রাজ্যে আরও দু সপ্তাহ বন্ধই বাস-মেট্রো-লোকাল, কিছু ছাড় বিধিনিষেধে

mamata-banerjee.jpg

কলকাতা: করোনায় লাগাম পরাতে মে মাসের মাঝামাঝি সময়ে রাজ্যে চালু হয়েছিল বিধিনিষেধ। কাল, মঙ্গলবার দ্বিতীয় দফার কড়াকড়ির মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা। এরপরে নবান্ন কী সিদ্ধান্ত নেয়, সে দিকে নজর ছিল সবার। কিন্তু আজ নবান্নে সাংবাদিক সম্মেলন করে মুখ্যমন্ত্রীর উপস্থিতিতে মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী জানালেন, কড়াকড়ি এখনই উঠছে না। আগামী ১ জুলাই পর্যন্ত তা কার্যকর থাকবে। কিছু ছাড় দেওয়া হয়েছে। তবে এখনই চালু হচ্ছে না বাস, মেট্রো বা লোকাল ট্রেনের মতো গণ পরিবহণ।
নবান্নে জরুরি বৈঠকের পর আজ মুখ্যসচিব জানান, ২৫ শতাংশ কর্মী নিয়ে সরকারি-বেসরকারি অফিস চালানো যাবে। তবে এক্ষেত্রে সময় নির্দিষ্ট করে দেওয়া হয়েছে। সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত অফিস। কর্মচারীদের অফিসে আনা ও বাড়ি ফেরানোর ব্যবস্থা করতে হবে সংশ্লিষ্ট অফিসকেই। সকাল ১০টা থেকে ২টো পর্যন্ত খোলা থাকবে ব্যাঙ্ক। বাজার, মুদির দোকান ইত্যাদি খোলা থাকবে সকাল ৭টা থেকে ১১টা পর্যন্ত। এ ছাড়া সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ছ’টা পর্যন্ত অন্য দোকান ও শপিং মল খোলা যাবে। কিন্তু মোট লোকধারণ ক্ষমতার ৩০ শতাংশের বেশি ঢুকতে দেওয়া যাবে না। এ ছাড়া বেলা ১২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা থাকবে রেস্তোরাঁ, বার ও হোটেল।
প্রসঙ্গত, কিছুদিনের আগেই মুখ্যমন্ত্রীর কাছে হোটেল রেস্তোরাঁ খোলার আবেদন জানিয়েছিলেন মালিকরা। মমতা তখনই বলেছিলেন যে করোনা বিধি মেনে ও কর্মীদের টিকাকরণ সম্পন্ন করে রেস্তোরাঁ খোলা যেতে পারে।
দর্শকশূন্য স্টেডিয়ামে খেলা হতে পারে। তবে বন্ধই থাকছে জিম, স্পা, বিউটি পার্লার। জরুরি পরিষেবা বা অত্যন্ত প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে না বেরোনোর পরামর্শ দিচ্ছে সরকার ।
টিকাপ্রাপ্ত হলে তবেই শহরের পার্কে ঢোকার অনুমতি মিলবে। প্রাতঃভ্রমণের অনুমতিও পাওয়া যাবে টিকাকরণ সমাপ্ত হলে। এ ছাড়া স্বাস্থ্য পরিষেবা ক্ষেত্রে অটোর যাতায়াতে ছাড় দেওয়া হয়েছে। শুটিং ইউনিটে ৫০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করা যেতে পারে।
তবে স্কুল, কলেজ ইত্যাদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধই থাকবে। রাজনৈতিক, সামাজিক ও অন্যান্য জমায়েত নিষিদ্ধ। বিয়েতে ৫০ জন ও শেষকৃত্যে ২০ জন হাজির থাকতে পারবেন।
দৈনিক ২০ হাজার থেকে কমে রাজ্যে করোনার দৈনিক সংক্রমণ এখন অনেকটাই কম। রবিবার তার আগের ২৪ ঘণ্টায় সংক্রমণ ৪ হাজারের নীচে নামে। মারা যান ৮৪ জন। পরিস্থিতি এখন অনেকটা ভালো হলেও সংক্রমণে আরও কিছুটা রাশ পরাতে চায় সরকার।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top