কোভিডে মৃত্যু এক কর্তার, বিবৃতি জারি করেও অ্যালোপ্যাথি-বিতর্ক জারি পতঞ্জলির

83A71B7A-EA6B-47B1-9522-715C55B163F0.jpeg

Onlooker desk: কোভিড চিকিৎসায় অ্যালোপ্যাথির ভূমিকা নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে আইনিনোটিস পেয়েছেন সদ্য। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন চিঠি লিখে মন্তব্য প্রত্যাহার করতে বলেন। তারপরেবাধ্য হয়েই ঢোঁক গেলেন রামদেব।

বার জানা গেল, কোভিডে মৃত্যু হয়েছে তাঁর সংস্থা পতঞ্জলির দুধ দুগ্ধজাত সামগ্রীর ব্যবসার ভাইসপ্রেসিডেন্ট সুনীল বনসলের। এবং এই প্রসঙ্গেও কোভিড চিকিৎসার বিষয়টি উল্লেখ করেছে পতঞ্জলি।সুনীলের মৃত্যুর খবর জানিয়ে তারা বিবৃতিতে লিখেছেজয়পুরের রাজস্থান হাসপাতালে গত ১৯ মেতিনি কোভিডে মারা গিয়েছেন। তাঁর স্ত্রী রাজস্থানের সিনিয়র স্বাস্থ্য আধিকারিক। ওঁর অ্যালোপ্যাথিকচিকিৎসায় পতঞ্জলির কোনওভূমিকা ছিল না। সেটা মূলত ওঁর স্ত্রী দেখাশোনা করেছেন। তবে আমরাসংস্থার তরফে নিয়মিত সুনীলের শরীর স্বাস্থ্যের খোঁজ রেখেছি। ২০১৮ জানুয়ারিতে পতঞ্জলিরব্যবসায় যোগ দেন ডেয়ারি সায়েন্সের এই বিশেষজ্ঞ।     

অ্যালোপ্যাথিকেবুদ্ধিহীন, দেউলিয়াবিজ্ঞান বলে সম্প্রতি বিতর্কে জড়ান রামদেব। কোভিডে মৃত্যুরবেশিরভাগই আধুনিক চিকিৎসা বিজ্ঞানের জন্য বলে তাঁর দাবি ছিল। আইএমএ এর প্রতিবাদ জানিয়েকড়া অবস্থান নেয় আইনি নোটিস ধরায়। মন্তব্য প্রত্যাহারে বাধ্য দন রামদেব। তার আগে অবশ্যঅ্যালোপ্যাথির প্রতি তাঁর আস্থা বোঝাতে উঠে পড়ে লেগেছিল পতঞ্জলি। কিন্তু মন্তব্য প্রত্যাহারের আটমিনিটের মাথায় টুইট করে যোগ আয়ুর্বেদের সঙ্গে দৌড়ে অ্যালোপ্যাথি যে পিছিয়, সে তুলনা করেনরামদেব।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top