সানি লিওনি, মিয়াঁ খলিফার নামে ডিশ দিল্লির রেস্তোরাঁয়, বিতর্ক টুইটারে

Mia-Khalifa-and-Sunny-Leone.jpg

Onlooker desk: নানা ভাষা, নানা মত তো বটেই, নানা খাদ্য, নানা রেসিপিরও দেশ আমাদের। ভারতের নানা প্রান্তের খাওয়াদাওয়া নিয়ে বিভিন্ন সময়ে আলোচনা, এমনকী গবেষণাও হয়েছে।
এ বার দিল্লির একটি রেস্তোরাঁর কিছু ডিশের নাম ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে। বড় কোনও দোকান নয়। একেবারেই স্থানীয় ওই রেস্তোরাঁয় খাবারের নাম রাখা হয়েছে সানি লিওনি, মিয়াঁ খলিফাদের নামে।
রেস্তোরাঁর নাম বীর জি মালাই চাপ ওয়ালে। বোঝাই যাচ্ছে, রেস্তোরাঁটি মূলত চাপ তৈরি করে। সেখানেই দু’টি ডিশের নাম সানি লিওনি চাপ ও মিয়াঁ খলিফা চাপ। আরও আছে। রাগিনি এমএমএস ২ থেকে সানি লিওনির বিখ্যাত গানের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আছে ‘বেবি ডল চাপ’ও।
নাম-প্রসঙ্গ প্রথম সামনে আসে এক ব্যক্তির টুইট ঘিরে। তিনি হলেন, পেটিএমের প্রতিষ্ঠাতা তথা চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার বিজয় শেখর শর্মা। ওই রেস্তোরাঁর একটি ছবি টুইটারে পোস্ট করেন তিনি। সেখানে রেস্তোরাঁর পাশেই ডিসপ্লে বোর্ডে সানি লিওনি, মিয়াঁ খলিফাদের নামে ডিশের নাম জ্বলজ্বল করছে। সঙ্গে বিজয় লেখেন — সিরিয়াসলি!
ব্যস! আলোচনা, পাল্টা আলোচনা শুরু হতে সময় লাগেনি। কেউ কেউ ওই রেস্তোরাঁর খাবারের মান নিয়ে কথা বলেন। কেউ আবার মহিলাদের নামে খাবারের নাম রাখায় আপত্তি জানান। একজন যেমন, ওই ছবি শেয়ার করে লিখেছেন — ডিসগাস্টিং। আবার, অনেকের মতে, এই নামগুলি পছন্দ করায় আদতে ব্যাড মার্কেটিং-ই হবে।
এক টুইটার ব্যবহারকারী আবার সব ছেড়ে নজর দিয়েছেন জোম্যাটোর এক ডেলিভারি বয়ের টি-শার্টে। তিনি লেখেন — কোনটা বেশি বিরক্তিকর কে জানে। চাপের নামগুলো? নাকি জোম্যাটোর এই টি-শার্ট পরানো। যেখানে লেখা ‘জোম্যাটোর সঙ্গে ডাল মাখনি খেতে বেশি ভালো’! একজন লিখেছেন — আমি মাঝেমাঝেই এখান থেকে খাবার আনাই। অসাধারণ নিরামিষ খাবার পাওয়া যায়।
তবে সেলিব্রিটিদের নামে খাবারের নাম রাখার ঘটনা এ-ই প্রথম নয়। যেমন, মল্লিকা শেরাওয়াত হলেন প্রথম ভারতীয় অভিনেত্রী যাঁর নামে একটা মিল্কশেক রয়েছে। কিম কারদাশিয়ান, ডেভিড বেকহ্যাম, প্যারিস হিলটনরাও আছেন এই তালিকায়।
এমনকী, বাদ যাচ্ছেন না দীপিকা পাড়ুকোন। টেক্সাসের অস্টিনে একটি রেস্তোরাঁয় ধোসা পাওয়া যায় তাঁর নামে। রয়েছেন তেলুগু অভিনেতা-রাজনীতিক চিরঞ্জীবী। হায়দরাবাদে একটি দোকানে তাঁর নামেও মেলে এক ধরনের ধোসা। তা হলে আর সানি লিওনি, মিয়াঁ খলিফা কী দোষ করলেন!

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top