আছড়ে পড়বে ঘূর্ণিঝড় ‘তওকতি’, সতর্ক করল আবহাওয়া দপ্তর

A5715E79-6474-4CAA-B6DF-234699AE501D.jpeg

Onlooker desk: দক্ষিণ-পূর্ব আরব সাগরে আজ, শনিবার একটি সাইক্লোনের উৎপত্তি হবে বলে সতর্ককরল আবহাওয়া দপ্তর। আগামী ১৭ তারিখের মধ্যে সেটি শক্তি বাড়িয়ে অতি তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে (ঘণ্টায়১৫০-১৬০ কিলোমিটার বেগে হাওয়া বইবে) পরিণত হবে বলেও জানাচ্ছেন আবহবিদেরা।

লাক্ষাদ্বীপে শুক্রবার একটি নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। আইএমডি একটি সাইক্লোন ওয়াচ চালু করেছে।সেখানে জানানো হয়েছে, ‘তওকতি’ নামে এই সাইক্লোন গুজরাট ও সংলগ্ন পাকিস্তান উপকূলে যাবে।

ক্রমাগত শক্তি বাড়িয়ে চলা এই ঘূর্ণিঝড় লাক্ষাদ্বীপ, কেরালা, তামিলনাড়ুর পর্বতমালা, উপকূলীয়কর্নাটকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত (২০৪ মিলিমিটারের বেশি) ঘটাবে বলে পূর্বাভাসে জানানো হয়েছে। গোয়াএবং দক্ষিণ কোঙ্কন অঞ্চলে ১৭ মে পর্যন্ত মাঝারি বৃষ্টিপাত চলবে বলে আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে।

দপ্তরের আধিকারিকরা জানান, সমুদ্রের উপরিভাগের উত্তপ্ত বাতাস সমুদ্র অঞ্চলে এই ঘূর্ণিঝড়কে শক্তিসঞ্চয়ে সাহায্য করেছে। আগামী ১৮ মে পর্যন্ত গোটা পশ্চিম উপকূল জুড়ে ৫০ থেকে ৭০ কিলোমিটারপর্যন্ত গতিবেগে ঝড়ের সম্ভাবনা।

আরব সাগর ও বঙ্গোপসাগর নিয়ে গঠিত ‘নর্থ ইন্ডিয়ান ওশান রিজিয়ন’ ঘূর্ণিঝড় প্রবণ। মূলত মে ওনভেম্বরে ঝড়ের সম্ভাবনা বেশি থাকে। এক বছরে গড়ে চারটি ঘূর্ণিঝড় হয় এই এলাকায়, যার তিনটিরইউৎস বঙ্গোপসাগর। তবে গত কয়েক বছরে আরব সাগরের তাপমাত্রা বাড়ার ফলে সেখানেও ঘূর্ণিঝড়েরউৎপত্তি হচ্ছে। গত বছর জুনে ঘূর্ণিঝড় নিসর্গের দাপটে মহারাষ্ট্রের রায়গড়ে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top