জনসন অ্যান্ড জনসনের সিঙ্গল ডোজ টিকায় ছাড়পত্র ভারতের

Johnson-Johnson.jpg

Onlooker desk: মার্কিন ওষুধ প্রস্তুতকারক সংস্থা জনসন অ্যান্ড জনসন (Johnson & Johnson)-এর সিঙ্গল ডোজ টিকাকে (COVID-19 vaccine) ইমার্জেন্সি অ্যাপ্রুভাল দিল ভারত। কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী মনসুখ মাণ্ডব্য শনিবার টুইট করে এ কথা জানিয়েছেন।
আজ দুপুরে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী টুইটে লেখেন — ভারতের ভ্যাকসিনের (COVID-19 vaccine) ঝুলি আরও চওড়া হস। জনসন অ্যান্ড জনসনের (Johnson & Johnson) সিঙ্গল ডোজ কোভিড ১৯ টিকাকে (COVID-19 vaccine) ভারতে জরুরিভিত্তিতে ব্যবহারে ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে। ভারতে এখন ৫টি ভ্যাকসিন ইমার্জেন্সি ইউজ অথরাইজেশন (উউইএ) (EUA) প্রাপ্ত। এর ফলে দেশের সামগ্রিক লড়াই আরও জোরদার হল।
ভারতীয় ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্খা বায়োলজিক্যাল ই লিমিটেডের সঙ্গে জনসনের চুক্তি হবে। তার ভিত্তিতে দেশে টিকা আসবে।
একদিন আগেই ইমার্জেন্সি ইউজ অথরাইজেশনের (উউইএ) (EUA) জন্য আবেদন জানিয়েছিল জনসন। ছাড়পত্র মিলল দ্রুত। জনসনের এই টিকার নাম জ্যানসেন। শুক্রবার সংস্থার তরফে জানানো হয়েছিল, জনসন অ্যান্ড জনসনের আন্তর্জাতিক সরবরাহ চেনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ বায়োলজিক্যাল ই। সরকার, স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ এবং গ্যাভি বা কোভ্যাক্স ফেসিলিটির মতো সংগঠনের মাধ্যমে কোভিড টিকাকে ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করছে বায়োলজিক্যাল ই।
শনিবার ভারতে জনসন অ্যান্ড জনসনের এক মুখপাত্র বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি যে ভারত সরকার জনসন অ্যান্ড জনসনের সিঙ্গল ডোজ কোভিড-১৯ টিকাকে ইমার্জেন্সি ইউজ অথরাইজেশন (উউইএ) (EUA) দিয়েছে। ১৮ বছর বা তার বেশি বয়সিদের ক্ষেত্রে করোনা রোধে এই ভ্যাকসিন সহায়ক।
বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গিয়েছে, জনসনের (Johnson & Johnson) এই টিকা মাঝারি থেকে সঙ্কটজনক অসুস্থতা ঠেকাতে ৬৬ শতাংশ কার্যকর। আর সঙ্কটজনক রোগীদের প্রাণ সংশয় রোধে ৮৫ শতাংশ কার্যকর। টিকা নেওয়ার চার সপ্তাহ পরে হাসপাতালে ভর্তি বা মৃত্যু সম্পূর্ণ ভাবে ঠেকানো সম্ভব হয়েছে বলে গবেষণায় প্রকাশ।
জনসনের (Johnson & Johnson) এই টিকা নিয়ে দেশে মোট পাঁচটি টিকাকে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারে ছাড়পত্র দেওয়া হল। বাকি চারটি হল — পুনের সিরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড, ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন, রাশিয়ার স্পুটনিক এবং মডার্না।
ভারতে এ পর্যন্ত টিকার ৫০ কোটি ডোজ দেওয়া হয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেওয়া হয়েছে ৪৯.৫৫ লক্ষ ডোজ।
প্রসঙ্গত, শনিবার দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় কোভিড আক্রান্তের সংখ্যা আগের দিনের তুলনায় কিছুটা কম। এ দিন নতুন করে ৩৮ হাজার ৬২৮ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণের হদিস পাওয়া গিয়েছে। তবে মৃত্যু বেড়েছে। মারা গিয়েছেন ৬১৭ জন।
মার্কিন ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারক সংস্থা নোভাভ্যাক্সও ভারতে জরুরি ভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য ছাড়পত্র চেয়ে আবেদন জানিয়েছে।

Theonlooker24x7.com সব খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক করুন ফেসবুক পেজ  ফলো করুন টুইটার

Leave a Reply

Your email address will not be published.

scroll to top