তামিলনাড়ুর দেওয়ালে মমতা ‘আম্মা’, সর্বভারতীয় স্তরে চর্চায় তৃণমূল কংগ্রেস

Mamata-Amma-on-Tamilnadu-walls.jpg

এই দেওয়াল লিখনই সামনে এসেছে

Onlooker desk: গত বিধানসভা নির্বাচনের প্রচার পর্বে বিজেপির স্লোগান ছিল, ‘এ বার বাংলা, পারলে সামলা’। তৃণমূলের পাল্টা স্লোগান ছিল, ‘যতই নাড়ো কলকাঠি, নবান্নে আবার হাওয়াই চটি’। শেষমেশ ভোটযন্ত্রে অবশ্য গেরুয়া ঝড় সামলে দিয়েছেন তৃণমূল নেতৃত্ব। বিজেপিকে পর্যদুস্ত করে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় এসেছে তৃণমূল কংগ্রেস। আর তার পর থেকেই বিজেপি বিরোধী মুখ হিসেবে গোটা দেশের সামনে এসেছে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম। বিভিন্ন বিরোধী দলের নেতারা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাঁকে। আর তখন থেকেই তৃণমূল নেতারা দিল্লি দখলের ডাক দিয়েছেন। এর মধ্যে তামিলনাড়ুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ছবি-সহ দেওয়াল লিখনের চিত্র ভাইরাল হতেই সর্ব ভারতীয় স্তরে জোর চর্চা শুরু হয়েছে।
তামিলনাড়ুতে স্থানীয় ভাষায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নামে একটি দেওয়াল লিখন দেখা গিয়েছে। তাতে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে ‘আম্মা’ সম্বোধন করা হয়েছে। সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় দ্রুত ভাইরাল হয়ে যায়। তবে এই ‘আম্মা’ সম্বোধন নিয়েই জোর চর্চা শুরু হয়েছে। কারণ তামিলনাড়ুর প্রয়াত প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতাও আম্মা হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। তাঁর জনপ্রিয়তাও ছিল চরম। কিন্তু জয়ললিতার প্রয়াণের পর তাঁর দলও পরাজিত হয়েছে। ফলে বর্তমান সময়ে দাঁড়িয়ে মমতাকে আম্মা হিসেবে তুলে ধরার বিষয়টি বাড়তি গুরুত্ব পাচ্ছে।
এ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের পর ওডিশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েক-সহ বিরোধী দলের বিভিন্ন নেতারা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এবং মমতা যে ভাবে নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহদের রুখে দিয়েছেন, সেই লড়াইকে কুর্নিশ জানিয়েছিলেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। এর পর থেকেই মমতাকে সামনে রেখে ২০২৪-এর লোকসভা নির্বাচনে বিরোধী জোটের পরিকল্পনা চলছে। যদিও বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে এখনও এনিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি। তবে রাজনীতিতে বাংলার ময়দানের পাশাপাশি দেশে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পেতে প্রস্তুতি শুরু করেছেন তৃণমূল নেতারা। আর সেই ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে ২১ জুলাইয়ের শহিদ দিবসের মঞ্চকে বেছে নিয়েছেন তাঁরা। এমনিতে এ বার করোনা সংক্রমণের কারণে ২১ জুলাইয়ের সভা ভার্চুয়ালি করার কথা ঘোষণা হয়েছে। তবে তা দিল্লি, ত্রিপুরা-সহ বেশ কয়েকটি রাজ্যে মমতার ভাষণ শোনানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে। তামিলনাড়ুতেও যে দেওয়াল লিখন সামনে এসেছে তা ২১ জুলাইয়ের সমর্থনেই। দক্ষিণের রাজনীতির ময়দানে জোড়াফুলের উপস্থিতিকে তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top