ডেল্টা প্লাসেই কি তৃতীয় ঢেউ? ঘনাচ্ছে চিন্তার মেঘ

CORONA-WORLD1.jpg

Onlooker desk: ডেল্টা স্ট্রেনে দ্বিতীয় ঢেউয়ের দাপাদাপি সদ্য কমছে। এরই মধ্যে মাথাচাড়া দিচ্ছে ডেল্টা প্লাস। যা আরও বেশি সংক্রামক। ডেল্টারই একটি মিউট্যান্ট স্ট্রেন ডেল্টা প্লাস। দেশে ইতিমধ্যে ২২ জনের শরীরে তার হদিস মিলেছে। মূলত মহারাষ্ট্রে রয়েছেন এই সংক্রামিতরা। মহারাষ্ট্রের বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, নতুন ভ্যারিয়ান্টের হাত ধরে তৃতীয় ঢেউ আসতে পারে।
ন্যাশনাল এক্সপার্ট গ্রুপ অন ভ্যাকসিন অ্যাডমিনিস্ট্রেশন-এর প্রধান ভি কে পল এ ব্যাপারে সতর্ক করেছেন। তিনি বলেন, ‘রাজ্যগুলির পাবলিক হেলথ রেসপন্স নিয়ে কেন্দ্র একটি নির্দেশিকা পাঠিয়েছে। আমরা চাই না এই ছোট সংখ্যাটা বিরাট আকার নিক।’
ডেল্টা প্লাস সংক্রমণের সবচেয়ে বেশি কেস মহারাষ্ট্রে। তারা তৃতীয় ঢেউয়ের জন্য প্রস্তুত হচ্ছে। ধারণার আগেই তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা। যাঁদের শরীরে এই ভাইরাসের খোঁজ মিলেছে তাঁদের ট্রাভেল হিস্ট্রি ও টিকাকরণের বিষয়ে খোঁজখবর চলছে।
উদ্বেগের মূল কারণ হলো, এই স্ট্রেনের ব্যাপারে বিশেষ কিছু জানা নেই। তাই ‘অজানা শত্রু’কে নিয়ে মাথাব্যথাও বেশি। ভি কে পল জানান বর্তমানে ন’টি দেশে এই স্ট্রেনের দেখা মিলেছে। ভারত বাদে বাকিগুলি হলো আমেরিকা, ইংল্যান্ড, পর্তুগাল, সুইৎজারল্যান্ড, জাপান, পোল্যান্ড, রাশিয়া এবং চিন।
কোভিড নিয়ে মহারাষ্ট্রের টাস্ক ফোর্সের অন্যতম সদস্য ওম শ্রীবাস্তবও এক কথা জানিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এরপরে এই স্ট্রেন কী করবে, সেটা আমাদের জানা নেই। এটাই উদ্বেগের কারণ। এ পর্যন্ত এক একটি স্ট্রেন এক এক রকম আচরণ করেছে।’ যশলোক হাসপাতালের ইনফেকশাস ডিজিজেস ইউনিটের প্রধান তিনি। ওম আরও বলেন, ‘আমরা জানি, পৃথিবীর অন্যান্য প্রান্তে ডেল্টা ওয়েভ কতখানি সংক্রমণ ছড়াচ্ছে। অতি কম সময়ে তা বহু মানুষকে সংক্রামিত করতে পারে।’
প্রত্যেক জেলা থেকে ১০০টি করে নমুনার জিনোম সিকোয়েন্সিং করা হয় মহারাষ্ট্রে। সেখানকার স্বাস্থ্যমন্ত্রী রাজেশ তোপে বলেন, ‘১৫ মে থেকে এ পর্যন্ত সাড়ে সাত হাজার নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। যার মধ্যে ২১টি ডেল্টা প্লাস স্ট্রেন।’ বর্তমানে ডেল্টার হদিস মিলেছে ৮০টি দেশে। ডেল্টা প্লাসও অত্যন্ত সংক্রামক বলে পরিগণিত। এমনকী, কোভিড চিকিৎসার বর্তমান প্রোটোকলে তাতে সাড়া না-ও মিলতে পারে। বর্তমান টিকাগুলি ডেল্টা প্লাসের বিরুদ্ধে কতখানি কার্যকর, তা নিয়ে সংশয় রয়েছে।
সরকার অবশ্য জানিয়েছে কোভ্যাক্সিন এবং কোভিশিল্ড ডেল্টার বিরুদ্ধে কার্যকর। তবে সেগুলি ডেল্টা প্লাসের বিরুদ্ধে কাজ করবে কি না, তা পরে জানানো হবে। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য সচিব রাজেশ ভূষণ বলেন, ‘শীঘ্রই আরও তথ্য জানানো হবে। ডেল্টা প্লাস বর্তমানে ভ্যারিয়ান্ট অফ ইন্টারেস্ট। ভ্যারিয়ান্ট অফ কনসার্ন এখনও নয়।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top