ফের উত্তর প্রদেশে দলিত কন্যাকে গণধর্ষণের অভিযোগ, অগ্নিমিত্রাকে কটাক্ষ করে টুইট নুসরাতের

Bareilly-gang-rape.jpg

Onlooker desk: স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে স্কুটিতে চড়ে বেরিয়েছিল বছর ১৮-র মেয়েটি। সেই সময় তাদের উপরে চড়াও হয়ে ছ’জন মিলে দলিত ওই কন্যাকে ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ উঠল। এ বারও ঘটনাস্থল উত্তরপ্রদেশ। বরেলির ভগবানপুর ধিমরি গ্রামে ঘটনাটি ঘটেছে। নিগৃহীতা তরুণী আহত। তিনি ট্রমাও কাটিয়ে উঠতে পারেননি।
ঘটনাটি ঘটে গত ৩১ মে। লকডাউনে বাড়ি থেকে লুকিয়েই বেরিয়েছিলেন ওই তরুণী ও তাঁর বন্ধুরা। ঘটনাটি ঘটার পরে ভয়ে কিছুদিন মুখ খুলতে পারেননি। শেষ পর্যন্ত শনিবার বাড়ির লোককে সব জানান তিনি। মুখ খুললে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন তরুণী। পরে দাদা ও স্কুলের বন্ধুদের সঙ্গে ইজ্জতনগর থানায় গিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন নিগৃহীতা।
অভিযোগ পাওয়া মাত্রই বরেলির এসএসপি রোহিত সিং সজ্জন মেয়েটির সঙ্গে ওই গ্রামে তদন্তকারী দল পাঠান। অভিযুক্তরা প্রত্যেকে ওই গ্রামের বাসিন্দা। আপাতত তারা গ্রাম ছেড়ে পালিয়েছে। পুলিশের একাধিক দল তাদের খুঁজছে।


এই ঘটনায় সদ্য নির্বাচিত বিধায়ক, বিজেপির অগ্নিমিত্রা পলকে ঠুকে টুইটারে একটি পোস্ট দিয়েছেন তৃণমূলের তারকা-সাংসদ নুসরাত জাহান। রাজনৈতিক ফায়দা ছাড়া এমন ঘটনায় অগ্নিমিত্রা মুখ খোলেন না বলে কটাক্ষ নুসরাতের।
অভিযোগে তরুণী জানিয়েছেন, একাধিক বাইকে বেরিয়েছিলেন তাঁরা। ওই গ্রামটির পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় কয়েকজন লোক তাঁদের দাঁড় করায়। পুলিশের কাছে তিনি জানিয়েছেন, তিনজন তরুণীকে টেনেহিঁচড়ে স্কুটি থেকে নামায়। বাকিরা তাঁর বন্ধুদের হেনস্থা করতে শুরু করে। এক বন্ধু পালাতে পারলেও অন্যজম গুরুতর জখম হয়ে হুঁশ হারায়।
সেই সুযোগে দুষ্কৃতীরা তরুণীকে টেনে নিয়ে যায় পাশের পরিত্যক্ত মাঠে একটি শুকনো ক্যানালের ধারে। সেখানে ছ’জন দফায় দফায় তাঁকে রেপ করে বলে তরুণীর অভিযোগ। তিনি সাহায্যের জন্য চিৎকার করলেও কারও দেখা মেলেনি। পরে হত্যার হুমকিও দেয় তারা। পুলিশকে অভিযুক্তদের নামও জানিয়েছেন তরুণী। তাঁর দাবি, অভিযুক্তরা একে অন্যকে ধর্মেন্দ্র, অনুজ, বিশাল, নীরজ, অমিত এবং নরেশ বলে ডাকছিল। এদের মধ্যে নরেশই নাটের গুরু বলে প্রাথমিক ভাবে মনে করা হচ্ছে।
মেয়েটির সঙ্গে তাঁর যে বন্ধু ছিলেন, তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, অভিযুক্তরা ফোন কেড়ে নিয়ে মারধর শুরু করে। কিছু বুঝে ওঠার আগে বেধড়ক মারে বেহুঁশ হয়ে যান তিনি। তাই বান্ধবীকে বাঁচানোর চেষ্টাও করতে পারেননি। এসএসপি জানিয়েছেন, তাঁরা গণধর্ষণও এস-এসসি অ্যাক্টে ছ’জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। শীঘ্রই অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। মেয়েটিকে মেডিক্যাল চেক আপে পাঠানো হয়েছে। কোর্টে তাঁর বয়ান নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top