প্রকাশিত হল আইসিএসই, আইএসসি-র ফল, দু’ক্ষেত্রেই পাশের হার ৯৯ শতাংশের বেশি

ICSE-ISC-results.jpg

প্রতীকী চিত্র

Onlooker desk: প্রকাশিত হল এ বারের আইসিএসই এবং আইএসসি (ICSE ISC) পরীক্ষার ফল (results)। বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়নে আইসিএসই-তে পাশ করেছে ৯৯.৯৮ শতাংশ। আইএসসি-তে ৯৯.৭৬ শতাংশ। আইসিএসই-তে ছাত্র ও ছাত্রী উভয়েই ৯৯.৯৮ শতাংশ পাশ করেছে। আর আইএসসি-তে মেয়েদের ৯৯.৮৬ শতাংশ এবং ছেলেদের ৯৯.৬৬ শতাংশ পাশ করেছে।
পশ্চিমবঙ্গে এই হার যথাক্রমে ৯৯.৯৮ শতাংশ এবং ৯৯.৬৩ শতাংশ। রাজ্য থেকে এ বার ৩৯ হাজার ৫২০ জন আইসিএসই (ICSE) এবং ২৬ হাজার ৮৫৯ জন আইএসসি (ISC) পরীক্ষার্থী ছিল। দুই পরীক্ষাতেই ছেলেদের তুলনায় মেয়েদের পাশের হার সামান্য বেশি। যদিও সংখ্যার নিরিখে এগিয়ে ছেলেরাই।
শনিবার দুপুর তিনটেয় ফল (results) প্রকাশ করে কাউন্সিল ফর দ্য ইন্ডিয়ান স্কুল সার্টিফিকেট এগজামিনেশনস (সিআইএসসিই)। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে কাউন্সিলের সচিব জেরি অ্যারাথুন লেখেন — কোভিড-১৯ অতিমারীর জেরে এ বার অত্যন্ত কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে চলেছি আমরা। সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে শিক্ষাক্ষেত্রে। কিন্তু যাবতীয় বাধাবিঘ্ন অতিক্রম করেই ফল (results) প্রস্তুত ও প্রকাশ করছে সিআইএসসিই। তবে করোনার কারণে পরীক্ষা বাতিল হওয়ায় মাধ্যমিক এবং উচ্চ মাধ্যমিকের মতো আইসিএসই, আইএসসি-রও (ICSE ISC) মেধাতালিকা প্রকাশ করেনি কাউন্সিল। বস্তুত, করোনার কারণে মেধাতালিকা প্রকাশ করা যায়নি গত বছরও।
এ বছর মোট ২,৪২২ টি স্কুলের ২ লক্ষ ১৯ হাজার ৪৯৯ জন পরীক্ষার্থী ছিল আইসিএসই-তে। আর ১,১৬৬টি স্কুলের ৯৪ হাজার ১১ জন পরীক্ষার্থী ছিল আইএসসি-তে। যদিও পরীক্ষা হয়নি। বিকল্প পদ্ধতিতে মূল্যায়ন হয়েছে ছাত্রছাত্রীদের।
কী সেই পদ্ধতি? আইসিএসই-র ক্ষেত্রে দু’টি বিষয় দেখা হয়েছে। প্রথমত, ২০১৯-২০ এবং ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে নবম ও দশম শ্রেণিতে স্কুলে যে সব পরীক্ষা হয়েছে। এবং এ বছর দশমে প্রজেক্ট বা প্র্যাক্টিক্যালের মতো অভ্যন্তরীণ মূল্যায়ন। এই দুইয়ের নম্বরের নিরিখে তৈরি হয়েছে আইসিএসই-র ফল।
আইএসসি-তে দেখা হয়েছে তিনটি বিষয়। প্রথমত, ২০১৯-২০ এবং ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ছাত্র বা ছাত্রী স্কুলের অভ্যন্তরীণ মূল্যায়নে যত নম্বর পেয়েছে, তার গড়। দ্বিতীয়ত, এই পড়ুয়াদের আইসিএসই-র (ICSE) ইংরেজি ও সেরা চারটি বিষয়ের নম্বরের গড়। তৃতীয়ত, ২০২১-এ আইএসসি-র (ICSE) প্রজেক্ট বা প্র্যাক্টিক্যালের নম্বর। এই তিনটি নম্বরে পৃথক পৃথক গুরুত্ব দিয়ে তৈরি হয়েছে এ বারের আইএসসি-র ফল।
অ্যারাথুন জানান, স্কুল নম্বর দেওয়ার পর সেগুলি বিশ্লেষণ করেছেন নামী প্রতিষ্ঠানের খ্যাতনামা স্ট্যাটিসটিশিয়ানরা। সঙ্গে ছিলেন সিআইএসসিই-র সিনিয়র অফিসারের দল। অতিমারীকালে যতদূর সম্ভব স্বচ্ছতা ও ছাত্রছাত্রীদের প্রতি সুবিচারের ব্যাপারে গুরুত্ব দিয়েই নম্বর হিসাব করা হয়েছে।
কাউন্সিলের ওয়েবসাইট থেকে ফল জানা ও ডাউনলোড করা যাবে। পাশাপাশি এসএমএস মারফতও ফল জানার উপায় রয়েছে। কোনও পড়ুয়ার যদি ফল নিয়ে আপত্তি থাকে তা হলে কারণ-সহ স্কুলের কাছে বিষয়টি জানাতে হবে তাকে। স্কুল আবেদন খতিয়ে দেখবে। তা গ্রহণযোগ্য মনে হলে স্কুল-প্রধানের মন্তব্য ও সংশ্লিষ্ট নথি-সহ পাঠাতে হবে কাউন্সিলে। স্কুল প্রধানের ফরওয়ার্ড করা এই আবেদন খতিয়ে দেখবে কাউন্সিল। তবে যেহেতু পরীক্ষা হয়নি, তাই কেবল হিসাবে গরমিলের বিষয়টিই দেখা হবে।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top