তীব্র প্রতিবাদ সিঙ্গাপুরের, কেজরির মন্তব্যের দায় ঝাড়ল বিদেশ মন্ত্রক

ARVIND.jpg

Onlooker desk: দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের ‘সিঙ্গাপুর ভ্যারিয়ান্ট’ মন্তব্য নিয়ে অস্বস্তিতে পড়েছে ভারত। এ নিয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছে সিঙ্গাপুর। এই সূত্রে তারা সিঙ্গাপুরে ভারতীয় রাষ্ট্রদূতকে ডেকে পাঠায়। বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর টুইটে জানিয়েছেন, কেজরিওয়াল ভ্যারিয়ান্ট বিশেষজ্ঞ নন। তা ছাড়া দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্যে দেশের দৃষ্টিভঙ্গি প্রতিফলিত হয় না বলে জানিয়ে এই মন্তব্যের দায় ঝেড়ে ফেলেছে কেন্দ্র। টুইটে জয়শঙ্কর লিখেছেন — কোভিড ১৯ এর বিরুদ্ধে হাতে হাত মিলিয়ে লড়াই করেছে সিঙ্গাপুর ও ভারত। নানা সরঞ্জামের আড়ত ও অক্সিজেন সরবরাহকারী হিসাবে তাদের ভূমিকার প্রশংসা করি আমরা। তবে স্বল্পজ্ঞান নিয়ে কারও কারও দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য এই দীর্ঘ বন্ধুত্বে প্রভাব ফেলতে পারে। কাজেই আমি স্পষ্ট ভাবে জানাতে চাই যে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী ভারতের হয়ে কথা বলেন না।
একই সঙ্গে একটি বিবৃতি জারি করেছে বিদেশ মন্ত্রক। সেখানে তারা লিখেছে — দিল্লির মুখ্যমন্ত্রীর ‘সিঙ্গাপুর ভ্যারিয়ান্ট’ টুইট নিয়ে তীব্র আপত্তি ও প্রতিবাদ জানাতে সিঙ্গাপুর সরকার আজ আমাদের হাই কমিশনারকে ডেকে পাঠিয়েছিল। হাই কমিশনার স্পষ্ট জানিয়েছেন, করোনার ভ্যারিয়ান্ট বা অসামরিক বিমান চলাচলের নীতি নিয়ে মন্তব্য করার দক্ষতা ও জ্ঞান কেজরিওয়ালের নেই।
মঙ্গলবারই একটি টুইটে সিঙ্গাপুর থেকে সমস্ত বিমান চলাচলে নিষেধাজ্ঞা জারির কথা বলেন কেজরিওয়াল। তাঁর দাবি, সিঙ্গাপুরে এক নতুন ধরনের করোনা ভ্যারিয়ান্ট পাওয়া গিয়েছে যা শিশুদের জন্য অত্যন্ত বিপজ্জনক। সেটাই ভারতে তৃতীয় ঢেউ হিসাবে আছড়ে পড়তে পারে। এই কারণে সিঙ্গাপুরের সঙ্গে আকাশপথে যোগাযোগ বন্ধের কথা বলেছিলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী। কয়েক ঘণ্টার মধ্যে এর তীব্র প্রতিবাদ জানায় সিঙ্গাপুর। হাই কমিশনের টুইটে লেখা হয় — সিঙ্গাপুরে নতুন কোভিড স্ট্রেন পাওয়া গিয়েছে , এমন কোনও খবরের সত্যতা নেই। উল্টে ভারতে এখন যে স্ট্রেনটি দাপিয়ে বেড়াচ্ছে, সেই বি.১.৬১৭.২ ভ্যারিয়ান্টই সিঙ্গাপুরের শিশু থেকে শুরু করে বহু মানুষকে সংক্রামিত করছে বলে তাদের দাবি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top