মিথ্যা পোস্টে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করার অভিযোগে শুভেন্দুকে আইনি নোটিস বিনয় মিশ্রের

IMG-20210605-WA0160.jpg

Onlooker desk: তাঁর বিরুদ্ধে ত্রিপল চুরির মামলা হয়েছে। বিধানসভার বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) আবেদনে সাড়া দিয়ে সেই মামলায় স্থগিতাদেশ দেয়নি কলকাতা হাইকোর্ট। এ দিকে তারই মধ্যে নতুন বিপত্তি। এ বার শুভেন্দুকে আইনি নোটিস (legal notice) পাঠালেন প্রাক্তন তৃণমূল (tmc) নেতা বিনয় মিশ্র (Binay Mishra)।
প্রসঙ্গত, বিনয়ের বিরুদ্ধে গোরু পাচার ও অবৈধ কয়লা ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগ। বিনয়ের নামে গত ১১ জুন টুইটারে একটি পোস্ট দেন শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)।
আইনি নোটিসটি পাঠানো হয়েছে আইনজীবী অয়ন পোদ্দারের মাধ্যমে। তাঁর অভিযোগ, ওই পোস্টে এমন কিছু কথা ব্যবহার করা হয়েছে যা মিথ্যে, অপমানজনক এবং দুরভিসন্ধিমূলক।
কিন্তু কী লিখেছিলেন শুভেন্দু? গত ১১ জুন টুইটটি করেন তিনি। লেখেন — ২০১৮-তেই ভারতের নাগরিকত্ব ছেড়ে ভনাউতুর নাগরিক হন বিনয়। আর ২০২০-তে সেই ব্যক্তিকেই তৃণমূল যুব শাখার সাধারণ সম্পাদক করা হয়। এই সূত্রে ভারতের নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন শুভেন্দু। প্রশ্ন তোলেন — ভারতের আইন অনুযায়ী কি কোনও বিদেশিকে রাজনৈতিক দলের অংশ করা যায়?
এরই বিরোধিতা করে শুভেন্দুকে আইনি চিঠি (legal notice) দেওয়া হয়েছে। সেই আইনি চিঠিতে অয়ন পোদ্দার প্রশ্ন তুলেছেন, বিনয় মিশ্র ২০২০-র ১৬ সেপ্টেম্বর ভারত ছাড়েন। তার অনেক পরে বিনয়ের নামে মামলা করে সিবিআই।
কী লেখা হয়েছে আইনি চিঠিতে? ওই আইনি চিঠিতে লেখা হয়েছে —বিনয় মিশ্রকে ২০২০-র ২৩ জুলাই যুব তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক করা হয়। তখন বিনয় ভারতের নাগরিক ছিলেন। ২০২০-র ডিসেম্বরে তাঁর মক্কেল ভারতের নাগরিকত্ব ছাড়েন। তার আগে তৃণমূলের পদও ত্যাগ করেন বিনয়।
ওই আইনি চিঠিতেই পোদ্দার জানান, ২০১৮-র ৫ সেপ্টেম্বর বিনয়কে ভারতের পাসপোর্ট দেওয়া হয়। তখন বিনয় মিশ্র অন্য কোনও দেশের নাগরিক ছিলেন না। বিনয়ের নামে ইচ্ছাকৃত ভাবে মিথ্যা ছড়ানোর অভিযোগ আনা হয়েছে আইনি চিঠিতে। অবিলম্বে ওই টুইট ডিলিট করার কথা বলা হয়েছে শুভেন্দুকে। এ ধরনের বেআইনি কাজের জন্য শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) বিরুদ্ধে ব্যবস্থাও নেওয়া হবে। এতে বিনয়ের সুনাম ক্ষুণ্ণ হয়েছে বলে আইনি চিঠিতে জানিয়েছেন অয়ন।
মাসদুয়েক আগে ইন্টারপোল বিনয়ের নামে নোটিস জারি করে। সিবিআই-ই ওই নোটিসের মাধ্যমে বিনয়কে খোঁজার চেষ্টা করছে। দক্ষিণ প্যাসিফিকে ভনাউতু দ্বীপে থাকতে পারেন বিনয়। গত মার্চে বিনয় মিশ্রর ভাই বিকাশকে গ্রেপ্তার করে ইডি। তাঁর প্রপার্টি অ্যাটাচ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top