আশঙ্কা সত্যি করে ফের সংক্রমণ বাড়ছে মহারাষ্ট্রে, পশ্চিমবঙ্গে অবশ্য স্বস্তিই

Daily-cases-rise-in-Maharshtra.jpg

মুম্বইয়ের আশেরি ফোর্ট ও লোকাল ট্রেনে ভিড়

Onlooker desk: বিশেষজ্ঞরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন আগে। সেটাই সত্যি হলো। এক ধাক্কায় বেড়ে গেল মহারাষ্ট্রের দৈনিক সংক্রমণ।
সোমবার মহারাষ্ট্রে নতুন করে ৬,২৭০টি কেসের হদিস মিলেছিল। মঙ্গলবার সংখ্যাটা দাঁড়ায় ৮,৪৭০। আর বুধবার এক দিনে নতুন করে সংক্রামিত হলেন ১০,০৬৬ জন।
আনলক শুরু হতেই করোনা-বিধি চুলোয় উঠেছে মহারাষ্ট্রে। যা দেখে ফের সংক্রমণ বাড়ার আশঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন বিশেষজ্ঞরা। এমনিতেই দেশে সবচেয়ে খারাপ পরিস্থিতি হয়েছিল মহারাষ্ট্রে। সামান্যতম বিচ্যুতিও অবস্থা ফের জটিল করে তুলতে পারে বলে আশঙ্কা ছিল। তা যে অমূলক নয়, বুধবার প্রমাণ হলো সেটাই।
এর মধ্যে আবার সরকারের মাথাব্যথা বাড়িয়েছে নতুন ডেল্টা প্লাস স্ট্রেন। দেশে ৪০টি ডেল্টা প্লাস স্ট্রেনের খোঁজ মিলেছে। যার মধ্যে ২২টিই মহারাষ্ট্র থেকে। আক্রান্তরা রত্নগিরি ও জলগাওঁয়ের। এ ছাড়া কেরালা, মধ্যপ্রদেশ, কর্নাটক, তামিলনাড়ু, পাঞ্জাব, জম্মু থেকেও ডেল্টা প্লাস সংক্রমণের খোঁজ পাওয়া গিয়েছে।
পরিস্থিতি যাতে ফের হাতের বাইরে বেরিয়ে না যায়, সে জন্য ব্যবস্থা নিতে বলেছে কেন্দ্র। আক্রান্ত রাজ্যগুলিকে অবিলম্বে কনটেনমেন্টের পথ ধরতে বলা হয়েছে।
গত সপ্তাহেই সতর্ক করেছন মহারাষ্ট্রের বিশেষজ্ঞরা। প্রথম দুই ঢেউয়ে দেশের মধ্যে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত মিলেছে মহারাষ্ট্র থেকেই। এ বার ঢিলে দিলে তৃতীয় ঢেউও একই রকম বা আরও বেশি তাণ্ডব চালাবে। এবং তা অনেক আগে চলে আসবে বলে আশঙ্কা।
কিন্তু তার পরেও ভিড় করা, মাস্ক নিয়ে অসেচনতা দেকা গিয়েছে। কোভিড মোকাবিলায় একটি প্যানেল তৈরি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। তাঁরাই জানিয়েছিলেন, ওই হারে ভিড় হলে সংখ্যা আগেভাগেই বাড়তে শুরু করবে। মঙ্গলবারের পর বুধবার একদিনে দেড় হাজার অতিরিক্ত সংক্রমণ সে দিকেই ইঙ্গিত করছে।
ওই প্যানেলর সদস্য রাহুল পণ্ডিত বলেন, ‘গাণিতিক মডেলে দু’টি ঢেউয়ের মধ্যে ১০০ থেকে ১২০ দিনের গ্যাপ থাকে। কিছু দেশের ক্ষেত্রে ওই গ্যাপ ১৪ থেকে ১৫ সপ্তাহের। আবার অনেক ক্ষেত্রে তা আট সপ্তাহেরও কম হয়।’ অর্থাৎ হাতে দু’মাসেরও কম সময় থাকতে পারে। মহারাষ্ট্রে তৃতীয় ঢেউয়ে অ্যাক্টিভ কেস ৮ লক্ষে পৌঁছতে পারে বলে বিশেষজ্ঞদের সতর্কবাণী। কোভিড-বিধি মানা ও টিকাকরণই এ থেকে মুক্তির একমাত্র উপায়।
অন্যদিকে, পশ্চিমবঙ্গে করোনার দৈনিক সংক্রমণ সামান্য বেড়েছে। তবে তা ২ হাজারের কম। বুধবার রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১,৯২৫ জন। পজিটিভিটি রেট ৩.৩৩ শতাংশ। গত ২৪ ঘণ্টায় পশ্চিমবঙ্গে করোনায় মারা গিয়েছেন ৩৮ জন।
একদিনে সুস্থ হয়েছেন ২,০১৭ জন। কমেছে উত্তর ২৪ পরগনার দৈনিক সংক্রমণ। স্বস্তি মিলেছে কলকাতাতেও। গত ২৪ ঘণ্টায় উত্তর ২৪ পরগনায় ২১৬ এবং কলকাতায় ১৭৮ জন নতুন করে আখ্রান্ত হয়েছেন। এই দুই জেলায় মৃত্যু যথাক্রমে ৯ ও ৭ জনের।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top