রাজনীতিকে ‘আলভিদা’, তবে সাংসদ থাকছেন বাবুল!

Babul-Supriyo2.jpg

Onlooker desk: সাংসদ থাকলেও রাজনীতিতে থাকবেন না বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo)। সোমবার দিল্লিতে এ কথা জানিয়েছেন তিনি।
গত শনিবার লম্বা ফেসবুক পোস্ট দিয়ে রাজনীতিকে ‘আলভিদা’ জানিয়েছিলেন বছর পঞ্চাশের গায়ক-সাংসদ। বিজেপি তো বটেই। সাংসদ পদও ছাড়ার কথা ঘোষণা করেছিলেন বাবুল (Babul Supriyo)।
সোমবার দিল্লিতে বিজেপি সভাপতি জে পি নাড্ডার সঙ্গে দেখা করেন তিনি। সেখানে কী কথা হয়েছে, সে ব্যাপারে বিস্তারিত ভাবে কিছু জানাননি বাবুল (Babul Supriyo)। তবে বলেন, ‘আমার কিছু সাংবিধানিক দায়িত্ব রয়েছে। এটা আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। কলকাতা বা মুম্বইয়ে পাকাপাকি ভাবে বসবাস শুরু করতে পারি। তবে কোনও ধরনের রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে থাকব না।’
আসানসোলের দু’বারের সাংসদ বাবুল (Babul Supriyo) বলেন, ‘আসানসোলের মানুষ আমাকে তাঁদের এমপি হিসাবে চান।’
নিরাপত্তা, দিল্লির বাংলো থেকে শুরু করে লোকসভার সদস্য হিসাবে যাবতীয় সুযোগ-সুবিধা ছড়ে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেন বাবুল (Babul Supriyo)। তাঁর কথায়, ‘শীঘ্রই হয়তো আমাকে অন্য পথে রোজগার করতে দেখবেন। সেটা গান গেয়েও হতে পারে।’ কিন্তু রাজনৈতিক সন্ন্যাসের কী কারণ, সে ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু বলেননি বাবুল (Babul Supriyo)।
পশ্চিমবঙ্গে বিজেপির রাজ্য সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার অবশ্য জানান, বাবুলের (Babul Supriyo) সাংসদ থাকার সিদ্ধান্ত একেবারেই তাঁর ব্যক্তিগত ব্যাপার। জয়প্রকাশ বলেন, ‘নাড্ডা বা কেন্দ্রীয় স্তরের কোনও নেতা তাঁর উপরে কোনও ধরনের চাপ তৈরি করেছেন, এটা ভেবে নেওয়া একেবারেই ঠিক হবে না।’
গত শনিবার বাবুলের (Babul Supriyo) ফেসবুক পোস্টের পরেই এ নিয়ে কটাক্ষ শুরু হয়। তৃণমূল কংগ্রেসের অনেকে বলেন, এতে তাঁর রাজনৈতিক অপরিপক্কতাই প্রকাশ পেল। আবার, তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বাবুলের পোস্টটিকে ‘নাটক’ বলেছিলেন। শোলে সিনেমায় ট্যাঙ্কের উপরে উঠে ধর্মেন্দ্রর আত্মহত্যার দৃশ্যের সঙ্গেও এর তুলনা করেন তিনি। এরও পাল্টা একটি পোস্ট দেন বাবুল। বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের কটাক্ষের জবাবও দেন এই দ্বিতীয় পোস্টে।
সোমবার তৃণমূল নেতা তাপস রায় সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘বাবুল আরও একবার তাঁর রাজনৈতিক অপরিপক্কতার প্রমাণ দিলেন।’
সম্প্রতি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভায় রদবদলে মন্ত্রিত্ব খোয়ান বাবুল। তারপরে সোশ্যাল মিডিয়ায় আবেগঘন পোস্টে জানিয়েছেন, তাঁকে পদ ছাড়তে বলা হয়েছে। বিধানসভা নির্বাচনেও টালিগঞ্জ থেকে দাঁড় করানো হয় আসানসোলের সাংসদকে। যদিও ভোটে হেরে যান তিনি। রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে নানা সময়ে তাঁর বিভেদ সামনে আসে।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top