বেলা শেষ ‘বিমলার’, ৭১-এ প্রয়াত অভিনেত্রী স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত

Swatilekha-Sengupta.jpg

কলকাতা: চলে গেলেন সত্যজিৎ রায়ের বিমলা। অভিনেত্রী, নাট্যকর্মী স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত (Swatilekha Sengupta) আজ, বুধবার প্রয়াত হলেন। বয়স হয়েছিল ৭১ বছর। দীর্ঘ সময় ধরেই কিডনির সমস্যায় ভুগছিলেন তিনি। ডায়ালিসিও চলছিল। গত তিন সপ্তাহ ধরে আইসিইউ-তে চিকিৎসাধীন থেকেছেন স্বাতীলেখা (Swatilekha Sengupta)। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বেসরকারি হাসপাতালেই মারা গেলেন তিনি। গত মাসে ৭১ পূর্ণ করেছিলেন স্বাতীলেখা (Swatilekha Sengupta)।
অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন মাসকয়েক আগেও। সেই কারণে তখন একবার হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। কিন্তু সে বার চিকিৎসায় সাড়া দিয়ে সুস্থ হয়েছিলেন। বাড়িও ফিরেছিলেন প্রবীণ শিল্পী স্বাতীলেখা (Swatilekha Sengupta)। কয়েক দিন আগে ফের অসুস্থ হয়ে পড়েন। সেই কারণে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয় তাঁকে। কিন্তু এ বার আর বাড়ি ফেরা হলো না স্বাতীলেখার। ভারত-বাংলাদেশ, দু’দেশের মঞ্চেই তাঁর অভিনয় বহু মানুষের মন জয় করেছে। সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি, পশ্চিমবঙ্গ নাট্য অ্যাকাডেমির মতো বেশ কিছু সম্মান পেয়েছেন।
১৯৭০-এ থিয়েটার জীবন শুরু স্বাতীলেখার। তখন তাঁর ২০ বছর বয়স। অভিনয় শুরু করেন এলাহাবাদে। পরিচালক এ সি বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশনায় কাজে হাতেখড়ি। পরে বি ভি করন্থ, তাপস সেন, খালেদ চৌধুরীদের সঙ্গে কাজ করেন। তাঁদের সুযোগ্য নির্দেশনায় ধীরে ধীরে হয়ে ওঠেন বাংলা অভিনয় জগতের সেরা শিল্পীদের একজন।
এরপরে কলকাতায় পাড়ি স্বাতীলেখার। থিয়েটার দল নান্দীকারে নাম লেখানো। সেটা ১৯৭৮ সাল। নান্দীকারে কাজ শুরু করেন রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্তর তত্ত্বাবধানে। পরে যাঁকে বিয়ে করেন স্বাতীলেখা (Swatilekha Sengupta)। চট্টোপাধ্যায় থেকে হয়ে ওঠেন সেনগুপ্ত। রুদ্রপ্রসাদ-স্বাতীলেখার মেয়ে সোহিনীও জনপ্রিয় অভিনেত্রী। মায়ের মৃত্যুর পর শোকস্তব্ধ সোহিনী সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘মা যেন সকলের মনে থাকেন।’
মঞ্চের পাশাপাশি রুপোলি পর্দায় তাঁর আত্মপ্রকাশ ১৯৮৪-তে। ‘ঘরে বাইরে’র বিমলা চরিত্রে, সত্যজিৎ রায়ের নির্দেশনায়। সহ-অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় এবং ভিক্টর বন্দ্যোপাধ্যায়। স্বাধীনতা আন্দোলনের প্রেক্ষাপটে রবীন্দ্রনাথের উপন্যাস। কেন্দ্রীয় চরিত্র বিমলার নানা ‘শেড’। সে সবই নিদারুণ দক্ষতায় রুপোলি পর্দায় চিত্রায়িত করলেন স্বাতীলেখা (Swatilekha Sengupta)। নাট্যমঞ্চে পাঞ্চজন্য, নাচনী, বিপন্নতা, পাতা ঝরে যায় ইত্যাদি নাটক আজও মানুষের মনে রয়েছে।
কিন্তু তারপরে তাঁকে আর ছায়াছবিতে দেখা যায়নি। প্রায় ৩১ বছর পর ফের সৌমিত্রর সঙ্গেই রুপোলি পর্দায় ফেরেন স্বাতীলেখা (Swatilekha Sengupta)। প্রযোজক-পরিচালক নন্দিতা রায় ও শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের হাত ধরে। ছবির নাম ‘বেলা শেষে’। ছবি প্রবল জনপ্রিয় হয়। একপর ‘বেলাশুরু’ ছবিতে অভিনয় করেন তাঁরা। কিন্তু তা মু্ক্তির আগেই চলে গেলেন সৌমিত্র, স্বাতীলেখা দু’জনেই। গত বছর নভেম্বরে মারা যান সৌমিত্র। স্বাতীলেখার (Swatilekha Sengupta) ধর্মযুদ্ধ নামে আরও একটি ছবি মুক্তির অপেক্ষায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top