করোনায় মৃত্যু ৪০০ কর্মীর, প্রধানমন্ত্রীর কাছে টিকার আবেদন কোল ইন্ডিয়ার

Coal-India-Covid-19.jpg

প্রতীকী চিত্র

looker desk: শ’চারেক কর্মচারীর মৃত্যুর প্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর কাছে তাঁদের কর্মীদের টিকাকরণে গতি আনার আবেদন জানাল কোল ইন্ডিয়া। এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন হাজার ছয়েক কর্মচারী। এখনও চিকিৎসা চলছে এক হাজারের।
বিশ্বের এক নম্বর কোল মাইনার কোল ইন্ডিয়ার কর্মচারীর সংখ্যা ২ লক্ষ ৫৯ হাজারের কাছাকাছি। কর্মী ও তাঁদের পরিবারের জন্য যাতে টিকার অন্তত ১০ লক্ষ ডোজ দেওয়া হয়, সে জন্য সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছে কোল ইন্ডিয়া। এ পর্যন্ত ৬৪ হাজার কর্মচারীর ভ্যাকসিনেশন হয়েছে। কিন্তু কর্মী সংগঠনগুলি টিকাকরণে গতি আনার জন্য চাপ দিচ্ছে। তার প্রেক্ষিতে ভ্যাকসিনের কাজে গতি আনতে উদ্যোগী কর্তৃপক্ষও।
খনির কর্মচারীরা অতিমারীর অন্যতম প্রথম সারির যোদ্ধা। দীর্ঘ লকডাউন বা প্রবল সংক্রমণের মুখেও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে ডিউটি করে গিয়েছেন তাঁরা। ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে একের পর এক কর্মচারীর মৃত্যু সত্ত্বেও কাজে ঢিলে দেননি দেশের ৭০ শতাংশ বিদ্যুৎ উৎপাদনের সঙ্গে জড়িত এই মানুষগুলো।
কোল ইন্ডিয়া জানিয়েছে, তাদের কর্মচারীদের মধ্যে বেশিরভাগেরই মৃত্যু হয়েছে ভয়াবহ এই দ্বিতীয় ঢেউয়ে। এখন পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতে শুরু করলেও সংস্থার তরফে অস্থায়ী ভাবে আরও চিকিৎসাকর্মী নিয়োগ করা হচ্ছে, ব্যবস্থা করা হচ্ছে অক্সিজেনেরও। যাতে করোনা ফের মারাত্মক আকার নিলে তার মোকাবিলা করা সম্ভব হয়।
অখিল ভারতীয় খাদান মজদুর সঙ্ঘের সাধারণ সম্পাদক সুধীর ঘুরদে বলেন, ‘করোনায় লাগাম পরাতে সংস্থার উচিত কর্মচারী ও তাঁদের পরিবারের লোকেদের গণহারে টিকার ব্যবস্থা করা।’
তবে কোল ইন্ডিয়ার ক্ষেত্রে একটা সুবিধা হলো, এখানে বদ্ধ জায়গায় অনেক শ্রমিককে একসঙ্গে কাজ করতে হয় না। সংস্থার ৯০ শতাংশেরও বেশি উৎপাদন হয় খোলামুখ খনি থেকে। যেখানে ব্লাস্টিংয়ের সাহাযে কয়লা উত্তোলন করে পরে তা শ্রমিকদের সাহায্যে ডাম্পারে তোলা হয়।
করোনাকালে সবরকম বিধি কঠোর ভাবে পালন করা হয়েছে বলে বারবারই জানিয়েছে কোল ইন্ডিয়া। হাত ধোয়া বা স্যানিটাইজ করা, মাস্ক পরা এবং যন্ত্রপাতিরও নিয়মিত স্যানিটাইজেশনে জোর দিয়েছেন কর্তৃপক্ষ। তারপরেও ভাইরাস এড়ানো যায়নি। সবচেয়ে বেশি প্রভাব পড়েছে সাউথ ইস্টার্ন কোলফিল্ডস লিমিটেডে। সেটাই কোল ইন্ডিয়ার সবচেয়ে বড় উৎপাদনকারী ইউনিট। মোট মৃত্যুর এক তৃতীয়াংশই সাউথ ইস্টার্ন কোলফিল্ডস লিমিটেডে হয়েছে বলে খবর।
করোনায় মৃত কর্মীদের পরিবারকে ১৫ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ এবং একজন আত্মীয়কে চাকরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছে কোল ইন্ডিয়া। তারপরেও কর্মচারীদের জন্য নিরাপত্তা বিধি জোরদার করার দাবি জানিয়েছে সংগঠনগুলি। তার মধ্যে একটি হলো কর্মচারী ও তাঁদের পরিবারের টিকাকরণের ব্যবস্থা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top