হাজির ভিআইপি-রা, হুড়োহুড়িতে পড়ে গিয়ে জখম বহু, করোনা-বিধি শিকেয় এই মন্দিরে

Ujjain-Mahakaleshwar-temple.jpg

Onlooker desk: বিপুল ভিড়, ধাক্কাধাক্কিতে পদপিষ্ট হয়ে আহত হলেন অনেকে। কোভিড বিধিও উঠল শিকেয়। সোমবার উজ্জ্বয়িনীর (Ujjain) বিখ্যাত মহাকালেশ্বর (Mahakaleshwar temple) শিব মন্দিরে ঘটনাটি ঘটেছে। ভিআইপি-দের আগমন ঘিরে নিয়ন্ত্রণহীন হয়ে ওঠে ভিড়। যার জেরেই এই দুর্ঘটনা।
সোমবার সকালে মন্দিরের চার নম্বর গেটে ঘটনাটি ঘটে। সে দিন মন্দিরে পুজো দিতে সপরিবার হাজির হন মধ্য প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান। পাশাপাশি সে দিনই পুজো দিতে যান উমা ভারতী। তাঁদের দেখতে হুড়হুড়ি শুরু করে দেন একদল দর্শক। ব্যাপক ধাক্কাধাক্কি আরম্ভ হয়ে যায়। নিরাপত্তার বেড়া টপকে হুড়মুড় করে মন্দিরের ভিতরে ঢুকে যান ভক্তরা। এই ধাক্কাধাক্কির মধ্যে অনেকে মহাকালেশ্বর মন্দিরের (Mahakaleshwar temple) ভিতরে পড়ে যান। তাঁদের উপরে গিয়ে পড়েন আরও অনেকে। যার জেরে শিশু, মহিলা-সহ বহু ভক্তের আঘাত লাগে।
এই ধাক্কাধাক্কি-হুড়োহুড়ির ঘটনার ভিডিয়ো ছড়িয়ে পড়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে দেখা যাচ্ছে, পুলিশকর্মীদেরও ধাক্কা দিয়ে এগোচ্ছেন ভক্তরা। রীতিমতো বল প্রয়োগ করছেন তাঁরা। গিজগিজে ভিড়ে করোনা বিধি শিকেয় উঠে নতুন করে সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কাও উড়িয়ে দেওয়া যাচ্ছে না।
মহাকালেশ্বর মন্দির (Mahakaleshwar temple) হল শিবের ১২টি জ্যোতির্লিঙ্গের একটি। করোনার বিধিনিষেধ কাটিয়ে গত মাসেই দরজা খোলে মহাকালেশ্বর মন্দিরের (Mahakaleshwar temple)। তবে ভিতরে ঢুকতে হলে টিকার অন্তত একটি ডোজ নেওয়া চাই। না হলে সাক্ষাতের ৪৮ ঘণ্টা আগের আরটিপিসিআর-এর নেগেটিভর রিপোর্ট প্রয়োজন।
প্রতিদিন সকাল ৬টা থেকে রাত ৮টার মধ্যে সর্বাধিক ৩,৫০০ ভক্ত সমাগমে সায় দেওয়া হয়েছে। দু’ঘণ্টা করে সাতটি টাইম স্লট তৈরি করা হয়েছে। প্রতি স্লটে ঢুকতে পারবেন ৫০০ জন।
আজও সে ভাবেই চলছিল দর্শন। কিন্তু সকালে হাজির হন উমা ভারতী, শিবরাজ চৌহানের মতো ভিআইপি-রা। যার জেরে পরিস্থিতি হাতের বাইরে বেরিয়ে যায়। ভক্তরা বেলাগাম হয়ে পড়েন। প্রশাসনও তাঁদের সামলাতে কার্যত দিশাহারা হয়ে যায় বলে জানিয়েছেন মন্দির (Mahakaleshwar temple) কর্তৃপক্ষ।
উজ্জ্বয়িনীর ডিস্ট্রিক্ট কালেক্টর আশিস সিং জানিয়েছেন, এ দিনের পরিস্থিতি একটু ব্যতিক্রম। ভিড় সাধারণত সোমবার করে বেশি হয়। পরের সোমবার থেকে কী পরিকল্পনা করা যায়, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে যে ক’জনকে মন্দিরে ঢুকতে দেওয়া যাবে, তাঁরাই প্রবেশ করতে পারবেন বলে ইঙ্গিত দেন আশিস। মন্দিরে প্রবেশের ক্ষেত্রে কড়াকড়ির পথে হাঁটতে পারে প্রশাসন।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top