‘কী দরকার ছিল?’ স্বামীকে দেখে কেঁদে ফেললেন শিল্পা শেঠি

shilpa-shetty-raj-kundra.jpg

Onlooker desk: বলিউড অভিনেত্রী শিল্পা শেঠির স্বামী তথা ব্যবসায়ী রাজ কুন্দ্রাকে (Raj Kundra) ১৪ দিনের জেল হেফাজতে পাঠাল মুম্বইয়ের একটি লোকাল কোর্ট। তাঁর সঙ্গে জেল হেফাজতে পাঠানো হয়েছে তাঁর সংস্থার আইটি হেড রায়ান থর্পকেও।
গত ১৯ তারিখ গ্রেপ্তারির পর গত শুক্রবার সন্ধেয় তদন্তের প্রয়োজনে তাঁকে বাড়ি নিয়ে যাওয়া হয়েছিল। পুলিশ সূত্রের খবর, সেই সময় স্বামীকে দেখে ভেঙে পড়েন শিল্পা। চিৎকার করে বলেন, ‘আমাদের কী নেই? এ সব করার কী দরকার ছিল?’ রাজের বিরুদ্ধে পর্নোগ্রাফি প্রযোজনা ও মোবাইল অ্যাপে তা স্ট্রিমিংয়ের অভিযোগ।
গত শুক্রবার রাজ-শিল্পার বাংলোয় তল্লাশি চালাতে গিয়ে শিল্পা শেঠির (Shilpa Shetty) বয়ানও নেন তদন্তকারীরা। পুলিশ সূত্রের খবর, স্বামীকে দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন শিল্পা (Shilpa Shetty)। বলেন, ‘পরিবারের সুনাম ধুলোয় মিশে গেল। ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ বাতিল করা হচ্ছে। এ জন্য অনেক প্রজেক্ট ছেড়ে দিতে হয়েছে আমাকে। আর্থিক ক্ষতিও হচ্ছে প্রচুর।’
গত বছর রাজ কুন্দ্রার বিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজের অধিকর্তার পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন শিল্পা। কেন তিনি ওই পদ ছেড়েছিলেন, তা তদন্ত করে দেখছে পুলিশ। তাঁর আর্থিক নথিপত্রেরও অডিট করা হচ্ছে।
পুলিশ জানিয়েছে, এই মামলায় শিল্পার (shiplap Shetty) জড়িত থাকার কোনও প্রমাণ এ পর্যন্ত মেলেনি। দু’বার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে তাঁকে। একবার থানায়, একবার গত শুক্রবার বাড়িতে। রাজের (Raj Kundra) পর্ন-কাণ্ডের ব্যাপারে তিনি আদৌ কিছু জানতেন কি না, তা-ও পরিষ্কার নয়।
গত ১৯ তারিখ ধরা পড়ার পর প্রথমে ২৩ জুলাই পর্যন্ত পুলিশি হেফাজতে পাঠানো হয় রাজকে (Raj Kundra)। হেফাজতের মেয়াদ বাড়িয়ে পরে ২৭ জুলাই পর্যন্ত করা হয়। তাঁর বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ।
এ দিকে, তাঁকে যে গ্রেপ্তার করা হতে পারে, তার আগাম আঁচ রাজ (Raj Kundra) পেয়েছিলেন বলে একটি সূত্রের দাবি। মার্চ মাসে পর্নোগ্রাফি র‍্যাকেটের ন’জনকে গ্রেপ্তার করে মুম্বই পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চ। গ্রেপ্তারি এড়াতে তখন ‘প্ল্যান বি’ প্রস্তুত রাখেন রাজ (Raj Kundra)।
তদন্তকারী এক অফিসার সংবাদমাধ্যমে বলেন, ‘মার্চেই ফোন নম্বর বদলে ফেলেন অভিযুক্ত। যাতে কোনও ডেটা রিকভার করা না-যায়। ক্রাইম ব্রাঞ্চের আধিকারিকরা যখন তাঁর পুরোনো ফোনের ব্যাপারে জানতে চান, তখন তিনি বলেছিলেন, সেটি ফেলে দিয়েছেন। তদন্তকারীদের ধারণা, ওই ফোনে বহু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে। পুলিশ সেটির খোঁজ করছে।’
এরই মধ্যে আবার তিন লক্ষ টাকা প্রতারণার মামলা ঠোকা হয়েছে রাজের (Raj Kundra) বিরুদ্ধে। আহমেদাবাদের এক ব্যবসায়ী এই মর্মে অভিযোগ জানিয়েছেন মুম্বই ক্রাইম ব্রাঞ্চ ও সাইবার পুলিশে। একটি অনলাইন গেম এজেন্সির ডিস্ট্রিবিউটর করার টোপে তাঁর থেকে রাজ (Raj Kundra) ওই টাকা নেন বলে অভিযোগ।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top