নৌকায় নদী পেরোনোর সময় অবশেষে গ্রেপ্তার মেহুল চোকসি

WhatsApp-Image-2021-05-25-at-10.04.58-AM.jpeg

Onlooker desk: অবশেষে ধরা পড়লেন পলাতক ব্যবসায়ী মেহুল চোকসি। ক্যারিবিয় দ্বীপ ডমিনিকা থেকে জলপথ ধরে পালানোর সময়ে মঙ্গলবার নাটকীয় ভাবে ধরা পড়েন ১৪ হাজার কোটি টাকার ঋণখেলাপি এই ব্যবসায়ী। বর্তমানে তিনি ডমিনিকায় সিআইডির হেফাজতে আছেন বলে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রে খবর।
ভারতের পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্ক থেকে ১৪ হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়ে তা শোধ না-করে ২০১৮-য় পালিয়ে যেন চোকসি। ক্যারিবিয় দ্বীপ অ্যান্টিগায় গা-ঢাকা দিয়েছিলেন তিনি। রবিবার রাতে রেস্তোরাঁয় খেতে বেরোনোর পর নিখোঁজ হয়ে যান এই হিরের ব্যবসায়ী। একটু দূরে গাড়িটি মিললেও চোকসির দেখা কোথাও পাওয়া যায়নি।
এ দিকে, অ্যান্টিগায় আইনি বন্দোবস্তের মেয়াদ শেষ হলেই তাঁকে ভারতের কাছে প্রত্যর্পণ করা হবে বলে কঠোর অবস্থান নিয়েছিলেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী। কাজেই সেখানে থাকা যে আর নিরাপদ নয়, তা বুঝে ফের পিঠটান দিচ্ছিলেন তিনি। মনে করা হয় কিউবার পথ ধরেছেন চোকসি। কারণ কিউবার সঙ্গে ভারতের প্রত্যর্পণ চুক্তি নেই। ভারতে প্রতারণার মামলায় খোঁজা হচ্ছে বছর ৬২-এর এই ব্যক্তিকে।
এ দিকে চোকসির নিখোঁজ হওয়ার খবর পেয়েই সক্রিয় হয় অ্যান্টিগা পুলিশ। প্রশাসনের তরফে বিভিন্ন কাউন্টিকে সতর্ক করা হয়। ইন্টারপোলে ইয়েলো নোটিস জারির আবেদনও জানানো হয়। সূত্রের খবর, ইন্টারপোলের সেই নোটিসের সূত্রেই মঙ্গলবার রাতে ডমিনিকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় চোকসিকে। সেই সময় ডমিনিকায় নৌকা করে নদী পেরোচ্ছিলেন তিনি। পলাতক এই অভি়ুক্তকে অ্যান্টিগার হাতে তুলে দেওয়ার চেষ্টা করছে ডমিনিকা।
ভারতের কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাগুলি মনে করছে, একবার অ্যান্টিগায় ফেরত পাঠানো হলে চোকসিকে দেশে ফিরিয়ে আনা সহজ হবে। তিনি যে পালানোর চেষ্টা করছিলেন, অ্যান্টিগার কোর্টে সে প্রসঙ্গে সওয়াল করা সহজ হবে। তাই শীঘ্রই এই ব্যবসায়ীকে ভারতে ফেরানো যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top