আরও বেড়ে দেশের বেশ কিছু শহরে সেঞ্চুরি হাঁকাল পেট্রল, পিছিয়ে নেই ডিজেলও

fuel-price-rise.jpg

Onlooker desk: ৪২ দিন ২৪ বার। জ্বালানি তেলের দামবৃদ্ধিতে লাগাম নেই। সোমবারও পেট্রলের দাম লিটারে ২৯ পয়সা এবং ডিজেল ৩০ পয়সা বাড়িয়েছে রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলি। যার হাত ধরে দেশের বেশ ক’টি শহরে সেঞ্চুরি ছাড়িয়েছে পেট্রল। অনেক শহরে দু’টি তেলের দামই ১০০-র বেশি।
যেমন, রাজস্থানের গঙ্গানগরে আজ, সোমবার এক লিটার পেট্রলের দাম ১০৭ টাকা ৫৩ পয়সা এবং ডিজেল ১০০ টাকা ৩৭ পয়সা। কলকাতায় এখনও সেঞ্চুরি না করলেও সেই পর্যায়ে পৌঁছতে বেশি দেরি নেই। আজ কলকাতায় এক লিটার পেট্রলের দাম ৯৬ টাকা ৩৪ পয়সা, ডিজেল ৯০ টাকা ১২ পয়সা।
গত ২ মে দেশের পাঁচটি বিধানসভা নির্বাচনের ফল বেরোয়। তার একদিন বাদে, ৪ মে থেকে এ পর্যন্ত পেট্রলের দাম লিটারে ৬ টাকা ১ পয়সা এবং ডিজেলে ৬ টাকা ৫৫ পয়সা বেড়েছে। দিল্লিতে আজ পেট্রল ৯৬ টাকা ৪১ পয়সা, ডিজেল ৮৭ টাকা ২৮ পয়সা। গোটা দেশের জন্য দিল্লির দর একটি বেঞ্চমার্ক হিসাবে বিবেচিত হয়। তবে কর ও স্থানীয় লেভির তারতম্যের কারণে জ্বালানির দাম এক এক শহরে এক এক রকম হয়।
বেঙ্গালুরুতে এক লিটার পেট্রল আজ ৯৯ টাকা ৬৩ পয়সা। মানে সেঞ্চুরি ছুঁয়েই ফেলল বলে। মুম্বইয়ে অবশ্য দর ১০০ পেরিয়ে গিয়েছে। সেখানে লিটারপ্রতি দাম ১০২ টাকা ৫৮ পয়সা। ডিজেল ৯৪ টাকা ৭০ পয়সা।
দিশাহারা মূল্যবৃদ্ধির জেরে গত ৪ মে-র পর দেশের বেশ ক’টি শহরেই জ্বালানির দাম তিন অঙ্ক পেরিয়ে যায়। এই বৃদ্ধি মবলত মহারাষ্ট্র, রাজস্থান, অন্ধ্র প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ, কর্নাটক, তেলঙ্গানা এবং লাদাখের বিভিন্ন শহরে।
আজ, সোমবার দেশের যে সব শহরে পেট্রলের দাম ১০০ পেরিয়েছে, সেগুলি হলো — মুম্বই, রত্নগিরি, পরভানি, ঔরঙ্গাবাদ, জয়সলমেড়, গঙ্গানগর, বাঁশওয়াড়া, ইন্দোর, ভোপাল, গোয়ালিয়র, গুন্টুর, কাকিনাড়া (অন্ধ্র প্রদেশ), চিকমাগালুর, শিবামোগ্গা, হায়দরাবাদ এবং লেহ।
আন্তর্জাতিক বাজারে অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি এবং দেশে অত্যন্ত বেশি কর — দু’য়ে মিলে জ্বালানি তেলের দাম কার্যত আমজনতার নাগালের বাইরে নিয়ে যাচ্ছে। ভারতের জ্বালানি বিক্রেতারা আগের দিনের আন্তর্জাতিক দরের সঙ্গে সঙ্গতি রেখে দাম ঠিক করে।
গত বছর আন্তর্জাতিক বাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম হ্রাস পায়। কিন্তু ধুঁকতে থাকা অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার যুক্তি দেখিয়ে সরকার এক্সাইজ ডিউটি বৃদ্ধি করে। রাজ্যগুলিও এক পথ ধরে। জ্বালানি তেল সেই যে ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী পথ ধরল, সেই ধারা এখনও অব্যাহত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top