শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজ জয় কোহলি-হীন ভারতের যাদব-চাহারদের

Polish_20210721_022247385.jpg

Onlooker desk: সূর্যকুমার যাদব যখন ৫৩ রানে আউট হয়ে গেলেন, জয়ের জন্য ভারতের তখনও ১১৫ রান দরকার। হাতে চারটি উইকেট। শ্রীলঙ্কার খেলোয়াড়রা নিশ্চয়ই ভাবতে শুরু করেছিলেন, খরা হয়তো কাটল এ বার। ঘরের মাঠে গত ৯ বছরে ভারতকে হারাতে পারেনি শ্রীলঙ্কা।
কিন্তু হল না। সে খরা কাটল না মঙ্গলবারও। টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা একের পর এক ধরাশায়ী হলেও হাল ধরলেন লোয়ার অর্ডারের খেলোয়াড়রা। ৮ নম্বরে নেমে বোলিং অল-রাউন্ডার দীপক চাহার ক্রিজে থেকে ৬৯ করলেন। তার আগে অবশ্য ক্ষেত্র অনেকখানি তৈরি করে দিয়ে গিয়েছেন সূর্যকুমার। বলা যায়, ঊষর মাটিকে কৃষিযোগ্য করে দিয়েছেন তিনিই। দীপকের ধুন্ধুমার ব্যাটিংয়ে ভারতের জয়ের সময় ক্রিজের অপর প্রান্তে তাঁর সঙ্গী ভুবনেশ্বর কুমার (১৯*)। পার্টনারশিপে তাঁদের অপরাজেয় ৮৪-র হাত ধরে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে ওয়ান ডে সিরিজ জিতল কোহলি-হীন ভারত।
তিন ম্যাচের সিরিজে ভারত ২, শ্রীলঙ্কা ০।
প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শ্রীলঙ্কা ৯ উইকেটে ২৭৫ রান করে। ২৭৬-এর লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ভারতের শুরুটায় তেমন চমক ছিল না। পৃথ্বী সাউ এবং অধিনায়ক শিখর ধাওয়ান, দু’জনেই বেশ চোখ ধাঁধানো ব্যাটিং করছিলেন যদিও। কাট-পুলে বাউন্ডারিও আসছিল। তখনই শ্রীলঙ্কার সুচারু পরিকল্পনা সামনে আসে। পৃথ্বীকে ঠেকাতে আগেভাগেই স্পিনার নামিয়ে দেয় শ্রীলঙ্কান থিঙ্ক-ট্যাঙ্ক। এবং তাদের ছক সফলও হয়।
ওয়ানিন্দু হসরঙ্গার গুগলিতে আউট হয়ে যান পৃথ্বী। সেই থেকে পরের দীর্ঘ সময় ভারতের জন্য মোটেই স্বস্তির ছিল না। প্রথম ম্যাচে হাফ সেঞ্চুরি হাঁকালেও দ্বিতীয় ম্যাচে ঈশান কিষান পুরোপুরি ব্যর্থ। সময়ের হিসাবে ভুল করায় কাট করতে গিয়ে বোল্ড আউট হয়ে যান তিনি। মাত্র ১ রান করে। ধাওয়ানকে ২৯ রানে আউট করেন হসরঙ্গা। দ্বাদশ ওভারে ক্যাপ্টেন এলবিডব্লিউ হওয়ায় ভারতের অবস্থা তখন বেশ টালমাটাল। এরপরে যখন ৩৭ রানে মণীশ পাণ্ডে রান আউট হয়ে যান, তখন আশা কার্যত নিভু নিভু।
অষ্টাদশ ওভারে আউট হয়ে ফিরে যান হার্দিক পান্ডিয়া। ভারতের স্কোর তখন ১১৬/৫। কিন্তু দ্বিতীয় ওয়ান ডে-তে কামাল করেন সূর্যকুমার যাদব। এক দশক ধরে মুম্বইয়ের হয়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলেছেন তিনি। কিন্তু আজকের খেলা বোঝাল, টি-২০র টেকনিক বাদেও লম্বা ইনিংসের জন্য তৈরি তাঁর ব্যাট।
আন্তর্জাতিক মঞ্চের সাফল্যে এ দিন যেন এক টগবগে ঘোড়া সূর্যকুমার। ধৈর্য ধরে কঠিন বল মোকাবিলা করা থেকে স্পিনারদের সুইপ। উইকেট কিপারের মাথার উপর দিয়ে বল ওড়ানো, কাট বা সিঙ্গল। যে ভাবেই হোক ক্রিজ আঁকড়ে স্কোর বোর্ড সচল রেখে গিয়েছেন তিনি। তাঁর হাফ সেঞ্চুরি শ্রীলঙ্কার পালের হাওয়া ঘুরিয়ে দেয়। পরে চাহারের ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে ৭ উইকেটে ২৭৭-এ ইনিংস শেষ করে ভারত। সিরিজও জিতে নেয় তারা।
এ দিনের খেলায় ভারতীয় বোলারদের মধ্যে যুজবেন্দ্র চাহাল (৫০ রানে ৩ উইকেট) নজর কেড়েছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top