মোদীর বৈঠক এড়ানোর কয়েক ঘণ্টার মধ্যে কেন্দ্রীয় ডেপুটেশনে মমতার মুখ্যসচিব

5515889E-EBC6-4942-B538-E3F6EF7A5656.jpeg

Onlooker desk: চার দিন আগে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব হিসাবে তিন মাস মেয়াদ বেড়েছিল আলাপনবন্দ্যোপাধ্যায়ের। আর যে দিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর রিভিউ বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়যোগ দিলেন না এবং মমতার জন্য মোদীকে আধঘণ্টা অপেক্ষা করতে হলো, সে দিনই কেন্দ্রের ডিউটিতেডেকে পাঠানো হলো আলাপনকে। সোমবার, ৩১ মে সকালের মধ্যে কেন্দ্রের ডিপার্টমেন্ট অফ পার্সোনেলঅ্যান্ড ট্রেনিং অফিসে যোগ দিতে হবে বলে রাজ্য সরকারকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছে কেন্দ্র।   

স্বাভাবিক ভাবেই এর তীব্র বিরোধিতা করেছে তৃণমূল। কেন্দ্র তথা বিজেপি প্রতিহিংসার পথে হাঁটছে বলেমন্তব্য করেছেন তৃণমূলের শীর্ষনেতৃত্ব। ভাবে করোনা এবং ইয়াসের মাঝে কেবল পশ্চিমবঙ্গের নয়, রাজ্যের মানুষের ক্ষতি করা হচ্ছে বলে তাঁদের মত। ভোটে জিততে না পেরে কেন্দ্র তথা বিজেপিনো্ংরামিকরছে বলেও মন্তব্য তৃণমূলের। নাম না করে মোদীকে কটাক্ষ করে টুইট করেছেন দলীয়সাংসদ মহুয়া মৈত্রও।

ইয়াসের ক্ষয়ক্ষতি বুঝতে আজ, শুক্রবার ওডিশা এবং পশ্চিমবঙ্গ পরিদর্শন করেন মোদী। কথা ছিল, কলাইকুণ্ডায় প্রধানমন্ত্রীর রিভিউ বৈঠকে যোগ দেবেন মমতা। কিন্তু তা না করে হিঙ্গলগঞ্জ সাগরপরিদর্শন সেরে কলাইকুণ্ডায় মিনিট ১৫ জন্য থেমে মোদীকে রাজ্যের ক্ষয়ক্ষতি সংক্রান্ত রিপোর্ট ধরিয়েদিঘায় প্রশাসনিক বৈঠকের উদ্দেশে রওনা দেন মুখ্যমন্ত্রী। অভিযোগ, মমতার জন্য আধঘণ্টা অপেক্ষাকরতে হয় মোদীকে। তার পর থেকে গোটা গেরুয়া ব্রিগেড নেমে পড়েছে মমতাকে নিশানা করে। উদ্ধতথেকে অপদার্থ, কিছু বলতে বাদ রাখছে না তারা। সবের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পৌঁছেছে আলাপনেরবদলির ফরমান।

তৃণমূল সাংসদ সুখেন্দুশেখর রায় সংবাদমাধ্যমে প্রসঙ্গে বলেন, ‘স্বাধীনতার পরে কি এমন ঘটনাঘটেছে? একটি রাজ্যের মুখ্যসচিবের বাধ্যতামূলক কেন্দ্রীয় ডেপুটেশন! মোদীশাহের বিজেপি আর কতনীচে নামবে? সবের কারণ তো একটাই, বাংলার মানুষ এই জুটিকে প্রত্যাখ্যান করে মমতাবন্দ্যোপাধ্যায়কে বিপুল ভাবে জয়ী করেছেন।

তবে রাজ্যের শীর্ষকর্তাদের দিল্লিতে ডেকে পাঠানো প্রথম নয়। বিধানসভা নির্বাচনের আগে তিনআইপিএস অফিসারকে ডেকে পাঠানো হয়। আইপিএস ক্যাডারদের নিয়ন্ত্রক স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক। আর যেদপ্তর আজ আলাপনকে তলব করেছে, সেটা সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর অফিসের অধীন।   

এই নির্দেশ জারির সময়ে আইএস (ক্যাডার) রুলের () ধারা জারি করেছে কেন্দ্র। যা অনুযায়ীকেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্ত মানতে রাজ্য বাধ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top