দিল্লি পৌঁছলেন মমতা, কাল বিকেলে সাক্ষাৎ মোদীর সঙ্গে

Mamata-Delhi-visit.jpg

Onlooker desk: সোমবার দিল্লি পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। বিধানসভা নির্বাচনে বিপুল জয়ের পর এটাই মমতার প্রথম দিল্লি সফর (Mamata Delhi visit)। কাল, মঙ্গলবার বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বৈঠক রয়েছে তাঁর।
এর মধ্যে তিনটি কংগ্রেস নেতাদের এবং চতুর্থটি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে। এই দিয়ে শুরু তাঁর দিল্লি সফর (Mamata Delhi visit)। তার পরের তিন দিনে কোনও একদিন সনিয়া গান্ধীর সঙ্গে চা-পানের কথা মমতার। তবে সেটা কবে, তা নিশ্চিত করে জানানো হয়নি।
কাল দুপুর দুটোয় প্রথম বৈঠকটি কংগ্রেস নেতা কমল নাথের সঙ্গে। তিনটেয় মমতা দেখা করবেন আনন্দ শর্মার সঙ্গে। সাড়ে ছ’টায় অভিষেক মনু সিঙ্ঘভির সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে। এর মধ্যে, বিকেল চারটেয় মোদী-মমতা বৈঠক। একে সৌজন্য-সাক্ষাৎ হিসাবেই দেখানো হচ্ছে।
তবে বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূলের বিপুল জয়ের পর এই প্রথম দেখা হবে মোদী ও মমতার। সেখানে রাজ্যকে কেন্দ্রের বরাদ্দ ও টিকা দেওয়ার কথা বলতে পারেন মমতা।
মমতার এই সফরে (Mamata Delhi visit) সমাজবাদী পার্টির নেতা অখিলেশ যাদব এবং দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের সঙ্গেও দেখা করার কথা। সোমবার দিল্লি পৌঁছনোর (Mamata Delhi visit) পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা প্রথম দেখা করেন বিনীত নারায়ণের সঙ্গে। ১৯৯৬-এর জৈন হাওয়ালা বিতর্ক নিয়ে বই লিখেছে এই সাংবাদিক। ওই বিতর্কের সূত্র ধরেই পশ্চিমবঙ্গের রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়কে সম্প্রতি বেঁধেন মমতা। তাঁর দাবি, ধনখড় ওই মামলায় জড়িত। পরে এ নিয়ে সুর চড়ায় তৃণমূলও। ধনখড় অভিযোগ অস্বীকার করেন। তবে এতদিন পর বিষয়টি সামনে আনার জন্য মমতাকে অভিনন্দন জানিয়েছিলেন বিনীত।
মমতার দিল্লি সফরে (Mamata Delhi visit) প্রতিটি বৈঠকই অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ২০২৪-এ বিজেপি বিরোধিতার সবচেয়ে বড় মুখ তিনিই। তাই তাঁর এই সফরে (Mamata Delhi visit) বিরোধী নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে কী কথা হয়, সে দিকেই সকলের নজর।
গত সপ্তাহে মমতাকে তৃণমূলের সংসদীয় পার্টির চেয়ারপার্সন হিসাবে বেছে নেয় দল। সাংসদ না-হওয়া সত্ত্বেও এই দায়িত্ব তাঁকেই দেওয়া হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের বাইরে বৃহত্তর ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে যে তিনি প্রস্তুত, এই নির্বাচন সে দিকেই ইঙ্গিত করছে বলে অনেকের মত।
গত ২১ জুলাই শহিদ দিবসের মঞ্চ থেকেও বিজেপি বিরোধিতার আহ্বান জানান মমতা। তাঁর ভাষণ ভার্চুয়ালি শোনেন এনসিপি-প্রধান শরদ পাওয়ার, কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরমরা। সেখানে মমতা ঐক্যের ডাক দেন। তিনি বলেন, বিরোধীরা যদি নিজেদের মতানৈক্য সরিয়ে রেখে বিজেপির বিরুদ্ধে সুর না চড়ায় তা হলে জনগণ ক্ষমা করবে না।
সে দিন তাঁর ভাষণ শুনতে হাজির ছিলেন ডিএমকে, তেলঙ্গানা রাষ্ট্র সমিতি, আরজেডি, শিবসেনা, সমাজবাদী পার্টি, আপ এবং শিরোমণি অকালি দলের নেতারা।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top