রজারের পাশে নাম তুললেন জোকার

IMG-20210712-WA0000.jpg

Onlooker desk: উইম্বলডনে পুরুষদের ফাইনাল জিতে রেকর্ড গড়লেন নোভাক জকোভিচ। এই নিয়ে ২০টি গ্র্যান্ড স্লাম জিতলেন তিনি। যে রেকর্ড রয়েছে কেবল রজার ফেডেরার এবং রাফায়েল নাদালের। পাশাপাশি, জকোভিড ঝুলিতে পুরলেন নিজের ষষ্ঠ উইম্বলডন ট্রফিটিও।
রবিবার ইটালির মাত্তেও বেরেত্তিনিকে চার সেটে হারিয়েছেন জোকার। বিশ্বের এক নম্বর টেনিস তারকা ৬-৭ (৪/৭), ৬-৪, ৬-৪, ৬-৩ এ হারান বেরেত্তিনিকে। এই নিয়ে এ দিন তিনি ৩০তম গ্র্যান্ড স্লাম ফাইনাল খেলেন। এর মধ্যে উইম্বলডন বাদে রয়েছ ন’টি অস্ট্রেলিয়ান ওপেন, দু’টি ফ্রেঞ্চ ওপেন এবং তিনটি ইউএস ওপেন।
আগামী সেপ্টেম্বরে নিউ ইয়র্কে ইউএস ওপেন জিতলে এক বছরে সবক’টি গ্র্যান্ড স্লাম জয়ীর তালিকাতেও নাম তুলে ফেলবেন জকোভিচ। এর আগে এই রেকর্ড গড়েছেন কেবল ডন বাজ (১৯৩৮) এবং রড লেভারের (১৯৬২ এবং ১৯৬৯)।
জয়ের পর প্রতিপক্ষ বেরেত্তিনি সম্পর্কে ভূয়সী প্রশংসা করেন জোকার। তাঁর কথায়, ‘আজকের ম্যাচ যুদ্ধের চেয়েও বেশি কিছু ছিল। বেরেত্তিনির খেলা যেন গায়ে হাতুড়ির মতো ঘা মারছিল।’ সেই সঙ্গে, এ দিন যে দুই তারকার সঙ্গে রেকর্ড ভাগ করে নিলেন, তাঁদের প্রসঙ্গও উল্লেখ করেন জোকার। তিনি বলেন, ‘এর মানে আমাদের তিন জনের কেউই থামব না। রজার ও রাফা কিংবদন্তি। আমি আজ যা, সেটা ওঁদেরই জন্য।’
তবে জকোভিচের রেকর্ডের তালিকা আরও লম্বা। তাঁর মুকুটে ৮৫টি কেরিয়ার টাইটেলের পালক। এবং তিনিই প্রথম ১৫০ মিলিয়ন ডলার প্রাইজ মানির সীমা টপকালেন। টোকিও অলিম্পিক্সে স্বর্ণপদক পেলে তিনিই প্রথম পুরুষ হিসাবে তা জিতবেন।
তবে এ দিনের খেলা একপেশে ছিল না। প্রথম দিকে জকোভিচের দাপটে কিছুটা বেসামাল হয়ে পড়েন বেরেত্তিনি। কিন্তু পরে ঘুরে দাঁড়িয়ে ম্যাচ নিজের দিকে ঘোরানোর চেষ্টায় কসুর করেননি ইটালির এই খেলোয়াড়। তবে এক নম্বর তারকা দ্বিতীয় সেটে ডবল ব্রেকে ৫-১ এ লিড করেন। বেরেত্তিনি তিনটি সেট পয়েন্ট বাঁচিয়ে ৪-৫ এ ঘুরে দাঁড়ান। কিন্তু জোকারের সার্ভিসের সামনে দাঁড়াতে পারেননি।
বেরেত্তিনি এ দিন জিতলে তিনিই হতেন উইম্বলডনের প্রথম পুরুষ সিঙ্গলস চ্যাম্পিয়ন। পঞ্চম সেটের অষ্টম গেমে দু’টি চ্যাম্পিয়নশিপ পয়েন্ট বাঁচিয়েও নেন তিনি। কিন্তু তৃতীয় পয়েন্টটা আর বাঁচাতে পারেননি। জোকার তা জিতে ইতিহাসের পাতায় নাম তুলে ফেলেন।
ম্যাচের পর বেরেত্তিনি বলেন, ‘নোভাক অত্যন্ত বড় মাপের চ্যাম্পিয়ন। এই কোর্টে তিনি নতুন ইতিহাস রচনা করলেন। তবে আমার জন্য এটা শেষ নয়। এই শুরু। আমার পরিবার, বন্ধুবান্ধব ও দল ছাড়া এই জায়গায় আসতে পারতাম না।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top