ধসে অন্তত ৩৬ জনের মৃত্যু মহারাষ্ট্রে, হেলিকপ্টারে চলছে উদ্ধারকাজ

Raigad-landslide.jpg

Onlooker desk: লাগাতার ভারী বর্ষণে ভূমিধসে (landslide) মৃত্যু হল অন্তত ৩৬ জনের। ঘটনাটি মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) রায়গড়ের। রাজ্যের কোঙ্কন রেঞ্জে গত ক’দিন ধরে নাগাড়ে বৃষ্টি হয়ে চলেছে। যাক জেরে হাজার হাজার মানুষ বন্যা ও ধসের (landslide) জেরে আটকে পড়েছেন। রায়গড়ের বন্যা কবলিত এলাকা থেকে দুর্গতদের উদ্ধারে ব্যবহার করা হচ্ছে হেলিকপ্টার।
এই পরিস্থিতিতে আটকে পড়া বাসিন্দাদের ছাদ বা কোনও উঁচু জায়গায় উঠে যাওয়ার আবেদন জানিয়েছে প্রশাসন। যাতে উদ্ধারকারী দল তাঁদের সহজে চিহ্নিত করতে পারে। গত ৪০ বছরে এ বারই সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হচ্ছে মহারাষ্ট্রে (Maharashtra)।
তিনটি পৃথক ধসে মৃত্যুগুলি হয়েছে। তিনটি ধসই (landslide) নামে বৃহস্পতিবার। এক জায়গায় ৩২টি, আর একটি জায়গা থেকে চারটি দেহ উদ্ধার হয়। ঘটনার উপরে নজর রেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আজ, শুক্রবার কথা বলেছেন তিনি।
ধসের জেরে ৩৬ জনের মৃত্যুতে দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি জানান, বৃষ্টিতে মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি কী দাঁড়ায়, তার উপরে নজর রাখা হচ্ছে। প্রয়োজনীয় সাহায্য দেওয়া হচ্ছে ক্ষতিগ্রস্তদের।
রায়গড়ের প্রতিবেশী জেলা রত্নগিরিতে ২৪ ঘণ্টা ধরে অবিরাম ভারী বৃষ্টি হয়। যার জেরে বশিষ্ঠি নদীর জল উপচে যায়। রত্নগিরির উপকূলীয় চিপলুন শহরে জলস্তর ১২ ফুট উচ্চতা পর্যন্ত উঠে যায়। বহু নিচু বাড়িঘর জলে যায় জলের তলায়। শহরে বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে। ফোনেও যোগাযোগের অবস্থা খারাপ। একটি কোভিড হাসপাতালের চারপাশ জলে ভরে যায়। রোগীদের নৌকা করে নিরাপদ আশ্রয়ে সরিয়ে নিয়ে যেতে দেখা যায়।
নৌসেনার সাতটি, স্থানীয় স্তরের ১২টি, উপকূলরক্ষী বাহিনীর দু’টি এবং জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর তিনটি দল বিচ্ছিন্ন এলাকাগুলিতে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছে। নৌসেনার দলগুলি রবার বোট, লাইফ জ্যাকেট এবং লাইফ বয়া নিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলিতে উদ্ধারকাজের চেষ্টা জারি রেখেছে। জলমগ্ন এলাকাগুলিতে আটকে পড়া বাসিন্দাদের আকাশপথে উদ্ধারের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। পাশাপাশি নৌসেনার প্রশিক্ষিত ডুবুরিরা বিশেষ যন্ত্রপাতির সাহায্যে তল্লাশি অভিযান চালাচ্ছেন।
আবহাওয়া দপ্তর মহারাষ্ট্রের (Maharashtra) বেশ কিছু এলাকায় রেড অ্যালার্ট জারি করেছে। আগামী কয়েকদিন ভারী বৃষ্টি চলবে বলে জানিয়েছে তারা।
একদিকে করোনার দাবাপি, অন্যদিকে বৃষ্টির জেরে এই প্রাকৃতিক দুর্যোগ। দু’য়ের জেরে বিপর্যস্ত মহারাষ্ট্র (Maharashtra)। কোভিড বা অন্যান্য রোগে আক্রান্তদের যাতে চিকিৎসায় গাফিলতি না-হয়, তা নিশ্চিত করতে বলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top