করোনামুক্তির সাত সপ্তাহের মধ্যে এভারেস্টে সফল অভিযান আইআইটি-র প্রাক্তনীর

IIT-Delhi-alumni-Neeraj-Chaudhary-summits-Everest.jpg

Onlooker desk: কাঠমান্ডু থেকে এভারেস্টের উদ্দেশে রওনার দিনই কোভিড ধরা পড়ে নীরজ চৌধুরির। কিন্তু তাতে লক্ষ্য থেকে বিচলিত হননি দিল্লি আইআইটি-র এই প্রাক্তনী। কোভিড থেকে সেরে ওঠার সাত সপ্তাহের মধ্যে বেস ক্যাম্পে ফেরেন নীরজ। এবং সফল অভিযান চালিয়ে এভারেস্টের মাথায় তেরঙার পাশাপাশি উড়িয়ে দেন তাঁর প্রতিষ্ঠানের পতাকা।
দিল্লি আইআইটি থেকে এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সেস অ্যান্ড ম্যানেজমেন্টে ২০০৯-১১ শিক্ষাবর্ষে এম টেক করেন নীরজ। বর্তমানে তিনি রাজস্থান সরকারের জলসম্পদ দপ্তরে কর্মরত। ২০১৪-য় মাউন্টেনিয়ারিংয়ের যাত্রা শুরু। ২০২০-তে কেন্দ্রীয় যুবকল্যাণ ও ক্রীড়া মন্ত্রক ইন্ডিয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ফাউন্ডেশন এভারেস্ট এক্সপিডিশনের সদস্য হিসাবে নির্বাচিত হন তিনি। তবে করোনার কারণে অভিযান পিছোতে হয়।
এ বছর অতিমারী সত্ত্বেও দলের সঙ্গে কাঠমান্ডু পৌঁছন নীরজ। সংবাদমাধ্যমে তিনি বলেন, ‘কিন্তু অভিযান শুরুর মুখেই বাধা। আমার করোনা ধরা পড়ে গেল। ব্যস। জয়পুরে বাড়িতে ফিরতে যেতে হল। তবে খুব বাড়াবাড়ি কিছু হয়নি। ক’দিন শুধু খুব ক্লান্ত লেগেছে।’
যুবকের কথায়, ‘সেই সময়েও ঠিক কোভিড নিয়ে ভাবছিলাম না। অভিযানটার জন্য কত প্রস্তুতি নিয়েছি এবং এটাই আমার একমাত্র সুযোগ, এ সব কথাই ঘুরছিল মাথার মধ্যে। এই যে সামনে আর দ্বিতীয় সুযোগ নেই, এই ভাবনাটাই আমাকে মনের জোরে এগিয়ে যেতে সাহায্য করেছে।’
গত ২৭ মার্চ কোভিড ধরা পড়ে নীরজের। এবং এপ্রিলে কাঠমান্ডু ফিরে আসেন তিনি। ৩১ মে এভারেস্ট অভিযানে সফল হন দিল্লি আইআইটি-র এই প্রাক্তনী। কোভিড থেকে সেরে উঠে কাঠমান্ডু ফেরার পরেও ভারতের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ পিছু ছাড়েনি তাঁর। অন্যদিকে, তাঁর পরিবার আবার সাইক্লোনের পূর্বাভাসের জেরে দিন কাটাচ্ছিল অনিশ্চয়তায়।
সংবাদমাধ্যমে নীরজ বলেন, ‘মানসিক ভাবে সময়টা সহজ ছিল না। পর্বতারোহণ তো কেবল একটা শারীরিক প্রয়াস নয়। কাছাকাছি পৌঁছনোর পরেও ৩৬ ঘণ্টায় তিন বারের চেষ্টায় অবশেষে শৃঙ্গে পৌঁছতে পারি ৩১ মে। এবং তখনকার সেই অনুভূতির সঙ্গে কোনও কিছুর তুলনা হয় না।
তাঁর এই সাফল্যের পিছনে আলমা মাতর আইআইটি-দিল্লির যথেষ্ট ভূমিকা রয়েছে। তাঁর ভবিষ্যতের পথ প্রদর্শক তো তারা বটেই। পাশাপাশি এই অভিযানের জন্য ২৪ লক্ষ টাকা অর্থ সংগ্রহে সহযোগিতা করেছে আইআইটির প্রাক্তনী সংসদ। সে কারণে প্রতিষ্ঠানের একটি পতাকাও সঙ্গে নিয়ে গিয়েছিলেন নীরজ। গত শুক্রবার নীরজের সাফল্য উদযাপন করেছে আইআইটি-দিল্লিও।
প্রতিষ্ঠানের অধিকর্তা ভি রামগোপাল রাও বলেন, ‘গত ৩১ মে আমাদের এক প্রাক্তনী নীরজ চৌধুরি এভারেস্টে সফল অভি়ান চালিয়েছেন। এ অত্যন্ত গর্বের একট ঘটনা। সে দিল্লি-আইআইটির পতাকা নিয়ে গিয়েছিল। এভারেস্টে তা উড়িয়ে এসেছে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top