রাজস্থান, উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশে বজ্রপাতে মৃত ৭০, ক্ষতিপূরণ ঘোষণা মোদীর

lightning-near-Amber-Fort.jpg

এই অ্যাম্বর ফোর্টের কাছেই ওয়াচ টাওয়ারে সেলফি তুলতে গিয়ে ১১ জনের মৃত্যু হয়েছে

Onlooker desk: রবিবার একদিনে বজ্রপাতে মৃত্যু হল প্রায় ৭০ জনের। ঘটনাগুলি রাজস্থান, মধ্য প্রদেশ ও উত্তর প্রদেশের। রবিবার ভারী বৃষ্টির সঙ্গে বজ্রপাতের জেরে এই দুর্ঘটনা।
রাজস্থানে ২০ জন মারা গিয়েছেন। দ্বাদশ শতকে তৈরি অ্যাম্বর ফোর্টের কাছে একটি ওয়াচ টাওয়ারে সেলফি তোলার সময়ে বজ্রপাতে ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। মৃত্যুর ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করেছে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর। মৃতদের পরিবারকে এককালীন ২ লক্ষ টাকা এবং আহতদের ৫০ হাজার টাকা করে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে ওই দপ্তর। পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্ত রাজ্যগুলিকে সব রকম সহযোগিতার আশ্বাসও দেওয়া হয়েছে।
রাজস্থানে আরও যে জায়গাগুলি থেকে মৃত্যুর খবর মিলেছে, সেগুলি হল কোটা, ঢোলপুর, ঝালাওয়ার, জয়পুর এবং বারান। জয়পুরের পুলিশ কমিশনার আনন্দ শ্রীবাস্তব জানান, অ্যাম্বর ফোর্ট এলাকা থেকে ২৯ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। তাঁর কথায়, ‘বজ্রপাতে আহত হওয়ার পর ২৯ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। স্থানীয় এ কাজে সাহায্য করেছেন। তাঁদের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।’ রাজ্যে বজ্রপাতে মৃতদের মধ্যে সাত জন শিশু।
উত্তর প্রদেশে মারা গিয়েছেন ৪০ জন। সরকারি আধিকারিক মনোজ দীক্ষিত জানান, মৃতদের বেশিরভাগই চাষি। খেতে কাজ করার সময়ে মারা যান তাঁরা। সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে প্রয়াগরাজে। সেখানে ১৪ জন মারা গিয়েছেন।
কানপুর ও ফতেহপুর জেলায় পাঁচ জন করে ১০ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। কৌশাম্বিতে মারা গিয়েছেন চার জন। ফিরোজাবাদ, উন্নাও এবং রায়বরেলিতে দু’জন করে ছ’জনের মৃত্যু হয়েছে। হারদোই এবং ঝাঁসিতেও একজন করে বলি হয়েছেন বজ্রপাতের।
উত্তর প্রদেশ এবং রাজস্থান, দুই রাজ্য সরকারই ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলিকে ক্ষতিপূরণের আশ্বাস দিয়েছে। পরিবারগুলিকে ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। শনিবারও দুই রাজ্যে বজ্রপাতে প্রাণ হারিয়েছিলেন ২০ জন।
অন্যদিকে, মধ্য প্রদেশে বজ্রপাতের ঘটনায় সাত জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। এঁদের মধ্যে শেওপুর এবং গোয়ালিয়র জেলাতে দু’জন করে মারা গিয়েছেন।
দ্য ইন্ডিয়া মেটেরিওলজিক্যাল ডিপার্টমেন্ট (আইএমডি) জানিয়েছে, উত্তর ভারতে আগামী দু’দিন আরও বজ্রপাতের ঘটনা ঘটবে। সঙ্গে চলবে ভারী বৃষ্টিপাত। রবিবার আইএমডি জানিয়েছে — দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ু আরও অগ্রসর হওয়ার পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে। তা দিল্লি এবং উত্তর প্রদেশের পশ্চিমাঞ্চলের উপরে প্রবেশ করবে। এ ছাড়া পাঞ্জাব, হরিয়ানা এবং রাজস্থানেরও আরও বেশি অংশে আগামী ২৪ ঘণ্টায় ঢুকে পড়বে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বাতাস।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top