পাপড়ি চাটে অ্যালার্জি থাকলে মাছের কালিয়া খান! ডেরেককে পাল্টা নকভির

Papri-Chaat.jpg

Onlooker desk: ইটের বদলে পাটকেল নয়। পাপড়ি চাটের (Papri Chaat) বদলে মাছের কালিয়া (fish curry)! তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েনের (derek O’Brien) ‘পাপড়ি চাট’ মন্তব্যের প্রেক্ষিতে ‘মাছের কালিয়া’র অবতারণা ঘটালেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী মুখতার আব্বাস নকভি (Mukhtar Abbas Naqvi)।
গত সোমবার কেন্দ্রীয় সরকারকে নিশানা করে একটি টুইট করেন ডেরেক (derek O’Brien)। সেখানে সংসদে তাড়াহুড়ো করে বিল পাশ করানো নিয়ে কেন্দ্রকে আক্রমণ করেন তিনি। সঙ্গে কোন বিল কত দ্রুত পাশ হয়েছে তার একটি গ্রাফিক্যাল প্রেজেন্টেশন দেন। দেখা যায়, একটি বিল ১ মিনিটেরও কম সময়ে পাশ হয়েছে। বিল পাশের গড় সময় ৭ মিনিটের কম। ১০ দিনে ১২টি বিল পাশ হয়েছে বলে জানান ডেরেক।
এর প্রেক্ষিতেই ডেরেক (derek O’Brien) লেখেন — সংসদে বিল পাশ হচ্ছে নাকি পাপড়ি চাট (Papri Chaat) বানাচ্ছে। যার পাল্টা নকভি (Mukhtar Abbas Naqvi) বলেন, ‘ওঁর যদি পাপড়ি চাটে (Papri Chaat) অ্যালার্জি থাকে তা হলে মাছের কালিয়া (fish curry) খান। কিন্তু সংসদকে মাছের বাজারে পরিণত করা বন্ধ করুন। দুর্ভাগ্যবশত যে ভাবে চক্রান্ত করে সংসদের সম্মান নষ্ট করা হচ্ছে, তেমনটা আগে দেখা যায়নি।’
এ দিকে বুধবারই অসংসদীয় আচরণের অভিযোগে ৬ জন তৃণমূল সাংসদকে আজকের মতো বহিষ্কার করা হয়েছে রাজ্যসভা থেকে। এঁরা হলেন দোলা সেন, নাদিমুল হক, আবির বিশ্বাস, শান্তা ছেত্রী, অর্পিতা ঘোষ এবং মৌসম নুর।
তৃণমূলের শান্তনু সেনকে আগেই বাদল অধিবেশন থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে। কারণ তিনি কেন্দ্রীয় তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণবের হাত থেকে পেগ্যাসাস নিয়ে সরকারি বিবৃতি ছিনিয়ে নেন। তারপরে সেটাকে ছিঁড়ে টুকরোগুলি উড়িয়ে দেন হাওয়ায়।
সংসদে সাংসদদের আচরণ নিয়ে মঙ্গলবারই সরব হন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)। সেখানে পাপড়ি চাট (Papri Chaat) মন্তব্য নিয়ে উষ্মা প্রকাশ করেন। একে অবমাননাকর বলে মত প্রকাশ করেন মোদী। পাশাপাশি, সংসদ চলতে না দেওয়ার অভিযোগে একহাত নেন বিরোধীদের।
মঙ্গলবার দলের পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠকে মোদী দলের সাংসদদের অবশ্য সংযত থাকার বার্তা দেন। গত সপ্তাহে সংসদের অচলাবস্থার জন্য কংগ্রেসকে দায়ী করেছিলেন মোদী।
এ দিকে, বিরোধীরা পেগ্যাসাস, কৃষি আইন ইত্যাদি ইস্যুতে সরকারের কাছে আলোচনা দাবি করছে। বিরোধিতার সুর চড়ানোর স্ট্র্যাটেজি ঠিক করতে মঙ্গলবার ব্রেকফাস্টে বৈঠকেও বসেন বিরোধী একদল নেতানেত্রী। রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে সেই বৈঠকে যোগ দেন তৃণমূল, শিবসেনা, এনসিপি, ডিএমকে-সহ বহু বিরোধী দলের নেতানেত্রী।
কংগ্রেসের দাবি, সংসদ যে ঠিকমতো কাজ করতে পারছে না, তার জন্য সরকারই দায়ী।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top