সংবাদপত্রের অফিসে আয়কর হানা, দ্বিতীয় ঢেউয়ের বাস্তব তুলে ধরার জের?

Dainik-Bhaskar-office-raid.jpg

Onlooker desk: সংবাদমাধ্যম দৈনিক ভাস্করের একাধিক অফিসে আজ, বৃহস্পতিবার সকালে রেড চালাল আয়কর দপ্তর। দৈনিক ভাস্কর গ্রুপ কর ফাঁকি দিয়েছে বলে অভিযোগ।
সংবাদমাধ্যমটির দিল্লি, মধ্য প্রদেশ, রাজস্থান, গুজরাট এবং মহারাষ্ট্রের অফিসে আয়কর হানা চালায়। গ্রুপের প্রোমোটারদের বাড়ি ও অফিসেও তল্লাশি চালানো হয় বলে সূত্রের খবর।
দৈনিক ভাস্করের এক সিনিয়র এডিটর জানান, গোষ্ঠীর জয়পুর, আহমেদাবাদ, ভোপাল এবং ইন্দোর অফিসে বর্তমানে হানা চলছে।
কংগ্রেস নেতা তথা মধ্য প্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দিগ্বিজয় সিং জানান, গোষ্ঠীর আধ ডজন অফিসে আয়কর অফিসাররা উপস্থিত। তার মধ্যে রয়েছে ভোপালের প্রেস কমপ্লেক্সের দপ্তরও।
দৈনিক ভাস্কর দেশের সবচেয়ে বড় সংবাদ গোষ্ঠীগুলির অন্যতম। এপ্রিল-মে মাসে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ে লাগাতার রিপোর্ট করছে দৈনিক ভাস্কর। তার জেরে কী ভাবে নানা খামতি বেরিয়ে এসেছে, তা তুলে ধরেছে এই গোষ্ঠী। সরকারের বিভিন্ন দাবির সমালোচনা, চুলচেরা বিশ্লেষণ করেছে তারা।
একদিকে ক্রমবর্ধমান সংক্রমণ, অন্যদিকে অক্সিজেন, হাসপাতালে শয্যা এবং টিকার অভাব। বাস্তবের সঙ্গে সরকারের দাবির যে কতখানি ফারাক, তা তুলে ধরতে সিরিজ প্রকাশিত হয় দৈনিক ভাস্করে।
দৈনিক ভাস্করের রিপোর্টে করোনার ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি উঠে আসে। উত্তর প্রদেশ ও বিহারে গঙ্গায় কোভিডে মৃতদের দেহ ভেসে আসার ছবি ছাপা হয়। শেষকৃত্যের পর্যাপ্ত ব্যবস্থা না-থাকার কারণেই দেহগুলি গঙ্গায় ভাসানো হয় বলে মনে করা হয়। এ ছাড়া, উত্তর প্রদেশে গঙ্গার ধারে অগভীর কবর খুঁড়ে দেহ পুঁতে দেওয়ার রিপোর্টও প্রকাশিত হয়।
মাসখানেক আগে দৈনিক ভাস্করের সম্পাদক ওম গৌরের উত্তর সম্পাদকীয় ছাপা হয় দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমসে। শিরোনাম — দ্য গ্যাঞ্জেস ইজ রিটার্নিং দ্য ডেড. ইট ডাস নট লাই।
গোটা উত্তর সম্পাদকীয়র ছত্রে ছত্রে ছিল সরকারের সমালোচনা। করোনা সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবিলায় সরকার কতখানি ব্যর্থ, সে কথা তুলে ধরেছিলেন ওম। তিনি লেখেন — ভারতের পবিত্রতম নদী মোদী সরকারের ব্যর্থতা ও বুজরুকির এক নম্বর প্রদর্শনী হয়ে দাঁড়ায়।
দৈনিক ভাস্করের অফিসে আয়কর হানার খবর প্রকাশ্যে আসতেই মোদী-শাহ জুটির বিরুদ্ধে অনেকে সরব হন। বাস্তব তুলে ধরার জন্যই দৈনির ভাস্করের বিরুদ্ধে তাঁরা রাষ্ট্রযন্ত্রকে কাজে লাগাচ্ছেন বলে অভিযোগ উঠতে শুরু করে। নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহ ভয় পেয়েছেন বলে মন্তব্য করে টুইট করেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। পাশাপাশি দৈনিক ভাস্করের উদ্দেশে ‘মেরুদণ্ড’ সোজা রেখে যাওয়ার কথাও লেখেন ডেরেক।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top