জন্মদিনের একদিন পরে আক্রান্ত, ঘণ্টার ব্যবধানে কোভিডে মৃত যমজ ভাই

WhatsApp-Image-2021-05-18-at-1.34.04-PM.jpeg

Onlooker desk: গত ২৩ এপ্রিল ২৪ বছরের জন্মদিন পালন করেছিলেন উত্তর প্রদেশের মীরাটের যমজ ভাই জোফ্রেড এবং র‍্যালফ্রেড গ্রেগরি। তার একদিন বাদে কোভিডে আক্রান্ত হন দুই ভাই। সেরেও উঠেছিলেন। কিন্তু গত সপ্তাহে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে মারা গেলেন দু’জনেই। মর্মান্তিক নাটকীয়তার এখানেই শেষ নয়। একটি সংবাদমাধ্যমের রিপোর্ট অনুযায়ী, মীরাটের যে হাসপাতালে দু’জনে ভর্তি ছিলেন, সেখান থেকে গত ১৩ মে প্রথমে জোফ্রেডের মৃত্যুর খবর পান যমজ সন্তানের মা-বাবা সোজা রাফায়েল এবং গ্রেগরি রেমন্ড। শোকস্তব্ধ বৃদ্ধ দম্পতির কাছে কিছুক্ষণ বাদে ফোন আসে আর এক সন্তান র‍্যালফ্রেডের। ভাইয়ের খবর জানতে চায় সে। সোজা জানান, তাকে অন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। কিন্তু মায়ের কথা বিশ্বাস হয়নি ছেলের। বলেন, ‘মা, আমাকে মিথ্যে কথা বলছ তুমি।’ কয়েক ঘণ্টার মধ্যে মারা যান তিনিও।
১৯৯৭ এর ২৩ এপ্রিল তিন মিনিটের ব্যবধানে জন্ম হয়েছিল দুই ভাইয়ের। প্রায় সব কাজই মিলেমিশে করতেন তাঁরা। ছ’ফুট লম্বা, দোহারা চেহারার সুদর্শন দুই ছেলে পরিবারেরও অত্যন্ত স্নেহভাজন। তাঁদের এক দাদা আছেন। কোয়ম্বত্তুরের কলেজ থেকে একসঙ্গে বি টেক শেষ করেন দু’জনে। দু’জনেই ভালো সংস্থায় কাজ করতেন। কর্মসূত্রে বিদেশে পাড়ি দেওয়ারও স্বপ্ন ছিল দুই ভাইয়ের। তাঁদের এই পরিণতি করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ধস্ত দেশে মর্মান্তিক ঘটনার তালিকার নবতম সংযোজন।
একটি সংবাদমাধ্যমের খবর, জোফ্রেড মীরাটে বাড়ি থেকে অফিসের কাজ করছিলেন। আর র‍্যালফ্রেড কর্মসূত্রে থাকতেন হায়দরাবাদে। হাতে চোট পাওয়ায় সেখান থেকে তিনিও ফিরেছিলেন বাড়িতে। গত ২৩ এপ্রিল জন্মদিনের অনুষ্ঠানের ঠিক পরে জ্বর আসে তাঁদের। বাড়িতেই চিকিৎসা চলছিল দু’জনের। অবস্তার অবনতি হওয়ায় ১ মে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ১০ মে তাঁদের কোভিড রিপোর্ট নেগেটিভ আসে। আনন্দের সীমা ছিল না পরিবারের। তিন দিনের মাথায় হঠাৎই মারা যান জোফ্রেড। অবিচ্ছেদ্য দুই ভাইয়ের মধ্যে একজন মারা যাওয়ায় দুশ্চিন্তা শুরু হয় অন্যজনকে নিয়ে। আশঙ্কা সত্যি করে চলে যান তিনিও।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top