নারদ মামলা অন্যত্র সরানোর আর্জি, জুড়ল মমতা-কল্যাণ-মলয়ের নাম

MAMATA-TA-NIZAM-PALACE.jpg

ফিরহাদদের গ্রেপ্তারের দিন নিজাম প্যালেসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতা: কলকাতা থেকে নারদ মামলা সরানোর আর্জিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম যুক্ত করল সিবিআই। যা কার্যত বেনজির। মামলায় একই সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে আইনমন্ত্রী মলয় ঘটক ও সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম। বেলা ১২টায় মামলাটি আদালতে ওঠার কথা থাকলেও সময় পাল্টে তা উঠবে ২টোয়।
নারদ-যোগে গত সোমবার সু্বরত মুখোপাধ্যয়া, ফিরহাদ হাকিম, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করেছে সিবিআই। সে দিন নিজাম প্যালেসে হাজির হয়েছিলেন মমতা। তাঁকেও গ্রেপ্তারির দাবি জানান। সিবিআইয়ের কাজ প্রভাবিত করার চেষ্টা করেছেন বলে মমতা, মলয়দের বিরুদ্ধে অভিযোগ। আর আইনজীবী-সাংসদ কল্যাণ ব্যাঙ্কশাল কোর্টে গোলমাল করেছিলেন। ৪০৭ নম্বর ধারা অনুযায়ী মামলাটিকে অন্যত্র সরানোর আর্জি জানিয়েছে সিবিআই।
তার একটি কারণ হলো, ধৃতরা সকলেই ‘প্রভাবশালী’। এ ছাড়া মমতার সে দিনের কর্মকাণ্ড এবং তারপরে রাজ্যজুড়ে যে গোলমাল তৈরি হয়, আবেদনে বিস্তারিত ভাবে সে প্রসঙ্গের উল্লেখ করেছে সিবিআই। তাদের বক্তব্য — বেনজির ভাবে সে দিন নিজাম প্যালেসে সিবিআই অফিসে হাজির হন মুখ্যমন্ত্রী। অভিযুক্তরা যে ঘরে বসে ছিলেন, সটান সেখান ঢুকে তাঁদের নিঃশর্ত জামিনের আবেদনে সরব হন। তাঁকেও গ্রেপ্তার করতে হবে বলে দাবি জানান। সিবিআইয়ের নামে তিনি অসম্মানজনক কথাবার্তা বলেন। ইমার্জেন্সি আইনে সিবিআই অফিসারদের গ্রেপ্তার করা হবে বলেও মমতা শাসানি দেন। এমনকী, ধৃতদের আদালতে পেশে বাধা দেন। এরপরে ‘পরিকল্পিত ভাবে’ রাজ্যজুড়ে বিশৃঙ্থলা তৈরি করা হয় বলে সিবিআইয়ের অভি়যোগ। এই সব তুলে ধরে, তারা জানিয়েছে, কেবল আশঙ্কার ভিত্তিতে নয়। খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূমিকা ও তার পরে রাজ্যজুড়ে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল, তা দেখে স্বচ্ছ তদন্তের স্বার্থে ধৃতদের অন্য রাজ্যে নিয়ে যাওয়ার অনুমতি চাইছে সিবিআই।
অভিযুক্তদের হয়ে আদালতে সওয়াল করবেন অভিষেক মনু সিঙ্ঘভি, সিদ্ধার্থ লুথরা ও কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রয়োজনে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হতে পারেন তাঁরা। আগে থেকে শীর্ষ আদালতেও পদক্ষেপ করেছে কেন্দ্রীয় এই গোয়েন্দা সংস্থা। এরই মধ্যে এই গ্রেপ্তারিকে বেআইনি বলে গড়িয়াহাট থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top