বেরোল উচ্চ মাধ্যমিকের ফল, ৪৯৯ পেয়ে প্রথম স্থানে মুর্শিদাবাদের ছাত্রী

Higher-Secondary-result-2021.jpg

প্রতীকী চিত্র

কলকাতা: প্রকাশিত হল এ বারের উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ফল। বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়নে ৫০০-র মধ্যে সর্বাধিক নম্বর উঠেছে ৪৯৯। মুর্শিদাবাদের ছাত্রী রুমানা সুলতানা পেয়েছেন সেই নম্বর। ২০১৯-এ মাধ্যমিকে ৬৮৬ পেয়ে রাজ্যের মধ্যে পঞ্চম স্থান দখল করেছিলেন তিনি।
তবে সরকারি ভাবে মেধাতালিকা প্রকাশিত হয়নি। তাই তাঁকে এ বারের পরীক্ষায় প্রথম বলে চিহ্নিত করতে চায়নি উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ।
এ বার মোট পরীক্ষার্থী ৮ লক্ষ ১৯ হাজার ২০২। পাশ করেছে ৭ লক্ষ ৯৯ হাজার ৮৮ জন। অর্থাৎ ৯৭.৬৯ শতাংশ। রাজ্যের সব জেলাতেই ৯০ শতাংশের বেশি পরীক্ষার্থী পাশ করেছে। একটি ফলও অসম্পূর্ণ নেই।
আজ, বৃহস্পতিবার বেলা তিনটেয় আনুষ্ঠানিক ভাবে ফল ঘোষণা করে সংসদ। সংসদের সভানেত্রী মহুয়া দাস সাংবাদিক বৈঠক করে ফল জানান। তিনি জানিয়েছেন, ছেলে ও মেয়েদের পাশের হার প্রায় সমান। তা ৯৭ শতাংশের আশপাশে। এরই মধ্যে আবার রুমানার নাম উল্লেখ না করে তাঁকে ‘মুসলিম কন্যা’ বলে অভিহিত করেন মহুয়া। তা নিয়ে বিস্তর জলঘোলা হয়। পক্ষে-বিপক্ষে মত উঠে আসে।
পাশাপাশি মহুয়া জানান, নম্বর নিয়ে পড়ুয়ারা অসন্তুষ্ট হলে তা রিভিউয়ের জন্য আবেদন জানানো যাবে। আগামী ২৬ তারিখের সেই আবেদন জমা দিতে হবে সংসদের অফিসে। আবেদনপত্র জমা করতে পারবেন সংশ্লিষ্ট স্কুলের প্রধান শিক্ষক বা শিক্ষিকা। তার সঙ্গে দিতে হবে একাদশ শ্রেণির উত্তরপত্র।
এ বার উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্রছাত্রীদের মূল্যায়ন হয়েছে বিকল্প পদ্ধতিতে। তিন ধাপে এই নম্বরের হিসাব কষা হয়েছে।
প্রথমত — এই ছাত্রছাত্রীরা মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছিলেন ২০১৯ সালে। মাধ্যমিকে পরীক্ষার্থীর প্রাপ্ত সর্বোচ্চ চারটি নম্বরের ৪০ শতাংশ নেওয়া হয়েছে।
দ্বিতীয়ত — প্র্যাক্টিক্যাল বিষয়ের ক্ষেত্রে একাদশেরর বার্ষিক পরীক্ষায় থিওরির মোট নম্বরের ৬০ শতাংশে নম্বর কষা হয়েছে। অর্থাৎ ১০০ নম্বরের মধ্যে থিওরি ৭০-এর হলে তার ৬০ শতাংশ অর্থাৎ ৪২ নম্বরের মধ্যে পড়ুয়ার নম্বর কষা হয়েছে।
তৃতীয়ত — বাকি ৩০-এ দ্বাদশের প্র্যাকটিক্যালে প্রাপ্ত পুরো নম্বরটাই যোগ করা হয়েছে।
করোনার কারণে এ বার মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক দু’টি পরীক্ষাই বাতিল হয়। বদলে মূল্যায়নের বিকল্প পদ্ধতি স্থির করে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। মাধ্যমিকের ক্ষেত্রে নবম ও দশমের নম্বরে ৫০-৫০ গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কিন্তু উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা উচ্চশিক্ষার প্রবেশদ্বার। তাই এক্ষেত্রে যতদূর সম্ভব বৈজ্ঞানিক করতেই তিন ধাপে নম্বর ভাঙা হয়েছে বলে খবর।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top