চিকিৎসকের ভিডিয়ো কলে গানের কলিতে শেষ বিদায় মাকে

35ACCE45-3EF5-42FD-A56A-242BF7308217.jpeg

Onlooker desk: মায়ের মৃত্যু এক রকম নিশ্চিত। অনতিক্রম্য দূরত্ব পার করার চেষ্টাও বৃথা। জীবিতঅবস্থাতেও শেষ বারের মতো একবার গর্ভধারিণীকে ছুঁয়ে দেখার সুযোগ নেই। কোভিডে আক্রান্ত, শয্যাশায়ী সেই মায়ের জন্য ছেলে গাইলেনতেরা মুঝসে হ্যায় পেহলে কা নাতা কোই। জনপ্রিয় হিন্দিগানে মাপোয়ের চিরন্তন আলাপ জমানোর শেষ চেষ্টা হয়তো!

কলকাতার ঘটনাটা টুইটারে লিখেছেন চিকিৎসক দীপশিখা ঘোষ। কোভিডে আক্রান্ত সঙ্ঘমিত্রাচট্টোপাধ্যায়ের চিকিৎসা করছিলেন তিনি। রোগিণীর অবস্থা ভালো নয় বুঝে তাঁর আত্মীয়দের ভিডিয়োকল করেছিলেন চিকিৎসক। পরিস্থিতি আঁচ করে কয়েক মিনিট বাড়তি সময় চেয়েছিলেন সঙ্ঘমিত্রারছেলে সোহম। তখনই ওই গানটি গেয়ে ওঠেন তিনি।

দীপশিখা লিখেছেন, মর্মান্তিক দৃশ্যটি দেখে এগিয়ে আসেন হাসপাতালের নার্সরাও। স্তব্ধ হয়ে দাঁড়িয়েথাকেন সকলে। এক সময়ে কেঁদে ফেলেন সোহম। কিন্তু গানটি শেষ করেন। ততক্ষণে ওয়ার্ডের প্রায়সকলেই কাঁদতে শুরু করেছেন। এরপর চিকিৎসকদের থেকে মায়ের প্রেশার, অক্সিজেনের মাত্র ইত্যাদিভাইটাল জেনে নিয়ে লাইনটি কেটে দেন ছেলে। চিকিৎসক টুইটে লেখেনএই গানটা আমাদের জন্য, আমার জন্য তো বটেই, চিরতরে বদলে গেল। এই গানটা সব সময়ের জন্য ওই পরিবারটিরই হয়েথাকবে।

টুইটটি ভাইরাল হয়ে পড়ে। মাকে সন্তানের এই শেষ বিদায় জানানোর এই ঘটনা ছুঁয়ে যায় বহুনেটিজেনকে। কেউ কেউ আবার চিকিৎসক ঘোষকে জন্য অভিনন্দন জানান। তাতে দীপশিখা বলেন, ‘আমি কিছুই করিনি। কারও সঙ্গে এটা হওয়া উচিত নয়।ক্রিটিক্যাল কেয়ার মেডিসিনের ডাক্তারদীপশিখা জানিয়েছেন, সকলের কাছে তাঁর আর্জি, এই করোনাকালে সতর্ক থাকুন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top