মাস্ক পরার ‘বোকা’ নিয়ম না-মেনে মহামারী আইনের গেরোয় চিকিৎসক

SHOP.jpg

শপিংমলের এই জায়গাতেই ঘটে ঘটনাটি

Onlooker desk: মাস্ক পরতে বলায় কর্নাটকের একটি মলে স্টোর ম্যানেজারের সঙ্গে বচসায় জড়ানো এবং একে ‘বোকা বোকা নিয়ম’ বলায় এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করল পুলিশ। চমক এখানে নয়। চমক হলো, ওই ব্যক্তি একজন চিকিৎসক। স্টোর ম্যানেজার লিখিত অভিযোগে জানিয়েছেন, চিকিৎসকের আচরণের জেরে তিনি, তাঁর সহকর্মীরা এবং অন্যান্য ক্রেতা — সকলেই বিপন্ন। এমনকী, ওই ডাক্তার তাঁর রোগীদের এই ভাবে (মাস্ক ছাড়াই) চিকিৎসা করেছেন বলে দাবি করেন। এরপরে পুলিশ ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে মহামারী আইনে মামলা দায়ের করে।
ম্যাঙ্গালুরুর ওই মলের একটি ডিপার্টমেন্টাল স্টোরে বিলের লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন চিকিৎসক শ্রীনিবাস কাক্কিলায়া। তখন তাঁকে মাস্ক পরতে বলেন স্টোরের কর্মীরা। সিসিটিভি ক্যামেরার ফুটেজে দেখা গিয়েছে, ব্লু শার্ট ও জিনস পরা চিকিৎসককে অন্য এক ক্রেতাও মাস্ক পরতে অনুরোধ করছেন। তাতে কর্ণপাত না করে নিজের কেনা সামগ্রীগুলি বিলিং কাউন্টারে রাখতে শুরু করেন শ্রীনিবাস। তখন ম্যানেজার তাঁকে মাস্ক পরতে বলেন। তার খানিকক্ষণের মধ্যে চরমে পৌঁছয় বচসা। ম্যানেজার বলেন, আইন অনুযায়ীই ওই ডাক্তারের মাস্ক পরার কথা। তা ছাড়া স্টোরের অন্য কর্মী ও ক্রেতারাও মাস্ক পরে আছেন। আর চিকিৎসক চেঁচিয়ে বলতে থাকেন, এ সব বোকা বোকা নিয়ম। এক সময়ে শ্রীনিবাস বলেন, ‘আমি কাউকে বিপন্ন করছি না। আমার কোভিড হয়ে সেরে গিয়েছে।’ ম্যানেজার পাল্টা বলেন, ‘আপনি বোকার মতো আচরণ করছেন। নিয়ম সকলের জন্য সমান। মাস্ক পরতেই হবে।’ এরপরেই ওই চিকিৎসক জানান, তিনি বিজ্ঞান মেনে চলছেন। বোকা সরকারের বোকামিতে কেউ ঠকুক, তা তিনি চান না। সেই কারণেই মাস্ক ব্যবহারের নিয়ম ‘বোকা বোকা’ বলে তাঁর মত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top