দৈনিক সংক্রমণ কমছেই, কমছে না মৃত্যু

covid-death1.jpg

Onlooker desk: সংক্রমণ কমছে। কিন্তু মৃত্যুর সংখ্যায় তার প্রভাব পড়ছে না। দেশের এই কোভিড চিত্র বদলাল না সোমবারও। এ দিন গত ২৪ ঘণ্টায় ৭০ হাজার ৪২১ জনের শরীরে নতুন করে করোনা সংক্রমণের হদিস মিলেছে। যা গত ১ এপ্রিলের পর সর্বনিম্ন। কিন্তু মারা গিয়েছেন ৩,৯২১ জন। পজিটিভিটি রেট অবশ্য পাঁচের নীচেই। সোমবার তা ছিল ৪.৭১ শতাংশ দেশে এ পর্যন্ত মোট ২ কোটি ৯৫ লক্ষ ১০ হাডার ৪১০ জনের করোনা সংক্রমণের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে। মারা গিয়েছেন ৩ লক্ষ ৭৪ হাজার ৩০৫ জন।
দৈনিক সংক্রমণের নিরিখে সবার উপরে তামিলনাড়ু (১৪,১০৬)। তারপরে কেরালা (১১,৫৮৪) এবং মহারাষ্ট্র (১০,৪৪২)। অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গে রবিবার দৈনিক সংক্রমণ চার হাজারের নীচে নেমে হয়েছে ৩,৯৮৪। মৃত্যু হয়েছে ৮৪ জনের।
সংক্রমণ অনেক কমায় গত সোমবারই প্রথম পর্বের আনলক শুরু হয়েছিল দিল্লিতে। আজ, সোমবার থেকে রাজধানীতে প্রায় সবই খুলে যাচ্ছে। তিন মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন সংক্রমণ ধরা পড়ে রবিবার। সে দিনই দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দর কেজরিওয়াল ঘোষণা করেন, আজ, সোমবার থেকে সমস্ত হোটেল-রেস্তোরাঁ-মল ইত্যাদি খুলে যাবে। তবে এ ভাবে এক সপ্তাহের জন্য ট্রায়াল চলবে। সংক্রমণের সংখ্যা বাড়লে ফের কড়াকড়ির পথে হাঁটবে সরকার।
হরিয়ানায় আভার লকডাউনের মেয়াদ ২১ জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। দৈনিক সংক্রমণ কিছুটা কমায় অবশ্য কড়াকড়ি সামান্য শিথিল করা হয়েছে। এতদিন জোড়-বিজোড় নীতিতে দোকান খুললেও এখন সমস্ত দোকানই সকাল ৯টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত খোলা যাবে বলে সরকারি নির্দেশে জানানো হয়েছে।
এ দিকে কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন থেকে পেটেন্ট প্রত্যাহারের জন্য জি৭ বৈঠকে প্রস্তাব দেয় ভারত ও দক্ষিণ আফ্রিকা। রবিবার তাকে পুরোপুরি সমর্থন করেছে ইংল্যান্ড। রবিবার এক ভার্চুয়াল বৈঠকে ওই প্রস্তাব রাখেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।
এ দিকে রুশ টিকা স্পুটনিক ভি আগামী ১৫ জুন থেকে পাওয়া যাবে দিল্লির ইন্দ্রপ্রস্থ অ্যাপোলো হাসপাতালে। এই টিকার প্রতি ডোজের দাম ১১৪৫ টাকা।
এর মধ্যে ভালো খবর রাজস্থানের বিকানেরে। দেশের প্রথম শহর হিসাবে সেখানে বাড়ি বাড়ি গিয়ে ৪৫ ঊর্ধ্বদের টিকা দেওয়া হবে। আজ, সোমবার এই কর্মসূচি শুরু হওয়ার কথা। এক বা়ড়ি থেকে অন্য বাড়ি গিয়ে ভ্যাকসিন দেওয়ার পাশাপাশি সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির সঙ্গে কিছুক্ষণ থাকবে মেডিক্যাল টিম। কলকাতাতেও এই কর্মসূচি শুরু করার কথা রয়েছে। কিন্তু পর্যাপ্ত চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীর অভাবে তা থমকে।
দেশে সর্বোচ্চ দৈনিক সংক্রমণ হয়েছিল গত ৭ মে। সে দিন ৪ লক্ষ ১৪ হাজার ১৮৮টি সংক্রমণের খোঁজ পাওয়া গিয়েছিল। দৈনিক সর্বাধিক মৃত্যুর খোঁজ মিলেছিল গত ১৯ মে। সংখ্যাটা ছিল ৪৫২৯।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top