পেগ্যাসাস নিয়ে তদন্তকারী প্যানেল গড়ছেন মমতা

Pegasus-Probe-Panel.jpg

Onlooker desk: পেগ্যাসাস (Pegasus) আড়ি-পাতা কাণ্ডের তদন্তে প্রথম প্যানেল (Pegasus Probe Panel) তৈরি করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। কেবল পশ্চিমবঙ্গের মধ্যেই বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করবে এই প্যানেল। এর নেতৃত্বে থাকছেন অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি এম বি লোকুর এবং বিচারপতি জ্যোতির্ময় ভট্টাচার্য।
পেগ্যাসাস-বিতর্ক সামনে আসে গত রবিবার। প্রথমে মূলত সাংবাদিকদের ফোনে আড়ি পাতার বা আড়ি পাতার সম্ভাব্য তালিকায় রাখার কথা জানা যায়। পরে একে একে উঠে আসতে থাকে বড় রাজনীতিকদের নাম। তার মধ্যে রাহুল গান্ধী, কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব, ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর থেকে আন্তর্জাতিক স্তরের বহু নেতা-রাষ্ট্রপ্রধানের নাম। সেই সঙ্গেই জানা যায়, টার্গেট লিস্টে রয়েছেন তৃণমূল সাংসদ তথা মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।
সম্ভবত সে কারণেই মমতা তদন্তকারী প্যানেল (Pegasus Probe Panel) তৈরি করলেন। তা ছাড়া, বিষয়টিকে যে পশ্চিমবঙ্গ সরকার সহজে ছাড়বে না, কেন্দ্রকে সেই ইঙ্গিতও দেওয়া গেল বলে মনে করছেন অনেকে।
মমতার এই সিদ্ধান্ত গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, এই প্রথম পেগ্যাসাসের বিরুদ্ধে কোনও তদন্তকারী প্যানেল (Pegasus Probe Panel) তৈরি করা হল। যার জেরে কিছুটা হলেও চাপ বাড়ল কেন্দ্রের উপরে। ইজরায়েলি সংস্থা এনএসও গ্রুপের তৈরি পেগ্যাসাস সফটওয়্যারের মাধ্যমে ৩০০-রও বেশি মানুষের ফোনে আড়ি পাতার উদ্যোগ নেওয়া হয় বলে অভিযোগ।
সোমবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘কী ভাবে আড়ি পাতা হচ্ছে, সে সম্বন্ধে বিস্তারিত তদন্তের জন্য কমিটি তৈরি করছি আমরা। আশা রাখছি, আমাদের এই ছোট পদক্ষেপে বাকিদেরও ঘুম ভাঙবে। যত দ্রুত সম্ভব এই কাজ আমরা শুরু করতে চাই। বাংলার বহু মানুষের ফোনে আড়ি পাতা হয়েছে।’
প্রসঙ্গত, রবিবার কংগ্রেস একটি পোস্টার টুইট করে। সেখানে অভিষেকের ছবি দিয়ে বিজেপিকে আক্রমণ করা হয় পেগ্যাসাস নিয়ে। এনএসও গ্রুপ বারবারই জানিয়েছে, তারা কেবল সরকারের কাছে এই সফটওয়্যার বিক্রি করে। এবং তার শুধুমাত্র সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ ও অপরাধ দমনের উদ্দেশ্যে। স্বাভাবিক ভাবেই সেই সফটওয়্যারে আড়ি পাতার অভিযোগে তির কেন্দ্রীয় সরকারের দিকেই।
এ নিয়ে সংসদের চলতি বাদল অধিবেশনে সুর চড়িয়েছে বিরোধীরা। তৃণমূল তো প্রথম দিন থেকেই যথেষ্ট আক্রমণাত্মক ভূমিকা নিয়েছে। রাজ্যসভায় সরকারি বিবৃতি ছিঁড়ে উড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে সাসপেন্ড হয়েছেন সাংসদ শান্তনু সেন। কংগ্রেস যৌথ সংসদীয় কমিটির তদন্ত দাবি করেছে পেগ্যাসাস নিয়ে। কিন্তু কোনও কিছুতেই তদন্তের পথ ধরেনি কেন্দ্র। উল্টে যাবতীয় দায় অস্বীকার করে চলেছে। টার্গেট লিস্টে থাকা মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের দাবি, ভারতীয় গণতন্ত্রকে বদনাম করতেই এমন খবর ছড়ানো হচ্ছে।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top