শিশুকে উদ্ধার করতে গিয়ে কুয়োয় পড়লেন ৩০ গ্রামবাসী, মধ্যপ্রদেশে মৃত তিন, চলছে উদ্ধারকার্য

Ganj-Basoda.jpg

চলছে উদ্ধারকাজ — টুইটার

Onlooker desk: ৫০ ফুট গভীর কুয়োয় পড়ে গিয়েছিল বছর আটেকের এক শিশু। ঘটনার পরই তড়িঘড়ি নিজেদের মতো করে উদ্ধার কাজ শুরু করেন গ্রামবাসীরা। কিন্তু তাতে আরও বিপত্তি বাড়ে। লোকজনের ভিড়ে কুয়োয় পড়ে যান প্রায় ৩০ জন। বৃহস্পতিবার রাতে ঘটনাটি ঘটেছে মধ্যপ্রদেশের বিদিশা জেলায়।

ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজ শুরু করেন বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মী। ঘটনাস্থলে যান প্রশাসনের শীর্ষ কর্তারাও। শুক্রবার সকাল পর্যন্ত তিন জনের মৃত্যু হয়েছে। এছাড়া ১৯ জনকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এই ঘটনার পর মৃত ও আহতদের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ চৌহান।

three dead in MP as well collapses while trying to rescue a child

এই কুয়োতেই দুর্ঘটনা ঘটে

এদিন সকালে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমি উদ্ধারকাজের দিকে নজর রাখছি। ঘটনাস্থলে রাজ্য সরকারের তরফে মন্ত্রী বিশ্বাস সরং রাতে থেকে উপস্থিত রয়েছেন। তিনি উদ্ধারকাজে তদারকি করছেন। আমি নিজেও আধিকারিকদের সঙ্গে সব সময় যোগাযোগ রাখছি।’
ঘটনাটি ঘটেছে বিদিশা জেলা সদর থেকে ৫০ কিলোমিটার দূরে গঞ্জ বাসোদা গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার রাত ৯টা নাগাদ ওই শিশুটি কোনও ভাবে ওই কুয়োয় পড়ে যায়। ৫০ ফুট গভীর ওই কুয়োয় জলস্তর রয়েছে ২০ ফুটের মধ্যে। বিষয়টি জানাজানি হতেই গ্রামবাসীদের মধ্যে চাঞ্চল্য দেখা যায়। তাঁরা ঘটনাস্থলে জড়ো হয়ে উদ্ধার কাজে হাত লাগান। প্রথম কয়েকজন বাসিন্দা কুয়োর দেওয়াল বেয়ে নামছিলেন। বাকিরা উপরে কুয়োর দেওয়ালের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। কিন্তু একসঙ্গে এত মানুষের চাপ সহ্য করতে না পেরে কুয়োর দেওয়াল ভেঙে গেলে প্রায় ৩০ জন খাদে পড়ে যান।


এদিকে খবর পেয়ে রাত ১১টা নাগাদ উদ্ধারের জন্য একটি ট্র্যাক্টর নিয়ে আসা হয়। সঙ্গে ছিলেন চার পুলিশকর্মী। কিন্তু কোনও ভাবে স্লিপ করে ট্র্যাক্টরিও কুয়োর খাদের পড়ে। এতে পরিস্থিতি আরও জটিল হয়। এর পরেই ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার কাজে হাত লাগান জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তর ও রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা দপ্তরের কর্মীরা।

এক এক করে সকাল পর্যন্ত ১৯ জনকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে।
এদিকে এমন ঘটনার পর উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ চৌহান। পাশাপাশি উদ্ধার হওয়া আহতদের চিকিৎসায় যাতে কোনও রকম খামতি না থাকে তার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন। চিকিৎসার খরচ সম্পূর্ণ ভাবে সরকার বহন করবে বলেও জানিয়েছেন তিনি। পাশপাশি মৃতদের পরিবারকে ৫ লক্ষ এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তার কথা ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top