‘চাপের মুখে’ বিধিনিষেধে ছাড় ‘ভয়ঙ্কর’! কেরালাকে ভর্ৎসনা সুপ্রিম কোর্টের

Bakrid.jpg

Onlooker desk: ঈদ-উল-আজহা উপলক্ষে তিন দিন বিধিনিষেধ শিথিল করার কথা জানিয়েছিল কেরালা (Kerala)। ‘চাপের মুখে’ এই ঘোষণা করায় সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court) ভর্ৎসনার মুখে পড়ল রাজ্য সরকার। এই সিদ্ধান্ত একেবারেই অনভিপ্রেত বলে জানিয়েছে সর্বোচ্চ আদালত। তবে ঈদের জন্য লকডাউন শিথিল করার সরকারি সিদ্ধান্ত তারা বাতিল করেনি।
বিষয়টি কোর্টের গোচরে আনেন আবেদনকারী পি কে নাম্বিয়ার। সে জন্য তাঁকে ধন্যবাদ জানিয়েছে আদালত।
বিচারপতি আর এফ নরিম্যান এবং বিচারপতি বি আর গভাইয়ের বেঞ্চে এ দিন মামলাটি শুনানির জন্য ওঠে। কেরালা (Kerala) সরকারের উদ্দেশে বেঞ্চ বলে — চাপের মুখে এ ভাবে নতিস্বীকার করার প্রবণতা ভয়ঙ্কর। জীবনের অধিকারের মতো সবচেয়ে মূল্যবান অধিকারের সামনে কোনও চাপই যথেষ্ট হতে পারে না। এই শৈথিল্যের কারণে কোনও ধরনের অবাঞ্ছনীয় ঘটনা ঘটলে জনতা আমাদের গোচরে আনতে পারেন। সেই মতো ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এ প্রসঙ্গে আদালত সংবিধানের ২১ নম্বর ধারার উল্লেখ করেছে। এবং এ বছরের কানোয়ার যাত্রার কথাও মনে করিয়ে দিয়েছে। উত্তর প্রদেশে কানোয়ার যাত্রা আটকাতে গত শুক্রবারই জীবনের অধিকারের কথা বলেছিল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। রাজ্য সরকারের আবেদনের প্রেক্ষিতে শেষ পর্যন্ত উদ্যোক্তারা যাত্রার আয়োজন বাতিল করেছেন।
কেরালাও (Kerala) নিজেদের সিদ্ধান্তের সমর্থনে যুক্তি দিয়েছে। তারা জানিয়েছে, গত ১৫ জুন থেকে বিধিনিষেধে শৈথিল্য চলছে। এটা নতুন কিছু নয়। পাশাপাশি, ঈদে যে ব্যবসায়ীরা দু’পয়সা রোজগারের আশা করেছিলেন, তাঁদের কথাও রাজ্য সরকার বিবেচনা করেছে। আদালতে এ কথা জানায় কেরালা।
মঙ্গলবারই ছিল বিধিনিষেধ শিথিল করার শেষ দিন। আবেদনকারী নাম্বিয়ারের আইনজীবী বিকাশ সিং রাজ্যের বিজ্ঞপ্তি খারিজের আবেদন জানান। কিন্তু কোর্ট তা করেনি। বিচারপতি নরিম্যান বলেন, ‘এখন আর খারিজ করে কী লাভ। ধনুক থেকে তির বেরিয়ে গিয়েছে। আমরা বিজ্ঞপ্তি কোয়াশ করছি না।’
আইনজীবী বিকাশ সিং আগেই আদালতকে জানিয়েছিলেন যে ওই রাজ্যে কোভিড পজিটিভিটির হার ১০ শতাংশের বেশি। বকরিদ (Bakrid) উপলক্ষে তিন দিনের ছাড় সম্পর্কে নিজেদের বক্তব্য জানাতে পিনারাই বিজয়ন সরকারকে সোমবার নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।
কাল, বুধবার ঈদ (Bakrid)। তার আগে তিন দিন ছাড় দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছিল কেরালা (Kerala) সরকার। গত শনিবার এই ছাড়ের কথা ঘোষণা করা হয়। ‘অবশ্যম্ভাবী’ তৃতীয় ঢেউয়ের উল্লেখ করে দ্য ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশন এই ছাড় নিয়ে রবিবারই সতর্ক করে রাজ্য সরকারকে।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top