করোনা নিয়ে আলোচনা এড়াল এনডিএ, পিএসি চেয়ারম্যানের পদ ছাড়ার ইচ্ছেপ্রকাশ অধীরের

Adhir-Ranjan-Chowdhury.jpg

Onlooker desk: দেশের করোনা পরিস্থিতির আঁচ সংসদে।
আজ, বুধবার কোভিড (covid 19) নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা ছিল সংসদের পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটিতে (PAC)। সেখানে করোনা পরিস্থিতির প্রসঙ্গ তোলেন কমিটির চেয়ারম্যান অধীররঞ্জন চৌধুরী (Adhir Ranjan Chowdhury)। প্রসঙ্গত, অধীর লোকসভায় কংগ্রেসের দলনেতা। কিন্তু তাঁর প্রস্তাবে আপত্তি জানান এনডিএ-র শরিকরা। মূলত বিজেপি এবং জেডিইউ বিরোধিতা করে বলে সূত্র মারফত জানা গিয়েছে।
পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটি (PAC) হলো সংসদের প্রাচীনতম প্যানেল। যা ভারত সরকারের আয় ও ব্যয়ের উপরে নজর রাখে। তার অডিটও করে। সেখানেই আজ কোভিড (covid 19) পরিস্থিতির প্রসঙ্গ তোলেন অধীর। অতিমারীর পাশাপাশি তার সঙ্গে সম্পর্কিত নানা বিষয় উত্থাপন করেন তিনি। এবং এর জেরেই বাধে গোলমাল। স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে বিষয়টি তোলার বিরোধিতা করে এনডিএ। তার নেতৃত্ব দেন জগদম্বিকা পাল ও লালন সিং।
যদিও এই প্রথম নয়। আগেও এ ভাবে নানা প্রসঙ্গ উঠেছে পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটিতে (PAC)। অতীতে লোকসভায় ২জি স্পেকট্রাম থেকে রাস্তা নির্মাণ — নানা ইস্যু তোলা হয়েছে এই ভাবে। এমনকী ক্যাগ (কম্পট্রোলার অ্যান্ড অডিটর জেনারেল) রিপোর্টের আগেও তা করা হয়েছে।
স্বাভাবিক ভাবেই সে সব তর্কে কান দেয়নি এনডিএ। শাসক জোটের সাংসদরা পুরো প্রসঙ্গটাই এড়িয়ে যান। কোভিডের (covid 19) তৃতীয় ঢেউ মোকাবিলায় প্রস্তুতির প্রসঙ্গ তোলেন অধীর। কিন্তু কমিটি তাতে কর্ণপাত করেনি। এর জেরে প্রবল ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠেন অধীর। তিনি পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটির (PAC) চেয়ারম্যান পদ থেকে ইস্তফা দিতে চান। তাঁর কথা শোনা না-হলে তিনি পদে থাকবেন না বলে জানান।
ঘটনাচক্রে অন্যান্য দলেরও কেউ বিশেষ মুখ খোলেননি। যেমন ডিএমকে বা নবীন পট্টনায়কের বিজেডি। কোভিড (covid 19) পরিস্থিতির সামগ্রিক পর্যালোচনা চেয়েছিলেন অধীর। কিন্তু সেই প্রস্তাবে নীরব থেকেছে ডিএমকে এবং বিজেডি।
এনডিএ সদস্যরা তাঁদের আচরণের পক্ষে পাল্টা যুক্তি সাজান। তাঁদের বক্তব্য, ইতিমধ্যেই এ নিয়ে আলোচনা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের সংসদীয় স্ট্যান্ডিং কমিটিতে বিষয়টি ওঠে। অথচ পাবলিক অ্যাকাউন্টস কমিটি (PAC) গত বছরও এ নিয়ে আলোচনা চেয়েছিল।
প্রসঙ্গত, সম্প্রতি যে কোনও জরুরি বিষয়েই আলোচনা এড়িয়ে যাচ্ছে এনডিএ। অভিযোগ, সংসদে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ কোনও পর্যালোচনাতেই ঢোকেনি। সেটা নোটবন্দি হোক বা কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বিলোপ। আলোচনা এড়াচ্ছে শাসক জোট।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top