মোদীর সঙ্গে ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’, পরে সুপ্রিম-তত্ত্বাবধানে পেগ্যাসাস-তদন্তের দাবি মমতার

Modi-Mamata-visit.jpg

Onlooker desk: পেগ্যাসাস আড়ি-বিতর্কে সুপ্রিম কোর্টের তত্ত্বাবধানে তদন্ত দাবি করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)।
মঙ্গলবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) সঙ্গে দিল্লিতে তাঁর বাসভবনে গিয়ে দেখা করেন মমতা (Mamata)। তারপরে বেরিয়ে এ কথা জানান তিনি। সাংবাদিকদের সামনে কথা জানান মমতা।
ইজরায়েলি গোষ্ঠী এনএসও-র তৈরি পেগ্যাসাস সফটওয়্যারে দু’জন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিরোধী নেতা থেকে ৪০ জন সাংবাদিককে ফোনে আড়ি পাতার টার্গেট লিস্টে রাখা হয়। এঁদের অনেকের ফোনে আড়ি পাতাও হয় বলে অভিযোগ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ইতিমধ্যেই এ নিয়ে তদন্ত প্যানেল তৈরি করেছেন। পেগ্যাসাস সফ্টওয়্যার সরকার ছাড়া কারও কাছে থাকার কথা নয়। তাই আড়ি পাতার ব্যাপারে স্বাভাবিক ভাবেই নাম জড়িয়েছে কেন্দ্রের।
টার্গেট লিস্টে মমতার ভাইপো তথা তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও আছেন। এ ছাড়া রাহুল গান্ধী, ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোররাও (পিকে) আছেন ওই তালিকায়।
তৃণমূলের দাবি, প্রধানমন্ত্রী মোদী ও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এ নিয়ে ব্যাখ্যা দিন। কিন্তু কেন্দ্র লিখিত বিবৃতি পড়ার বেশি কিছু এ পর্যন্ত করেনি। তা নিয়ে বিস্তর গোলমালও হয়েছে। সম্প্রতি কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের হাত থেকে বিবৃতি কেড়ে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলেন তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেন। সে জন্য তাঁকে রাজ্যসভা থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে বাদল অধিবেশনে।
বিধানসভা নির্বাচনের পর এই প্রথম এ ভাবে মুখোমুখি বৈঠক করলেন মোদী (Modi) ও মমতা (Mamata)। এর মাঝে ইয়াস নিয়ে কলাইকুন্ডায় মোদীর পর্যালোচনা বৈঠকে যোগ না দিয়ে প্রশাসনিক বৈঠকে যোগ দিতে দিঘা চলে যান মমতা। তা নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক হয়। এ দিন সেই শৈত্য কতখানি কাটবে, তা নিয়ে সংশয় ছিলই। আদতে দেখা গেল, ঘণ্টাখানেকের জন্য নির্দিষ্ট বৈঠক আধঘণ্টার মধ্যেই শেষ হয়ে যায়।
বৈঠক থেকে বেরিয়ে মমতা জানান, মোদীর সঙ্গে দেখা হওয়ার পর মমতা জানান, এ দিন তাঁদের ‘সৌজন্য সাক্ষাৎ’ হয়েছে। সেখানে কোভিড পরিস্থিতি, টিকার জোগান থেকে পশ্চিমবঙ্গের নাম ‘বাংলা’ করা — সবই আলোচিত হয়েছে। তবে মোদী কী বলেছেন, তা বলতে চাননি মমতা।
তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সঙ্গেও দেখা করার কথা আছে। কিন্তু ওরা (রাষ্ট্রপতি ভবন) আরটি-পিসিআর করাতে বলছে। আমার ভ্যাকসিনের দুটো ডোজই নেওয়া আছে। এখানে আর কোথায় যাবে!’
কাল, বুধবার কংগ্রেস সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi) মমতাকে আহ্বান জানিয়েছেন। মমতার তিন দিনের দিল্লি সফর রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠত-আলোচনায় ঠাসা। মঙ্গলবার কংগ্রেস নেতা কমল নাথ ও আনন্দ শর্মার সঙ্গেও দেখা করেন মমতা।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top