টিকায় কমে না পুরুষের যৌনক্ষমতা, জানাচ্ছে গবেষণা

sperm.jpg

Onlooker desk: বিষয়টি নিয়ে অনেক চর্চা, জল্পনা হয়েছে। বিস্তর প্রশ্নও উঠেছে। কিন্তু সমীক্ষা (study) জানাচ্ছে, টিকার জেরে পুরুষের যৌন উৎপাদন ক্ষমতা বিন্দুমাত্র ক্ষতিগ্রস্ত হয় না। বরং শুক্রাণুর সংখ্যা, সেমেন ভলিউম বৃদ্ধি পায়। আজ, শুক্রবার একটি সমীক্ষার রিপোর্ট প্রকাশিত হয়েছে। যে ধরনের সমীক্ষা আগে হয়নি বলে দাবি। সেখানে দেখা গিয়েছে, টিকা নেওয়ার পরে শুক্রাণুর উপরে তার কোনও প্রভাব পড়েনি।
৪৫ জন পুরুষকে নিয়ে সমীক্ষাটি করেছে ইউনিভার্সিটি অফ মায়ামি। টিকাকরণের আগে ও পরে তাঁদের শারীরিক পরীক্ষা হয়। দেখা গিয়েছে, পুরুষের যৌন উৎপাদন ক্ষমতা এতে প্রভাবিত হয় না। বরং এ নিয়ে যাঁরা সন্দিহান, তাঁরা মিথ্যে ভয় পাচ্ছেন।
এই ৪৫ জনের মধ্যে ২১ জনকে দেওয়া হয় ফাইজার-বায়োএনটেক ভ্যাকসিন। ২৪ জনকে দেওয়া হয় মডার্নার টিকা। দেখা গিয়েছে, দ্বিতীয় ডোজের পর স্পার্ম কনসেনট্রেশন, সেমেন ভলিউম ইত্যাদি বেড়েছে। রিপোর্টটি জার্নাল অফ আমেরিকান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনে (জামা) প্রকাশিত হয়েছে।
গবেষকরা এই ক্ষমতা বৃদ্ধির পিছনে কিছু কারণ বলছেন। যেমন, এই ফারাক আদতে ‘রুটিন’। তা ছাড়া, দ্বিতীয় বার নমুনা নেওয়ার আগে দীর্ঘদিন যৌন মিলন থেকে দূরে রাখা হয়েছিল। রিপোর্টে লেখা হয়েছে — স্বল্প সংখ্যক স্বাস্থ্যবান লোকের উপর সমীক্ষাটি (study) চালানো হয়। দেখা গিয়েছে, শুক্রাণুর সংখ্যার নিরিখে ভ্যাকসিনের কোনও প্রভাব পড়ে না। কারণ টিকায় থাকে এমআরএনএ। আসল ভাইরাসটি নয়। তাই যৌন উৎপাদন ক্ষমতায় এর প্রভাব পড়ার কথা নয়।
কোভিডের কোনও টিকাতেই জীবিত ভাইরাসটি ব্যবহার করা হয় না। এমনকী অ্যাডিনোভাইরাস ভেক্টর ডোজেও তা থাকে না। অর্থাৎ কোভিশিল্ড বা স্পুটনিকেও তা ব্যবহৃত নয়। এ সব ক্ষেত্রে অ্যাডিনোভাইরাসটিকে মডিফাই করে নেওয়া হয়। তা থেকে কোনও ইনফেকশনের আশঙ্কা থাকে না। এটি মূলত করোনার গায়ে থাকা স্পাইক মোকাবিলার লক্ষ্যে কাজ করে।
গত বছর নভেম্বরে একদন বিজ্ঞানী জানান, কোভিডে বন্ধ্যাত্ব বাড়ে। চিনা গবেষকরা এ ক্ষেত্রে ছ’টি দেহ থেকে নমুনা সংগ্রহ করেন। ওই ছ’জন পুরুষেরই করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছিল। দেখা যায়, টেস্টিস এবং এপিডেমিসে প্রচুর কোষের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া কোভিড থেকে সেরে ওঠার পরেও যৌন ক্ষমতা হ্রাসের আশঙ্কা জানায় একটি পরিসংখ্যান। তাতে বলা হয়, ৩৯ শতাংশের স্পার্ম কাউন্ট কমে গিয়েছে। ৬১ শতাংশের ঔরসে শ্বেতকণিকা বৃদ্ধি পেয়েছে। যার অর্থ শুক্রাণুর কার্যকারিতা কমে যাওয়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top