টিকার ৪৪ কোটি ডোজ অগস্টের মধ্যে, জানাল কেন্দ্র

CORONA-VACCINE.jpg

Onlooker desk: টিকার আকালে বিভিন্ন রাজ্যে ভ্যাকসিন সেন্টার বন্ধ হয়ে গিয়েছে। তা নিয়ে প্রবল ক্ষোভ জমেছে আমজনতার মধ্যে। এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্রীয় সরকার জানাল, অগস্ট থেকে দেশে করোনা ভ্যাকসিনের ৪৪ কোটি ডোজ পাওয়া যাবে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রক জানিয়েছে, এ বছরের অগস্ট থেকে ডিসেম্বরের মধ্যে এই ডোজগুলি সরবরাহ করা হবে।
১৮-র বেশির বয়সি সকল নাগরিককে বিনামূল্যে করোনার টিকা দেওয়া হবে বলে সোমবারই জাতির উদ্দেশে ভাষণে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার পরে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রকের ঘোষণা — কোভিশিল্ডের ২৫ কোটি এবং কোভ্যাক্সিনের ১৯ কোটি ডোজ কেনার জন্য অর্ডার দেওয়া হয়েছে।
সোমবার মোদীর ঘোষিত নতুন টিকা নীতিতে রাজ্যের ঘাড় থেকে ভ্যাকসিন কেনার দায় নিয়ে নিয়েছে কেন্দ্র। অর্থ মন্ত্রক আজ, মঙ্গলবার জানিয়েছে, নতুন প্রকল্পে ৫০ হাজার কোটি টাকা খরচ হবে। এবং সেই টাকা কেন্দ্রের তহবিলে রয়েছে।
গত সপ্তাহে সরকার জানিয়েছিল, তারা হায়দরাবাদের বায়োলজিক্যাল ই-র কোভিড ভ্যাকসিনের ৩০ কোটি ডোজ বুক করেছে। এই টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চলছে।
দেশজুড়ে করোনার দাপাদাপির মধ্যে কেন্দ্রের টিকা সংগ্রহের বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক তৈরি হয়। দ্বিতীয় ঢেউয়ের জেরে দেশের স্বাস্থ্য কাঠামোর নড়বড়ে হাল বেআব্রু হয়। অভাব বেশি প্রকট হয় গ্রামাঞ্চলে। সুপ্রিম কোর্টের ভর্ৎসনা ও প্রশ্নের মুখেও পড়ে কেন্দ্র। সর্বোচ্চ আদালতের মতে, কেন্দ্রের টিকা নীতি প্রাথমিক ভাবে ‘হঠকারী ও অযৌক্তিক’ বলে মন্তব্য করেছিল শীর্ষ আদালত। ৪৫-ঊর্ধ্বদের বিনামূল্যে টিকা দেওয়া হলেও ১৮-৪৪ বছর বয়সিদের ক্ষেত্রে কেন অন্য নিয়ম, সে প্রশ্নও তোলা হয়। সুনির্দিষ্ট নীতি প্রণয়ন করতে বলা হয় কেন্দ্রকে।
অন্যদিকে, দায় এড়িয়ে কেন্দ্রীয় সরকার বারবার টিকার বিষয়টা রাজ্যের ঘাড়ে চাপানোর চেষ্টা করে। মে-র গোড়ার দিকে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশ যখন বিপর্যস্ত, তখন দেশবাসীকে টিকা দেওয়ার বদলে একের পর এক কেন্দ্র কার্যত ঝাঁপ বন্ধ করে। এপ্রিল-মে জুড়ে বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতাল জানাতে থাকে, তাদের কাছে টিকা নেই। অনেকে আবার প্রথম ডোজের পর সময় পেরিয়ে গেলেও দ্বিতীয় ডোজ পাননি। এরই মধ্যে প্রথম ও দ্বিতীয় ডোজের মধ্যে সময়ের ফারাক বাড়িয়ে বিতর্ক আরও বাড়ায় কেন্দ্র।
সোমবার জাতির উদ্দেশে ভাষণে মোদী বলেন, ‘অনেক রাজ্যই টিকাকরণের বিকেন্দ্রীকরণের পক্ষে সওয়াল করে। অনেকে আবার বয়স্কদের প্রাধান্য দেওয়া নিয়েও প্রশ্ন তোলে।’ এই পরিস্থিতিতে টিকা নীতিতে বদল ঘটায় মোদীর সরকার। মঙ্গলবার দিনভর সে সংক্রান্ত নানা খবরও তারা দিতে থাকে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top