সাহিত্যিককে ‘নিয়ন্ত্রণ’ ফেসবুকের, ‘অত্যাচার’ বললেন লেখক

69006C81-CD0B-494F-9E9D-781181881C32.jpeg

Onlooker desk: একটি ভিডিয়ো। দেখা যাচ্ছে, হিটলার তাঁর নাৎজি বাহিনীকে বেদম বকাবকি করছেন।ভিডিয়োয় হিটলারের মুখে বসানো হয়েছে অমিত শাহের গলায় মালয়লিতে বিজেপি নেতৃত্বের প্রতিতিরস্কার। কেরালায় বামপন্থীদের জয়ের পর সেই ভিডিয়ো ফেসবুকে পোস্ট করেছিলেন সাহিত্যিক তথাসাহিত্য আকাদেমির প্রাক্তন সেক্রেটারি কে সচ্চিদানন্দন। ফেসবুকের সেটি এতই আপত্তিকর মনে হয়েছেযে এক দিনের জন্য তাঁকে নিয়ন্ত্রণ করেছে এই সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম। শুক্রবার রাত থেকে কেবলসকলের পোস্ট দেখতে পাওয়া ছাড়া কিছুই করার অনুমতি দেওয়া হয়নি তাঁকে। ছাড়া ৩০ দিনের জন্যলাইভের অনুমতিও কেড়ে নেওয়া হয়েছে। সচ্চিদানন্দনের কথায়, ‘বিষয়টা ক্রমশ অত্যাচারের সামিলহয়ে উঠছে। আমি আপত্তিকর কিছু পোস্ট করিনি। হোয়াটসঅ্যাপে ভিডিয়োটা পেয়েছিলাম। তা শেয়ারকরি।এপ্রিলেও মোদীর পদত্যাগ দাবি করে পোস্ট দেওয়ায় তা সরিয়ে দিয়ে তাঁকে সতর্ক করেছিলফেসবুক। প্রবীণ সাহিত্যিকের অভিযোগ, ভাবে মত প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব করছে কেন্দ্রীয় সরকার।সচ্চিদানন্দনের বিরুদ্ধে ফেসবুকের এই পদক্ষেপের বিরোধিতা করে টুইট করেন কংগ্রেস নেতা শশীথারুর।

কেরালার সদ্যসমাপ্ত বিধানসভা নির্বাচনে ১৪০টি আসনের মধ্যে ৯৯টি পেয়ে জয়ী হয়েছে বামেরা।বিজেপির ঝুলিতে মাত্র ৪১টি আসন। সেই ফলাফলের সূত্রেই ওই ভিডিয়ো। টুইট করে সচ্চিদানন্দনেরপ্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন কেরালার অর্থমন্ত্রী থমাস আইজ্যাক। এই ঘটনাকেশোচনীয়বলে মন্তব্যকরেছেন তিনি। বিজেপি অবশ্য ফেসবুকের পদক্ষেপের সঙ্গে তাদের কোনও যোগ অস্বীকার করেছে।বিষয়টি ফেসবুকই ব্যাখ্যা করতে পারবে বলে দাবি এনডিএ কেরালার আহ্বায়ক পি কে কৃষ্ণদাসের।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top