ফিউচার রিটেল চুক্তিতে অ্যামাজনের পক্ষে রায় সুপ্রিম কোর্টের

Amazon.jpg

Onlooker desk: ই-কমার্স সংস্থা অ্যামাজনের (Amazon) আবেদনের প্রেক্ষিতে আজ, শুক্রবার রায় শোনাল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court of India)। রায়টি অ্যামাজনের পক্ষেই গিয়েছে। পরাস্ত হল ফিউচার গ্রুপ ও রিলায়্যান্স।
ফিউচার রিটেল (Future Retail) লিমিটেডের সঙ্গে রিলায়্যান্স রিটেলের (Reliance) মার্জারের বিরোধিতায় সর্বোচ্চ আদালতের (Supreme Court of India) দ্বারস্থ হয়েছিল অ্যামাডন। সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, ফিউচার রিটেলের সম্পত্তি ৩.৪ বিলিয়ন ডলার বা ২৪ হাজার ৭৩১ টাকায় রিলায়্যান্সের কাছে বিক্রির চুক্তির উপরে সিঙ্গাপুরের এক আরবিট্রেটরের শর্ত ছিল। যে আরবিট্রেটর এই চুক্তি স্থগিত রাখতে বলে। সেই স্থগিতাদেশ জারি রেখেছে সুপ্রিম কোর্ট।
পার্টনার অ্যামাজন এই চুক্তি আটকাতেই চেয়েছিল। সুপ্রিম কোর্টের (Supreme Court of India) নির্দেশে তাদের ইচ্ছেয় সিলমোহর পড়ল।
এই চুক্তি নিয়ে ফিউচারের সঙ্গে অ্যামাজনের (Amazon) আইনি যুদ্ধ চলছেই। মার্কিন সংস্থা অ্যামাজনের অভিযোগ, ভারতীয় ফিউচার গ্রুপ চুক্তি মানছে না। চুক্তি না মেনে তারা নিজেদের সম্পত্তি প্রতিযোগী রিলায়্যান্স ইন্ডাস্ট্রিজকে বিক্রি করেছে। ফিউচার দাবি করে, তাদের পদক্ষেপে কোনও ভুল নেই।
অ্যামাজন বলেছিল, আরবিট্রেটরের নির্দেশ মানা বাধ্যতামূলক। কিন্তু ফিউচার গ্রুপ (Future Retail) পাল্টা বলে, নির্দেশ বাধ্যতামূলক নয়। এই নিয়ে দু’পক্ষের টানাপড়েন শুরু হয়। অবশেষে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে অ্যামাজনের জয় হল।
এই রায়ের দিকে সংশ্লিষ্ট সব মহল তাকিয়ে ছিল। কারণর সঙ্গে বিদেশি ইমার্জেন্সি আরবিট্রেটরের (ইএ) নির্দেশের মান্যতার প্রশ্ন জড়িত। ভারতীয় আরবিট্রেশন অবং কনসিলিয়েশন আইনে ইএ শব্দটি ব্যবহৃত হয় না।
গত বছর অক্টোবরে দ্য সিঙ্গাপুর ইমার্জেন্সি আরবিট্রেটর রিলায়্যান্স রিটেলের (Reliance) সঙ্গে ফিউচারের (Future Retail) চুক্তি স্থগিত করে। সিঙ্গাপুর আরবিট্রেটর মামলাটির শুনানি করেছে। এ প্রসঙ্গে তারা এখনও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানায়নি। এই পরিস্থিতিতে আজ ওই আরবিট্রেটরের স্থগিতাদেশই বজায় রাখে সুপ্রিম কোর্ট।
মামলাটি দিল্লি হাইকোর্টে যায়। সেখানে আরবিট্রেটরের নির্দেশ বহাল রাখা হয়। সিঙ্গল বেঞ্চ নির্দেশ দেয় ফিউচার গ্রুপের (Future Retail) কিশোর বিয়ানির সমস্ত সম্পত্তি ‘সিজ’ করা হোক। পাশাপাশি, কেন তাঁকে তিন মাসের জন্য জেলে পাঠানো হবে না, সে প্রশ্নও তোলে।
এ দিকে, ফেব্রুয়ারি মাসে দিল্লি হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ সিঙ্গল বেঞ্চের ওই নির্দেশ স্থগিত করে দেয়। সিঙ্গল বেঞ্চের রায়ে ওই ডিল স্থগিত হচ্ছিল। কিন্তু সেই রায়ই স্থগিত হয়ে যাওয়ায় সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court of India) যায় অ্যামাজন (Amazon)।
সুপ্রিম কোর্টে অ্যামাজন বলে, দিল্লি হাই কোর্টের নির্দেশ ‘বেআইনি’ ও ‘হঠকারী’। তারা ভারতে ৬.৫ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করেছে। এই পরিস্থিতিতে বিষয়টিতে সর্বোচ্চ আদালত হস্তক্ষেপ না করলে ‘অপূরণীয় ক্ষতি’ হবে।
ফিউচারের সম্পত্তি নিয়ে এই আইনি যুদ্ধে বিশ্বের দু’জন অন্যতম ধনী ব্যক্তির মধ্যে লড়াই বেধেছে। একজন অ্যামাজনের (Amazon) জেফ বেজোস। অন্যজন রিলায়্যান্সের (Reliance) মুকেশ আম্বানি। ২০১৯-এ ফিউচার গ্রুপে (Future Retail) বিনিয়োগ করে অ্যামাজন। তবে সেই চুক্তি নিয়েও পাল্টা অভিযোগ উঠেছে। যার জেরে নতুন আইনি জটিলতা দেখা দিতে পারে অ্যামাজনের জন্য।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top