থানার বটবৃক্ষে জড়ো হওয়া পাখির দলের বাসার ব্যবস্থা করলেন উর্দিধারীরা

Policemen-arrange-for-bird-nests.jpg

গাছে নিরাপদে পাখিদের থাকার ব্যবস্থা করছেন পুলিশ আধিকারিকরা

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান
পাখিদের কিচির-মিচির ডাকে খুশি হয়ে তাদের জন্য বাসার ব্যবস্থা করল পুলিশ।
পূর্ব বর্ধমানের নাদনঘাট থানা এলাকার একটি প্রকাণ্ড বটগাছের ডালে ডালে উর্দিধারীরা শনিবার ঝুলিয়ে দিলেন অসংখ্য ঝুড়ি। যাতে পাখিদের বাসা তৈরিতে  সুবিধা হয়। পুলিশের এ হেন ‘পাখি-প্রেম’ এলাকার মানুষের মন জয় করেছে।
নাদনঘাট থানার পুলিশকর্মীরাও চাইছেন, তাঁদের থানা চত্বরে থাকা বটবৃক্ষ হয়ে উঠুক পাখিদের নিরাপদ আশ্রয়। আর তাদের কিচির-মিচিরে ভরে থাক থানার আশপাশ।
নাদনঘাট থানার অদূরেই রয়েছে পূর্বস্থলীর ‘চুপির পাখিরালয়’ । প্রতি বছর শীতে দেশ-বিদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে উড়ে এসে ওই পাখিরালয়ে ভিড় জমায় প্রায় ৬০-৭০ প্রজাতির পাখি । বহু পর্যটক পাখির টানে হাজির হন চুপিতে। পাখির জলও নিরাশ করে না তাঁদের।
কিন্তু এখন তো শীত নয়। তবু এই এই সময়েই অদ্ভুত ভাবে দলে দলে পাখি আশ্রয় নিয়েছে নাদনঘাট থানা চত্বরে থাকা প্রকাণ্ড ওই বটবৃক্ষেটি। আর তাতেই খুশিতে মাতোয়ারা থানার বড়বাবু থেকে শুরু করে পুলিশকর্মীরা। খুশি এলাকাবাসীও ।
নাদনঘাট থানার পুলিশকর্মীরা জানাচ্ছেন, খুব বেশিদিন আগের কথা নয়। কিছুদিন হল তাঁদের থানা চত্বরে থাকা প্রকাণ্ড ওই গাছে আনাগোনা শুরু হয়েছে নানা ধরনের পাখির। দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বটগাছটিতে পাখিদের ভিড়
আরও বাড়তে শুরু করে। এক এক পাখির এক এক রকম ডাক মন ভরিয়ে দেয় থানার পুলিশকর্মীদের।
পুলিশকর্মীরাও তাই পাখিদের জন্য কিছু একটা করার কথা স্থির করেন। কারণ পুলিশকর্মীদের কেউই চাইছিলেন না, থানা চত্বরের বটগাছ ছেড়ে পাখিরা অন্য কোথাও চলে যাক।
ওসি সুদীপ্ত মুখোপাধ্যায় তাই নিজেই উদ্যোগী হয়ে শনিবার পাখিদের বাসস্থান গড়ার ব্যবস্থা করেন। পাখির দলের যাতে সমস্যা না-হয়, সেই লক্ষ্যে বটগাছটির ডালে ডালে ঝুড়ি ঝুলিয়ে দেওয়ার বন্দোবস্ত করা হয়। পাখিদের পিপাসা মেটানোর জন্যে বটগাছের কাছে মাটির পাত্রে জল রাখার ব্যবস্থাও করে দেওয়া হয়েছে ।
ওসি সুদীপ্ত মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘কিছুদিন ধরে বিভিন্ন রঙের পাখি বটগাছটিতে উড়ে এসে বসতে শুরু করে। ধীরে ধীরে তাদের আনঅগোনা বাড়ে। তা দেখে থানার সকলেই খুশি হন।’ তাঁদের মনে হয়, নিরাপদ ও সহায়ক পরিবেশ পেলে থানা চত্বরের ওই বটবৃক্ষে আরও অনেক পাখি জড়ো হবে। এতে পুলিশকর্মীদের পাশাপাশি খুশি হবেন এলাকাবাসীও। এমন প্রত্যাশা নিয়েই এদিন গাছের ডালে ডালে পাখিদের বাসা তৈরির সুবিধার্থে ঝুড়ি ঝোলানো হয়েছে বলে সুদীপ্ত জানান।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top