ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের শিরোপা তেলঙ্গানার রামাপ্পা মন্দিরের

Polish_20210726_015115230.jpg

Onlooker desk: তেলঙ্গানার ওয়ারাঙ্গলের পালামপেটের রামাপ্পা মন্দির (Ramappa Temple) ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের তকমা পেল। রবিবার কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক এ কথা জানিয়েছে। এই সম্মান দেশের জন্য বড় কূটনৈতিক জয়।
কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রী একটি টুইটে এ কথা জানান। তিনি লেখেন — গোটা দেশের তরফে, বিশেষত তেলঙ্গানার মানুষের পক্ষ থেকে আমি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে তাঁর সমর্থন ও সহযোগিতার জন্য কৃতজ্ঞতা জানাই।
রামাপ্পা মন্দির তৈরি হয় ত্রয়োদশ শতাব্দীতে। স্থপতি রামাপ্পার নামে মন্দিরটির নামকরণ করা হয়। ২০১৯-এর ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের জন্য কেবল এই মন্দিরটির নামই প্রস্তাব করেছিল কেন্দ্র। সেই স্বীকৃতি মেলায় অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেন মোদীও। তিনি লেখেন — অসাধারণ! প্রত্যেককে, বিশেষত তেলঙ্গানার মানুষকে অভিনন্দন। আইকনিক রামাপ্পা মন্দির (Ramappa Temple) কাকতিয় বংশের অসাধারণ শিল্পের পরিচায়ক। এই রাজকীয় মন্দির দেখতে যাওয়ার জন্য সকলকে অনুরোধ করব। কী অসাধারণ এই মন্দির, তা চাক্ষুষ করাও এক অভিজ্ঞতা।
চিনের ফুঝৌ-তে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ কমিটির (ডব্লিউএইচসি) অনলাইন বৈঠক চলছে। সেখানেই এই সিদ্ধান্তে সিলমোহর দেওয়া হয়। নরওয়ে এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করলেও রাশিয়া সমর্থন জানায়। ১৭টি দেশের সমর্থন নিয়ে ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ লিস্টে নাম তোলে রামাপ্পা মন্দির (Ramappa Temple) ।
রামাপ্পা-সহ কাকতিয় বংশের বিভিন্ন মন্দিরকে এই তালিকায় রাখার জন্য মনোনীত করা হয় ২০১৪-য়। ২০২০-তেই তালিকায় নাম ওঠার কথা ছিল রামাপ্পার। কিন্তু কোভিড-১৯ অতিমারীর কারণে ডব্লিউএইচসি-র বৈঠক পিছিয়ে যায়।

Ramappa Temple
কাকতিয় রাজা গণপতিদেবের সেনাপতি রুদ্র মন্দিরটি নির্মাণ করান। হায়দরাবাদের ২২০ কিলোমিটার দূরত্বে মূল মন্দিরটি ঘিরে রয়েছে কাটেশ্বরায়া এবং কামেশ্বরায়া মন্দির।
মন্দিরের ভিত ‘স্যান্ডবক্স টেকনিকে’ তৈরি। মেঝে গ্রানাইটের, স্তম্ভ ব্যাসল্টের। মন্দিরের নিম্নভাগে রয়েছে লাল বালিপাথর। সাদা গোপুরমটি এতটাই হাল্কা ইটে তৈরি, বলা হয় সেগুলি জলে ভাসে। অসাধারণ শৈলি এবং স্থাপত্যের বৈশিষ্ট্যের কারণে এই মন্দিরের খ্যাতি।
তবে অতীতে বেশ কিছু সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছে রামাপ্পা মন্দির (Ramappa Temple) । ইন্টারন্যাশনাল কাউন্সিল অন মনুমেন্টস অ্যান্ড সাইটস (আইকোমস) ২০১৯-এ প্রাথমিক পরিদর্শনের পর এই মন্দিরের ন’টি খামতির কথা জানায়। কিন্তু রবিবার সব খামতি পেরিয়ে হেরিটেজের মুকুট ওঠে রামাপ্পার মাথায়।
শিরোপা যাতে আসে, সে জন্য ভোট দানকারী দেশগুলির উপরে ভারত কূটনৈতিক কৌশল প্রয়োগ করে। রবিবারের ডব্লিউএইচসি-র বৈঠকে রাশিয়া ২২.৭ নম্বর রুলের কথা উল্লেখ করে। যা অনুযায়ী আইকোমসের পর্যবেক্ষণের প্রেক্ষিতে ভারত নিজেদের মত জানাত পারে। আইকোমসের বক্তব্য ছিল, ভারতের মনোনয়ন-পরীক্ষার দিন পিছোনো হোক। শেষ পর্যন্ত অবশ্য তা হয়নি। বাউন্ডারিতে সামান্য সংশোধন ঘটানোর পক্ষে সায় দেয় বেশিরভাগ দেশ। ১৭টি দেশের সমর্থনে রামাপ্পাকে হেরিটেজ ঘোষণা করা হয়।
এ দিন ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের তালিকা প্রকাশ করা হয়। চিনের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের কুয়ানঝৌ শহরের ২২টি দর্শনীয় স্থল তালিকায় স্থান পেয়েছে। তার মধ্যে একটি হিন্দু মন্দিরও রয়েছে।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top